বাস্তবতার আলাদিনের চেরাগ এশিয়া কাপ, একই টুর্নামেন্টে মা-মেয়ে

20221002 011922 1
Vinkmag ad

আলাদিনের চেরাগ ও ইচ্ছে পূরণের গল্পটা সবারই জানা। দৈত্যের কাছে তিনটি ইচ্ছের কথা বলা যায়, প্রতি ঘষায় একটি করে চাওয়া পূরণ হয়। বাস্তব জীবনে এমনটা সহসায় সম্ভব নয় হয়তো। তবে কিছু স্বপ্ন পূরণ গল্পের পরতে পরতে ভালোবাসা, নিবেদন ও চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞার ছোঁয়া লেগে থাকে।

তেমনই এক ভালোবাসার পূর্ণতা পেল চলমান নারী এশিয়া কাপের প্রথম দিন। এই প্রথম নারী এশিয়া কাপের পুরো একটা আসর পরিচালিত হচ্ছে নারী আম্পায়ার দ্বারা। আর এ দিয়ে আন্তর্জাতিক আম্পায়ারিং অভিষেক হয়ে গেল পাকিস্তানি সলিমা ইমতিয়াজের।

ভালোবাসার কাহিনীটা এখনো বলাই হয়নি। তিনি এই টুর্নামেন্টেই ক্রিকেটার হিসেনে পাকিস্তানকে প্রতিনিধিত্ব করতে আসা কাইনাত ইমতিয়াজের মা।

ছোট বেলা থেকেই ক্রিকেটের প্রেমে মজেছেন সলিমা। তবে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপানোর সৌভাগ্য হয়নি। নিজের স্বপ্ন অবশ্য পূরণ করেছেন মেয়েকে দিয়ে। ২০১০ সালে পাকিস্তানের হয়ে অভিষেক কাইনাতের। কিন্তু সলিমা নিজে অন্য কোনোভাবে হলেও দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে চেয়েছেন।

২০০৬ সালে আম্পায়ারিংয়ে আসেন। ২০২০ সালে পাকিস্তানের একটি ত্রিদলীয় টুর্নামেন্টে আম্পায়ারিং করেন। যেখানে খেলেছে কাইনাত, একই ম্যাচে মা আম্পায়ার ও মেয়ে ক্রিকেটার এমন দৃশ্য ঐ সময় দারুণ আলোচনার জন্ম দেয়।

বেশ কিছু পাকিস্তানি সংবাদ মাধ্যম খানিক ঝুঁকি নিয়ে লিখেও দেয় সম্ভবত ক্রিকেট ইতিহাসের, বিশেষ করে নারী ক্রিকেটে প্রথম এমন ঘটনা ঘটলো।

সেবার নানা সাক্ষাৎকারে সলিমা ইমতিয়াজ জানিয়েছেন একদিন আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনা করতে চান। কোনো না কোনোভাবে দেশের প্রতিনিধি হয়ে নিজের নাম যোগ করার প্রবল ইচ্ছে।

20221002 011919
এশিয়া কাপে সালমা ইমতিয়াজ।

তিনি জানান, ‘কাইনাত আমার স্বপ্ন পূরণ করেছে। আমার ছোটবেলার স্বপ্ন ছিল পাকিস্তানকে প্রতিনিধিত্ব করা। কাইনাত শুধু ভালো মেয়ে না, ভালো ক্রিকেটারও।’

‘আমি ২০০৬ সাল থেকে আম্পায়ারিং করছি। আমি আইসিসির আম্পায়ারিং প্যানেলে যুক্ত হওয়ার স্বপ্ন দেখি। আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনা করতে চাই এবং দেশের হয়ে নাম করতে চাই।’

ঐ বক্তব্যের প্রায় তিন বছরের মাথায় স্বপ্ন পূরণ হয়ে গেল সলিমা ইমতিয়াজের। এশিয়া কাপের প্রথম দিনে গতকাল (১ অক্টোবর) ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক আম্পায়ারিং অভিষেক হয়ে গেল তার।

এ নিয়ে নিজের টুইটার পোস্টে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন পাকিস্তানের হয়ে ১৫ ওয়ানডে ও ২০ টি-টোয়েন্টি খেলা মেয়ে কাইনাত ইমতিয়াজ।

তিনি লিখেন,

‘আমার মা আম্পায়ার হিসেবে এবারের এশিয়া কাপ পরিচালনা করছেন। মায়ের এই অর্জনে আমি কতটা গর্বিত তা বলে বোঝানো সম্ভব না। আম্পায়ার হিসেবে পাকিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করার স্বপ্ন দেখে আসছেন তিনি। তার স্বপ্ন পূরণ হলো আজ। আমি ভীষণ রোমাঞ্চিত।’

এর আগে ২০২০ সালে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কাইনাত জানিয়েছেন খেলা ছাড়ার পর মায়ের মতো অন্য কোনোভাবে হলেও মাঠেই থাকতে চান।

তার ভাবনা ছিল এমন,

‘আমি গর্ব অনুভব করি মাকে নিয়ে। সে আম্পায়ারিং বেছে নিয়েছে তার মাঠে থাকার চরম ইচ্ছে পূরণ করতে। আমিও মায়ের মতো হতে চাই যেন নিবেদনকে অন্য কিছুতে রূপান্তর করে হলেও দেশের জন্য কিছু করতে পারি, খেলোয়াড়ি জীবনের ইতি টানলেও।’

সিলেট থেকে নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

কিংবদন্তি ক্যালিসের চোখে হার্দিক-স্টোকস

Read Next

দাপুটে জয়ে এশিয়া কাপ শুরু পাকিস্তানের

Total
4
Share