গায়ানার জয়ে সাকিবের চোখে সেরা যারা

gettyimages 1427085316 2048x2048 1
Vinkmag ad

সাকিবের আলো ছড়ানোর দিনে গায়ানা অ্যামাজন পেল প্লে-অফের টিকিট। বল হাতে দাপটের পর ব্যাটিংয়েও সাকিবের তান্ডব; গায়ানার টানা চার জয়! ১ উইকেটের পাশাপাশি ফিফটি হাঁকিয়ে ম্যাচ সেরা হলেও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সাকিব প্রশংসা করলেন দলের বোলিং ইউনিটের।

 

সিপিএলে সাকিব যেন রীতিমতো উড়ছেন। টানা দুই ম্যাচে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতলেন বাংলাদেশের সুপারস্টার। ভোরে বার্বাডোস রয়্যালসের বিপক্ষে ১৭৬.৬৬ স্ট্রাইক রেটে ৩০ বলে খেলেন ৫৩ রানের ইনিংস। বোলিংয়ে সাকিব মাত্র ২.৩ ওভার করতেই অলআউট হয়ে যায় বার্বাডোস। তবুও ১২ রান খরচায় তুলে নেন ১টি উইকেট।

ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে সাকিব কথা বললেন,

‘শেষ তিনটি ম্যাচ আমরা খুব ভালো খেলেছি। আজ একটি গুরুত্বপূর্ণ খেলা ছিল; আমাদের দ্বিতীয় স্থান ধরে রাখতে। বেশিরভাগ সময় স্পিনাররাই দলের হয়ে কাজ করছেন। পেসাররাও হাত বাড়িয়েছেন। সব মিলিয়ে খুব ভালো বোলিং পারফরম্যান্স। আমরা নিশ্চিত ছিলাম না যে এই পিচে ভালো টোটাল কী। শেফার্ড দুর্দান্ত বোলিং করেছে।’

সাকিবের ১উইকেট ছাড়াও পেসার রোমারিও শেফার্ড সর্বোচ্চ ৩টি, কেমো পল ও ওডিয়ান স্মিথ নেন ২টি ও ইমরান তাহির শিকার করেন এক উইকেট।

ব্যাটিংয়ে চন্দরপল হেমরাজ ও শাই হোপ শুরুতেই ফিরে গেলে দ্রুতই উইকেটে আসতে হয় সাকিবকে। এদিন শুরু থেকেই সাকিব হন মারমুখী। ইনিংসের ৯তম ওভারে রেমন সিমন্ডসকে খরচ করান ২৩ রান। পরের ওভারে জেসন হোল্ডারকে ছক্কা হাঁকিয়ে পূর্ণ করেন ফিফটি; মাত্র ২৭ বলে। 

ফিফটির পর অবশ্য সাকিবের ইনিংস বেশি পথ এগোয়নি। ব্যক্তিগত ৫৩ রানে লেগে বড় শট খেলতে যেতে হয়েছেন ক্যাচ আউট। ৩০ বলে ৫ চার ও ৩ ছয়ের সাহায্যে সাজানো এই ইনিংস। অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের জয়ের ভিত্তি তৈরি করেই সাকিব যান প্যাভিলিয়নে। এমন রাজসিক অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের সুবাদে ৫ উইকেটের সহজ জয় পেয়েছে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স।

কোয়ালিফায়ারে দুই দলই আবারও লড়াইয়ে নামবে। জিতলেই এবারের সিপিএলের ফাইনাল।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস হারিসে ম্লান হয়ে গেল ডসনের লড়াই

Read Next

পিএসএল মানের বিপিএল করাও কঠিন স্বীকার করছে বিসিবি

Total
1
Share