ব্যাটে-বলে উজ্জ্বল সাকিব পেয়েছেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার

FB IMG 1664076822485
Vinkmag ad

যখনই ফিরেন, একা হাতে জিতিয়ে দেন দলকে। সাকিব আল হাসান ঠিক তেমনই এক ক্রিকেটার। সিপিএলে দুই ম্যাচ পর হেসেছে সাকিবের ব্যাট! বোলিংয়েও সাকিব ছাড়লেন স্পিন বিষ; ২০ রান খরচায় তুলে নেন ৩ উইকেট। আর তাতেই ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সকে ৩৭ রানে হারায় গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স। প্রায় নিশ্চিত প্লে-অফের টিকিট। 

ব্যাট হাতে ২৫ বলে ৩৫ রানের ইনিংস আর বোলিংয়ে ২০ রান খরচায় ৩ উইকেট, ডিরেক্ট থ্রোতে নিকোলাস পুরানকে করেন রান-আউট। সাকিবের এমন রাজসিক অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের সুবাদে ৩৭ রানের সহজ জয় পেয়েছে গায়ানা অ্যামাজন। ম্যাচ শেষে ম্যান অব দ্য ম্যাচ খুঁজে নিতেও কোনো সমস্যাই হয়নি সিপিএল সংশ্লিষ্টদের। স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচ সেরার পুরস্কার ওঠেছে টি-টোয়েন্টির নম্বর ওয়ান অলরাউন্ডার সাকিবের হাতে। এবারের সিপিএলে এটিই সাকিবের প্রথম ম্যাচসেরার পুরস্কার।

সাকিবের আলো ছড়ানোর দিনে গায়ানা অ্যামাজন পেল বড় স্বস্তি। প্লে-অফের দৌড়ে এগিয়ে থাকলো বেশ ভালোভাবেই। সাকিব দলে ফিররেই গায়ানা পেল টানা তিন জয়! পয়েন্ট টেবিলে এখন তাদের অবস্থান দুইয়ে।

সিপিএলে গত দুই ম্যাচে বল হাতে জ্বলে উঠলেও ব্যাট হাতে সাদামাটা ছিলেন সাকিব। আজ শাই হোপ সাজঘরে ফিরতেই চার নম্বরে ব্যাট হাতে উইকেটে আসেন সাকিব আল হাসান। প্রথম ১১ বলে করেন ১০ রান। এরপর সামিত প্যাটেলের এক ওভারে হাঁকিয়েছেন ৩ বাউন্ডারি। পরের ওভারে সুনিল নারাইনকে মিড উইকেটের উপর দিয়ে মারেন ছক্কা।

শেষপর্যন্ত সাকিব বিদায় নেন ৩৫ রানে। ২৫ বলে ৪ চার ও ১ ছয়ে সাজানো তার এই ইনিংস।

এদিন ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ হাঁকান ফিফটি। শেষদিকে অধিনায়ক শিমরন হেটমায়ার ও ওডিয়ান স্মিথের ক্যামিওতে ১৭৩ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করায় গায়ানা।

ব্যক্তিগত প্রথম ওভারেই উইকেটের দেখা পান সাকিব। দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে টিম সেইফার্টকে ফেলেন লেগ বিফোরের ফাঁদে।এই ওভারে কেবল ১ রান খরচায় ঝুলিতে নেন ১ উইকেট। দ্বিতীয় ওভারে ৭ রান খরচ করেও পাননি উইকেট।

ইনিংসের ১৭তম ওভারে সাকিবকে আনা হয় বোলিং প্রান্তে। এবার সাকিব তুলে নেন আন্দ্রে রাসেলের উইকেট। সাকিবের শর্ট বলে পুল খেলতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন রাসেল। ১৯তম ওভারে সাকিব ফের অ্যাকশনে। প্রথম বলেই সুনিল নারাইন হাঁকান বাউন্ডারি। পরপর দুই বল ডট, তৃতীয় বলে নারাইনকে বোল্ড করে সাকিব মাতেন উদযাপনে।

এদিন সাকিব কোটার ৪ ওভার শেষ করেন ২০ রান খরচায়, আর দখলে নেন তিনটি উইকেট।

ফলে নির্ধারিত ওভারে ১৩৬ রানের বেশি করতে পারেনি ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। টানা তিন জয়ে সিপিএলে গায়ানার অবস্থান এখন দুই নম্বরে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স: ১৭৩/৬ (২০ ওভার) গুরবাজ ৬০, হেমরাজ ৪, হোপ ১৪, সাকিব ৩৫, শেফার্ড ৬, হেটমায়ার ২৩, স্মিথ ২২*; নারাইন ২/২৩, রামপল ১/৫২, সামিত ১/২৩

ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স: ১৩৬/১০ (২০ ওভার) সেইফার্ট ১৩, মুনরো ৩০, সামিত ৩৪, পুরান ১, পোলার্ড ১৩, রাসেল ১২, নারাইন ১৯; সাকিব ৩/২০, জুনিয়র ২/২৬, মতি ১/১৬, তাহির ২/৩১, স্মিথ ১/২১

ফলাফল: গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স ৩৭ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরা: সাকিব আল হাসান (গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

লর্ডসে ভারতকে জয় এনে দিয়ে ঝুলন গোস্বামীর বিদায়

Read Next

গুরবাজ, হেটমায়েরদের প্রশংসায় ভাসালেন সাকিব

Total
1
Share