মিরপুরে শটের ফুলঝুরি, পাকিস্তান জয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন আরিফুল

ম্লান হয়ে গেল আরিফুলের সেঞ্চুরি, দল হারলেও হয়েছেন ম্যাচসেরা
Vinkmag ad

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মিডিয়া সেন্টারের সামনে খোলা জায়গায় আজ (২৪ সেপ্টেম্বর) মধ্য দুপুরে একের পর এক বল উড়ে আসছিল পাশের একাডেমি মাঠ থেকে। সেখানে দাঁড়ানো এক নিরাপত্তাকর্মী উচ্ছ্বসিত কণ্ঠে বলছিলেন, ‘ছোট ছাওয়ালটা দেহি ভালো মারতাছে, হাতে হিট আছে।’

ঠিক ঐ সময় ওখানে দাঁড়ানো যে কারও এমনটা মনে হওয়া স্বাভাবিক। কারণ সর্বশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে খেলা লিকলিকে শরীরের আরিফুল ইসলাম যে একের পর এক পুল, লফটেড, ইনসাইড আউট শটে বল সীমানা ছাড়া করতে ব্যস্ত। সবচেয়ে বড় কথা বলের মেধা বিচার করে যেভাবে চেয়েছেন ব্যাটে-বলে সেভাবেই যেন রসায়ণ করাতে পারছেন।

No description available.

আরিফুলের এমন প্রস্তুতির মূল কারণ হল প্রথম বারের মতো অনুষ্ঠিতব্য পাকিস্তান জুনিয়র লিগে (পিজেএল) খেলতে যাবেন বলে। বাংলাদেশ থেকে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে সুযোগ পেয়েছেন আরিফুল। খেলবেন গুজরানওয়ালা জায়ান্টসে, দলটির মেন্টর পাকিস্তানি তারকা অলরাউন্ডার শোয়েব মালিক।

ডানহাতি এই ব্যাটার যুব বিশ্বকাপে দলের ভরাডুবির মাঝেও হাঁকান জোড়া সেঞ্চুরি। বয়সভিত্তিকে বিসিবি এবারই প্রথম বার টি-টোয়েন্টি সংযোজন করে, সেখানেও বাজিমাত এই ব্যাটারের। শেখ কামাল ইয়ুথ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টেও হাঁকান জোড়া শতক। এবার নিজেকে আরেক দফা মেলে ধরার পালা বিশ্ব মঞ্চে।

৬ অক্টোবর থেকে মাঠে গড়াবে ৬ দলের পিজেএল, আরিফুল দেশ ছাড়বে ২৮ সেপ্টেম্বর। তার আগে নিজেকে ঝালিয়ে নেওয়ার মিশনে সঙ্গী হিসেবে পেয়েছেন বিসিবি কোচ সোহেল ইসলামকে। কিছু নতুন শটও আয়ত্বে আনার চেষ্টা করেছেন।

‘ক্রিকেট৯৭’ কে আরিফুল বলেন, ‘আমি দুই-তিন ধরেই অনুশীলন করছি মিরপুরে। ইনডোরে কাজ করেছি সোহেল (ইসলাম) স্যারের সাথে। উনি আমাকে কিছু শট দেখিয়ে দিয়েছেন সেগুলো চেষ্টা করছি।’

‘বাংলাদেশ থেকে যেহেতু একমাত্র আমিই সুযোগ পেয়েছি আমার জন্য এটা অনেক দায়িত্বের। দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে যাচ্ছি, চেষ্টা করবো ভালো কিছু উপহার দেওয়ার। আর নিজে যতটুকু পারি এই টুর্নামেন্ট থেকে শেখার, নেওয়ার।’

গুজরানওয়ালা জায়ান্টসে মেন্টর শোয়েব মালিক ছাড়াও প্রধান কোচ হিসেবে কাজ করবেন ইজাজ আহমেদ সিনিয়র। বোলিং কোচ হিসেবে দেখা যাবে সাবেক পাকিস্তানি পেসার আইজাজ চিমাকে। মালিকদের কাছ থেকে শেখার পাশাপাশি টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও হতে চান আরিফুল।

No description available.

এ প্রসঙ্গে তার ভাষ্য, ‘দলে আমার পাকিস্তানি বন্ধু আছে, যাদের সাথে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে খেলেছি। আর আমাদের মেন্টর শোয়েব মালিক। উনার মতো ক্রিকেটারকে এতো কাছ থেকে পাবো, কিছু যেন শিখে আসতে পারি সেটাই আমার লক্ষ্য। এর বাইরে যে কোনো টুর্নামেন্টে আমার লক্ষ্য থাকে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়ার, এখানেও একই। বাকিটা দেখা যাক।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দুবাইয়ে টিকিট ছাড়াই দেখা যাবে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি সিরিজ

Read Next

না থেকেও দুবাইতে দলের পরিকল্পনায় সক্রিয় সাকিব

Total
35
Share