অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে জিম্বাবুয়ের ঐতিহাসিক জয়

FB IMG 1662183116046
Vinkmag ad

প্রথম দুই ওয়ানডে জিতে সিরিজটা আগেই জিতে নিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। শেষ ম্যাচে এসে জিম্বাবুয়ের বাজিমাত। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিম্বাবুয়ে তাদের প্রথম ওয়ানডে জয় পেল। রায়ান বার্লের স্পিন ঘূর্ণির সামনে পড়ে ১৪১ রানেই অলআউট হয়ে যায় অজিরা। দ্বিতীয় ইনিংসে, জিম্বাবুয়ে রান তাড়া করতে গিয়ে ৭ উইকেট হারায় কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৬৬ বল বাকি থাকতে লক্ষ্যে পৌঁছে যায়।

বল হাতে মাত্র ৩ ওভার হাত ঘুরিয়ে রায়ান বার্ল তুলে নেন পাঁচ উইকেট। ডেভিড ওয়ার্নারের ৯৪ রানের পরও ১৪১ রানে গুটিয়ে যায় অজি ব্যাটিং লাইন। ৩ উইকেটের ঐতিহাসিক জয় তুলে নেয় রেগিস চাকাভার দল। আর তাতেই অস্ট্রেলিয়ার মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিম্বাবুয়ে পেল নিজেদের প্রথম জয়। 

টাউন্সভিলে টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে এদিন আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায় জিম্বাবুইয়ান অধিনায়ক রেগিস চাকাভা। ডেভিড ওয়ার্নারের ৯৪, আর ম্যাক্সওয়েলের ১৯ রান ছাড়া কেউ পৌঁছাতে পারেননি দুই অংকের ঘরে। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ব্যাট হাতে ভয়ঙ্কর দিনে একা হাতে খেলেছেন ওয়ার্নার।

রায়ান বার্লের স্পিন বিষে রীতিমতো নীল হয়ে যায় স্বাগতিকরা। তিন ওভারে কেবল ১০ রান খরচায় দখলে নেন পাঁচ উইকেট! বার্ল একে একে বিদায় করেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যাশটন আগর, ডেভিড ওয়ার্নার, মিচেল স্টার্ক ও জশ হ্যাজেলউডকে। শুধু ওয়ানডে কিংবা আন্তর্জাতিক না, এটিই তার পুরো ক্রিকেট ক্যারিয়ারে সেরা বোলিং ফিগার।

শেষপর্যন্ত ১৪১ রানে থামে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস, খেলতে পারেনি ৩১ ওভারের বেশি।

ছোট টার্গেট টপকাতে পারলেই ইতিহাস গড়বে জিম্বাবুয়ে। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা বেশ ভালোভাবেই করেন দুই ওপেনার। কিন্তু জশ হ্যাজেলউডের বলে ক্যাচ তুলে ওপেনার কাইতানো ফেরেন ব্যক্তিগত ১৯ রানে, ভাঙে ৩৮ রানের উদ্বোধনী জুটি। তিনে নামা ওয়েস্লি মাধেভেরে এদিন ব্যাট হাতে ব্যর্থ (২)। এই ওভারেই হ্যাজেলউড তুলে নেন তৃতীয় উইকেট। শূন্য হাতে বিদায় নেন শন উইলিয়ামস।

দেখে-শুনে খেলে উইকেটে থিতু হওয়ার চেষ্টা করেন সিকান্দার রাজা। ১৯ বলে ৮ রান করে রাজা যখন প্যাভিলিয়নে ফেরেন তখন স্কোরবোর্ডে জিম্বাবুয়ের অবস্থা ৬৬/৪। ইনিংস বড় করতে পারেননি ওপেনার তাদিওয়ানাশে মারুমানি। ক্যামেরন গ্রিনের শিকার হয়ে বিদায় নেন ব্যক্তিগত ৩৫ রানে।

এরপর অধিনায়ক রেগিস চাকাভা ও টনি মুনিয়ঙ্গা জুটি গড়ে এগোতে থাকে। অ্যাশটন অ্যাগারের বলে বোল্ড হন মুনিয়ঙ্গা। ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ১৭ রান।

শেষপর্যন্ত অধিনায়ক রেগিস চাকাভা অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন। ৭২ বল খেলে ৩ চারের সাহায্যে খেলেন ৩৭ রানের হার না মানা এক ইনিংস। মাঝে রায়ান বার্ল করেন ১১ রান। ৬৬ বল হাতে রেখেই জিম্বাবুয়ে পায় ৩ উইকেটের রোমাঞ্চকর জয়। শেষ ম্যাচ হারলেও সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতেছে অস্ট্রেলিয়া।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ১৪১/১০ (৩১ ওভার) ওয়ার্নার ৯৪, ফিঞ্চ ৫, স্মিথ ১, ক্যারি ৪, স্টোইনিস ৩, গ্রিন ৩, ম্যাক্সওয়েল ১৯; বার্ল ৫/১০, ইভান্স ২/৩৫, নায়াউচি ১/১৫, এনগারাভা ১/২৭, উইলিয়ামস ১/৩৬

জিম্বাবুয়ে: ১৪২/৭ (৩৯ ওভার) কাইতানো ১৯, মারুমানি ৩৫, মাধেভেরে ২, রাজা ৮, চাকাভা ৩৭*, মুনিয়ঙ্গা ১৫, বার্ল ১১; হ্যাজেলউড ৩/৩০, স্টোইনিস ১/৬, স্টার্ক ১/৩৩, অ্যাগার ১/১৬, গ্রিন ১/১৭

ফলাফল: জিম্বাবুয়ে ৩ উইকেটে জয়ী

ম্যাচ সেরা: রায়ার্ন বার্ল (জিম্বাবুয়ে)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

দক্ষিণ আফ্রিকার টি-টোয়েন্টি লিগের নিলামে খালেদ আহমেদ

Read Next

অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে প্রশংসার জোয়ারে ভাসছে জিম্বাবুয়ে

Total
1
Share