‘ক্রিকেটারদের জিজ্ঞেস করা হবে, ডোমিঙ্গোর অভিযোগের প্রেক্ষিতে’

জালাল ইউনুস
Vinkmag ad

দেশের ক্রিকেটে বিতর্ক যেন নিয়মিত সঙ্গী। এশিয়া কাপ খেলতে দল আছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। তবে এর মাঝেই কোচ হিসেবে টি-টোয়েন্টি থেকে আপাতত দূরে থাকা রাসেল ডোমিঙ্গো উসকে দিলেন বিতর্ক। বিসিবিও নড়েচড়ে উঠেছে, জল ঘোলা হচ্ছে আরও।

দিন দুয়েক আগে সংবাদ সম্মেলন করে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ঘোষণা দেন আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত ডোমিঙ্গো টি-টোয়েন্টি দলের সাথে কাজ করবে না।

কেবল টেস্ট ও ওয়ানডেতেই থাকবে তার পূর্ণ মনযোগ। ডোমিঙ্গোও উপস্থিত সাংবাদিকদের জানিয়েছেন তিনি বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে নিয়েছেন।

কিন্তু জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোকে দেওয়া সাক্ষাতকারে এই দক্ষিণ আফ্রিকান তুলেছেন বেশ কিছু অভিযোগ। যেখানে দল পরিচালনায় স্বাধীনতা না পাওয়া সহ ক্রিকেটারদের সাথে বোর্ড পরিচালক, টিম ডিরেক্টরের খারাপ আচরণ করাও ছিল। ক্রিকেটারদের নানাভাবে চাপে রাখা হয় বলে সোজা সাপ্টা জানালেন ডোমিঙ্গো।

তার প্রেক্ষিতেই আজ (২৪ আগস্ট) সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস।

তিনি বলেন,

‘আমি আসলে সবার সঙ্গে আলাপ করে মন্তব্য করতে চাই। এই সময় আমি মন্তব্য করতে চাচ্ছি না। তবে কিছু কিছু জিনিস আছে যেটা বললেন আপনি, খেলোয়াড়দের ব্যাপারে। সেটা খেলোয়াড়দের জিজ্ঞেস করলেই হবে কারা হ্যাম্পারিং করে না করে।’

‘তাহলেই তো পরিস্কার হয়ে যাবে। এটা সত্য নয়। যদি কোনো মেসেজ দেয়ার থাকে মেসেজ দেয়। এটা আমরা চাই, এভাবে আমরা চাই। এটা একেবারে খোলামেলা।’

টি-টোয়েন্টিতে ডোমিঙ্গো হয়তো বর্তমানে দূরে তবে টেস্ট ও ওয়ানডের কোচ ঠিকই। এভাবে প্রকাশ্যে দলের ভেতরের অবস্থা নিয়ে অভিযোগ করা কাম্য নয় বলছেন জালাল। বরং তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে বলে পাল্টা বক্তব্য দেন।

‘অবশ্যই এটা কাম্য নয়। এখনও তার সঙ্গে আমাদের চুক্তি রয়েছে এবং সরাসরি কিছু অভিযোগ আছে। এই অভিযোগগুলো আমি খন্ডন করছি না, আমরা নিজেদের মাঝে আলাপ আলোচনা করবো। আমি মাননীয় সভাপতিকে জানিয়েছি, উনিও দেখেছেন নিউজটা।’

‘সিইও সাহেবও জানেন। আমাদের নিজেদের মাঝে আলাপ আলোচনা করা দরকার। তারপর আমরা বলতে পারবো কি জানতে চাইবো তার কাছে। এটা আমরা পরে সিদ্ধান্ত নেবো।’

তবে এর চূড়ান্ত রূপ হল চিঠি দিয়ে তার কাছে ব্যাখ্যা জানতে চাওয়া। কোনো শো কজ নয় বরং আলাপ আলোচনার মাধ্যমে বিষয়গুলো পরিষ্কার হতে চায় বিসিবি।

জালাল বলেন,

‘আমি বললাম তো জিনিসটা আগে খতিয়ে দেখি এবং এটা নিয়ে আমার কাছে মনে হয় বোর্ড থেকে তার কাছে একটা চিঠি যাওয়া উচিত যে বক্তব্যগুলো আসলে কি বুঝাতে চেয়েছেন। যদি আমাদের পরিস্কার করে তাহলে আমরা বুঝতে পারবো কোথায় সমস্যা হচ্ছে।’

‘এটা আসলে শোকজ নয়, আমরা আসলে জানতে চাইবো। এজন্যই বললাম, এই মুহূর্তে আমি কমেন্ট করতে চাচ্ছি না। আমরা নিজেদের মাঝে আলাপ করে দেখি। আলাপ করার পরে পরবর্তী অ্যাকশনটা কি হবে সেটা আপনাদের জানাতে পারবো।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

যতটুকু দিবেন তার চেয়ে বেশি নিবেন রিশাদ

Read Next

এশিয়া কাপে পাকিস্তানের কোচিং স্টাফে উমর রশিদ

Total
4
Share