সাকিব ছাড়া খেলতে হলেও চাপে নেই বিসিবি

সাকিব বিসিবি
Vinkmag ad

বেটউইনার নিউজের সাথে চুক্তি বাতিল না করলে সাকিব আল হাসানকে দলেই রাখা হবে না বলে হুশিয়ারি দিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। যদি সত্যি সাকিব চুক্তি বাতিল না করেন তাহলে টি-টোয়েন্টিতে তাকে অধিনায়ক করার যে ভাবনা তা নিয়ে চাপে থাকার কথা বোর্ডের। তবে পাপন জানালেন এসব নিয়ে তারা কোনো চাপে নেই, বিকল্পের তালিকাটা যে বেশ লম্বাই।

ব্যাট হাতে টানা ব্যর্থ টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তার অধীনে দলের অবস্থা আরও করুণ। যে কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শেষে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে তাকে বিশ্রামে দেয় বিসিবি। তার জায়গায় অধিনায়ক হিসেবে পাঠানো হয় নুরুল হাসান সোহানকে।

দ্বিতীয় ম্যাচে সোহান চোটে পড়ে সফর থেকে ছিটকে যান। তৃতীয় ম্যাচের একাদশে রিয়াদকে ফেরানো হলেও অধিনায়কত্ব দেওয়া হয় মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে। বিসিবির ভবিষ্যত পরিকল্পনায় এশিয়া কাপ থেকে টি-টোয়েন্টি দলের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়ার কথা সাকিবকে। কিন্তু নিজেই বিতর্কিত এক চুক্তিতে জড়িয়ে দেশের ক্রিকেটেই গত কয়দিন আলোচনার তুঙ্গে এই অলরাউন্ডার।

বেটিং সাইট বেটউইনারের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান বেটউইনারনিউজ পোর্টালের সাথে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে যুক্ত হন সাকিব। দেশের আইন ও সামাজিকভাবে নিষিদ্ধ বলে বেটিং সংক্রান্ত কোনো কিছুকে গ্রহণযোগ্য মানছে না বিসিবি। সাকিবের আবার পাল্টা যুক্তি, তিনি সরাসরি বেটিং সাইটের সাথে চুক্তিবদ্ধ নন, বেটউইনারনিউজ বেটউইনারের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।

কিন্তু বিসিবিও নিজেদের অবস্থানে অনড়, ইতোমধ্যে দেওয়া হয়েছে চিঠি। এই সাইটের সাথে চুক্তি বাতিল করতেই হবে। নাহলে দল থেকে বাদ দেওয়ার ক্ষেত্রেও ভাববে না বোর্ড। অধিনায়ত্ব তো পরের ব্যাপার। আজ (১১ আগস্ট) সাকিবের উত্তর পেয়ে তবেই পরের সিদ্ধান্ত জানাবে দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এমন পরিস্থিতিতে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক নিয়ে চাপে আছে কীনা বোর্ড? আজ পাপনের বেক্সিমকো কার্যালয়ে বোর্ড কর্তাদের সাথে বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্ন করা হয়। কারণ এখনো এশিয়া কাপের দলও যে ঘোষণা হয়নি, যেখানে অধিনায়ক ইস্যুটি বড় প্রভাব রাখছে।

জবাবে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘কোনো চাপ নেই। আমি আগেও বলেছি রিয়াদ ইতোমধ্যে তালিকায় আছে। রিয়াদ, সাকিব, আমরা সোহানকে নিলাম, লিটন দাস এ নামগুলোও তো আছে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে এরা যদি নাও থাকে আপনারা দেখেন আমরা মোসাদ্দেককে করি নাই একটা ম্যাচে? আমরা এগুলো নিয়ে চিন্তিতই না। আপনার মাইন্ডটা ক্লিয়ার থাকতে হবে, চাপে পড়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কিছু নাই।’

‘আমাদের কপাল খারাপ আমাদের ভালো খেলোয়ায়ড়েরা যদি খেলতে না পারে। শুধু তো এ জন্য না, ইনজুরির কারণেও তো অনেকে খেলতে পারছে না। লিটন দাসকে আমরা মিস করবো না? এখন সবচেয়ে ভালো ফর্মে থাকা খেলোয়াড়। সোহানকে মিস করবো না? রাব্বি নাই…টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডের পুরো জিনিসটাই বদলে গেছে। এটা খেলারই অংশ, আমাদের এটা মেনে নিতে হবে।’

টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক ছোট ছোট মেয়াদে নয়, বরং দীর্ঘ মেয়াদে দেওয়ার ইচ্ছে বোর্ডের।

এ প্রসঙ্গে পাপন জানান, ‘আমরা এখন ছোট ছোট করে না দীর্ঘ মেয়াদে অধিনায়কত্ব দিতে চাচ্ছি। সামনে বিশ্বকাপ আছে, দেখি আমাদের টিম কম্বিনেশন কি হয়। মনে করলাম একটা ছেলেকে দিব, ও যদি স্কোয়াডেই না থাকে, এটা শুধু সাকিব না…তাহলে ওকে দিয়ে লাভ হল কি অধিনায়কত্বটা? টার তো কোনো মানে হল না। আমরা এখন টিমটা ঠিক করবো সেটার জন্য আমরা একটা দিন সময় নিচ্ছি। আজকে না করে আগামীকাল দলটা জানিয়ে দেওয়া হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

প্রয়োজনে সাকিবকে ছাড়াই দল দেওয়া হবেঃ পাপন

Read Next

চুক্তি বাতিল করছেন সাকিব

Total
5
Share