না ফেরার দেশে রুডি কোয়ের্টজেন

না ফেরার দেশে রুডি কোয়ের্টজেন
Vinkmag ad

বিশ্ব ক্রিকেটে অন্যতম পরিচিত মুখ রুডি কোয়ের্টজেন। সাবেক এই দক্ষিণ আফ্রিকান আম্পায়ার মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার রিভার্সডেলে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন তিনি।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর ১৩৬ দিন। গলফ খেলা শেষে কেপটাউন থেকে নিজের বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হন রুডি কোয়ের্টজেন। এই ঘটনাতে প্রাণ হারান আরও ৩ ব্যক্তি।

রুডি কোয়ের্টজেনের পুত্র রুডি কোয়ের্টজেন জুনিয়র অ্যালোগা এফএম নিউজকে তার পিতার চলে যাবার খবর নিশ্চিত করেন।

ক্রিকেটপ্রেমী রুডি কোয়ের্টজেন দক্ষিণ আফ্রিকান রেলওয়েতে ক্লার্ক হিসাবে কাজ করার সময় লিগ ক্রিকেট খেলেন। ১৯৮১ সালে শুরু করেন আম্পায়ারিং। ১১ বছর বাদে পোর্ট এলিজাবেথে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচে তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আম্পায়ারিং অভিষেক হয়।

২০১০ সালে হেডিংলিতে পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট দিয়ে ইতি টানেন আম্পায়ারিং ক্যারিয়ারের। আম্পায়ার হিসাবে বেশ সুনাম কুড়িয়েছিলেন রুডি।

তিন ফরম্যাট মিলে মোট ৩৩১ ম্যাচে আম্পায়ারিং করেছেন রুডি কোয়ের্টজেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার চেয়ে বেশি আম্পায়ারিং করেছেন কেবল পাকিস্তানের আলিম দার (৪২০*)।

১০৮ টেস্ট পরিচালনা করে আম্পায়ারদের মধ্যে ৩ নম্বরে রুডি। ১২৮ টেস্ট আম্পায়ারিং করে ২ নম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্টিভ বাকনার। শীর্ষে থাকা আলিম দার আম্পায়ার হিসাবে পরিচালনা করেছেন ১৪০ ম্যাচ।

ওয়ানডে ফরম্যাটে দ্বীতিয় সর্বোচ্চ ২০৯ ম্যাচে আম্পায়ারিং করেছেন রুডি কোয়ের্টজেন। শীর্ষে যথারীতি আলিম দার (২১৯)।

১০৮ টেস্ট, ২০৯ ওয়ানডে ও ১৪ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আম্পায়ারিং করা রুডি কোয়ের্টজেন টিভি আম্পায়ার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন যথাক্রমে ২০ টেস্ট, ৪১ ওয়ানডে ও ৫ টি-টোয়েন্টিতে। এছাড়া নারীদের টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও একবার আম্পায়ারিং করেছেন তিনি। ম্যাচ পরিচালনার অংশ ছিলেন ২৮ প্রথম শ্রেণি, ৫৯ লিস্ট এ ও ৭৪ স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বাংলাদেশ দলকে শাস্তি দিল আইসিসি

Read Next

ইংলিশদের দায়িত্ব ছাড়ার ঘোষণা দিলেন লিসা কেইটলি

Total
1
Share