ইনোসেন্ট-রাজার ব্যাটে পিষ্ট বাংলাদেশ

ইনোসেন্ট-রাজার ব্যাটে পিষ্ট বাংলাদেশ
Vinkmag ad

চার ফিফটিতে বাংলাদেশ প্রথম ওয়ানডেতে করে ৩০৩ রান। বড় টার্গেট দিয়েও বোলিং ব্যর্থতায় চাপা পড়ে গেল বিজয়ের কামব্যাক আর লিটনের দায়িত্বশীল ইনিংস। সিকান্দার রাজার ১৩৫ রানের অপরাজিত ইনিংসে ও ইনোসেন্ট কায়ার প্রথম ওয়ানডে শতকে জিম্বাবুয়ে পেল ৫ উইকেটের রোমাঞ্চকর জয়।

বাংলাদেশের দেওয়া ৩০৪ রানের টার্গেট টপকাতে নেমে শুরুতেই নেই জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনার। প্রথম ওভারেই মুস্তাফিজ বোল্ড করেন অধিনায়ক রেগিস চাকাভাকে (২)। পরের ওভারে শরিফুল ইসলাম তুলে নেন তারিসাই মুসাকান্দার উইকেট (৪)। তিনে নামা ইনোসেন্ট কায়াকে সঙ্গ দিতে আসেন ওয়েস্লি মাধেভেরে। কিন্তু রান-আউটে কাটা পড়ে মাধেভেরেকে ফিরতে হয় ব্যক্তিগত ১৯ রানে।

এরপরের গল্পটা কেবল ইনোসেন্ট-রাজার জুটির। এই দুইয়ের ব্যাটেই ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে বাংলাদেশ। ফিফটি হাঁকিয়ে আরও মারমুখী হয় দু’জন। ইনিংসের ৩৯তম ওভারে জিম্বাবুয়ে শিবির দেখে জোড়া সেঞ্চুরি! সিকান্দার রাজা ৮১ আর ইনোসেন্ট কায়া ১১৫ বলে পূর্ণ করে শতরান।

ভয়ংকর হয়ে ওঠা ইনোসেন্টকে ১১০ রানে বিদায় করে বাংলাদেশকে ব্রেকথ্রু এনে দেন মোসাদ্দেক হোসেন। ১৭২ বলে ১৯২ রানের এই জুটি ওয়ানডে ক্রিকেটে জিম্বাবুয়ের তৃতীয় সর্বোচ্চ। কিন্তু থামানো যায়নি সিকান্দার রাজাকে। মাঝে লুক জঙ্গে ১৯ বলে করেন ২৪ রান।

শেষপর্যন্ত সিকান্দার রাজা রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন। রাজার ১৩৫ রানের অনবদ্য ইনিংসের সুবাদের ১০ বল হাতে রেখেই ৫ উইকেটের জয় পায় জিম্বাবুয়ে।

এর আগে হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ব্যাটিংয়ে নেমে যেন রানের ফুলঝুরি ছুটিয়েছেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল আর লিটন দাস। দুর্দান্ত খেলতে থাকা এই জুটি বাংলাদেশকে এনে দিয়েছেন শতরানের উদ্বোধনী জুটি।

এরমাঝেই তামিম ইকবাল ছুঁয়েছেন ওয়ানডেতে ৮ হাজার রানের মাইলফলক। প্রথম বাংলাদেশি, আন্তর্জাতিক বিবেচনায় ৩৩তম ব্যাটসম্যান ও ৯ম ওপেনার হিসেবে এই রেকর্ড গড়লেন টাইগার অধিনায়ক।

ব্যক্তিগত অর্ধশত পেরিয়ে তামিম ছুটছিলেন শতকের দিকে। কিন্তু বাঁধা হয়ে দাঁড়ালেন সিকান্দার রাজা। ৬২ রানে তামিমকে বিদায় করে রাজা ভাঙলেন ১১৯ রানের উদ্বোধনী জুটি। তামিম ফেরার পর ফিফটি পূর্ণ করেন লিটন দাসও, যা তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সপ্তম। ৭৫ বলে ফিফটি হাঁকানোর লিটন পরের ১৪ বলে করেন ৩১। শতরানের পথে থাকা লিটন শেষপর্যন্ত রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফিরলেন ৮১ রানে।

তিন বছর পর ওয়ানডেতে ব্যাট হাতে নেমেই এনামুল হক বিজয়ের বাজিমাত। ৪৮ বলে ফিফটি হাঁকিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ৭৩ রানের ইনিংস খেলে। মুশফিকুর রহিমও এদিন পেয়েছে ফিফটির দেখা। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১২ বলে ২০ করে থাকে অপরাজিত। কেবল দুই উইকেট খুইয়ে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩০৩ রান করে বাংলাদেশ। যা দিন শেষে যথেষ্ঠ হয়নি। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৩০৩/২ (৫০ ওভার) তামিম ৬২, লিটন ৮১, বিজয় ৭৩, মুশফিক ৫২*, রিয়াদ ২০*; রাজা ১/৪৮, ভিক্টর ১/৭০

জিম্বাবুয়ে: ৩০৭/৫ (৪৮.২ ওভার) চাকাভা ২, মুসাকান্দা ৪, মাধেভেরে ১৯, ইনোসেন্ট ১১০, জঙ্গে ২৪, রাজা ১৩৫*; মুস্তাফিজ ১/৫৭, শরিফুল মোসাদ্দেক ১/৬৭, মিরাজ ১/৫৯

ফলাফল: জিম্বাবুয়ে ৫ উইকেটে জয়ী

ম্যাচ সেরা: সিকান্দার রাজা (জিম্বাবুয়ে)।

Shihab Ahsan Khan

Shihab Ahsan Khan, Editorial Writer- Cricket97

Read Previous

চার ফিফটিতে বাংলাদেশের ৩০০ পার

Read Next

লিটন ছিটকে যাচ্ছেন লম্বা সময়ের জন্য!

Total
5
Share