৩ বছর বয়সেই নিজের জাত চিনিয়েছিলেন আব্দুল্লাহ শফিক

featured photo updated v Recovered
Vinkmag ad

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ক্রিকেটের কোচিংয়ের সাথে ৩০ বছর ধরে নিযুক্ত আছেন পাকিস্তানের টেস্ট ওপেনার আবদুল্লাহ শফিকের বাবা শফিক আহমেদ। ৬ মাস পর পর তার বাড়ি যাওয়ার সুযোগ হত। ৩ বছর বয়সে আবদুল্লাহ শফিককে প্লাস্টিকের ব্যাট হাতে শ্যাডো অনুশীলন করতে দেখেছিলেন তিনি।

‘আমি বাড়ি আসার পর দেখলাম আমার ছেলে প্লাস্টিক ব্যাট হাতে শ্যাডো অনুশীলন করছিল। সে তখনও আমাকে খেয়াল করেনি। আমি দেখলাম সে একদম সঠিকভাবে ব্যাট নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। সামনের পায়ে ভর দিলো ঠিকভাবে এবং রক্ষণাত্মক ভঙ্গিতে খেলার অভিনয় করলো। আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। তাকে ৩-৬ মাস ধরে অনুশীলন করা একটা শিশু মনে হচ্ছিল। আমি সাথে সাথে আমার স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করলাম আবদুল্লাহ কী কারও সাথে ক্রিকেট খেলে কীনা, ‘ বলেন শফিক আহমেদ।

‘সে বুঝতে পারছিল না আমি কী বিষয়ে বলছি। সে আমার দিকে অদ্ভুতভাবে তাকিয়ে বললো দুইদিন আগে সে এই প্লাস্টিকের ব্যাট কিনে আবদুল্লাহকে দিয়েছিল। আমাকে তৎক্ষণাৎ হাসতে দেখে সে আরও অবাক হলো। আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না কারও রক্তে এভাবেও ক্রিকেটের বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায়। আমি বুঝলাম আমার ছেলে স্বাভাবিক আছে। অনেক শিশুকে দেখতাম, মাসের পর মাস অনুশীলন করেও ব্যাট ঠিকমত ধরতেই পারতো না। তাদের থেকে আবদুল্লাহ অনেক এগিয়ে।’

‘অনেক অভিজ্ঞতা নিয়ে একজন ক্রিকেট কোচ হিসেবে বলতে চাই, কোন উপদেশ দিতে গিয়ে আমারও অনেক সময় ভুল হয়। এমন না যে সে মেনে নেয়নি। তবে যদি সে মনে করে যে শটটা ঠিকঠাক হওয়া সত্ত্বেও আউট হতে পারে, তবে সেটা ভুল মনে করার দরকার নেই তার। ভালো বুদ্ধিমত্তা নিয়ে সে ব্যাট করতে জানে।’

ছেলেকে ঠিকমত সময় দিতে পারেননি বলেও জানান শফিক। এছাড়া বেশ রক্ষণশীল ও লাজুক ছেলে আবদুল্লাহ, সেটিও বলেন তিনি।

‘আরও তরুণ বয়সে থাকতে এক বছরের মাথায় আবদুল্লাহর অনূর্ধ্ব-১৯ জাতীয় দলে খেলার সুযোগ হয়েছিল। এটা তার জন্য অনেক বড় কিছু ছিল। সে একবিন্দুও সময় নষ্ট করেনি। মুলতানের পক্ষে অভিষেক ম্যাচে শিয়ালকোটের পক্ষে সেঞ্চুরি করেছিল আবদুল্লাহ।’

‘আবদুল্লাহ রক্ষণশীল মানুষ। খুব একটা সামাজিক না সে। অনেক সময় মানুষ মনে করে সে নাকি বদরাগী। সে আমাকে বলতো ক্রিকেট ছাড়া অন্য কোন বিষয়ে কথা বলার ইচ্ছা নাই তার। ক্রিকেট ছাড়া অন্য কোন গল্পের আসরে তাকে দেখা যেত না। তবে আগের থেকে সে সাবলীল হয়েছে, যেটা মাঠেই পরিলক্ষিত হয়েছে। মাঠে তার বর্তমান আচরণের জন্য অস্ট্রেলিয়ার কিছু খেলোয়াড়রাও তাকে পছন্দ করতে শুরু করেছে,’ জানান শফিক।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ওয়ানডে নিয়ে ওয়াসিমের বিপরীতমুখী অবস্থানে সালমান

Read Next

নিজে খুশি হলেও ডি কক বলছেন ‘এটা অনেক বেশি’

Total
1
Share