গুরু বলছেন ছোটবেলা থেকেই সাহসী সোহান

উইন্ডিজদের বিপক্ষে ম্যাচের আগে সোহানরা অনুপ্রেরণা পাচ্ছেন যেভাবে
Vinkmag ad

জিম্বাবুয়ে সফরে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে বিশ্রাম দিয়ে নুরুল হাসান সোহানকে অধিনায়ক করে তারুণ্য নির্ভর টি-টোয়েন্টি দল পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ। এবারই প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করবেন সোহান। ঘরোয়া ক্রিকেটে অবশ্য তার নেতৃত্বের অভিজ্ঞতা বেশ ভালো। তাকে কাছ থেকে দেখা বিসিবি কোচ সোহেল ইসলাম জানিয়েছেন সোহানের মাঝে অধিনায়ক হিসেবে সাহসীকতার গুণ রয়েছে।

গতকাল (২২ জুলাই) রাজধানীর একটি হোটেলে রিয়াদের সাথে বৈঠক করে সোহানকে অধিনায়ক হিসেবে জিম্বাবুয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয় টিম ম্যানেজমেন্ট। এরপর সংবাদ মাধ্যমের সাথে আলাপে বৈঠকে উপস্থিত থাকা বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস ও টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন সোহানকে বেছে নেওয়ার ব্যাখ্যা দেন।

সোহানের একাগ্রতা, দলকে পেছন থেকে অনুপ্রাণিত করার সামর্থ্য আছে বলেই তাকে পছন্দের তালিকায় রাখা হয়। আপাতত জিম্বাবুয়ে সফরে দায়িত্ব দিয়ে আস্থার ব্যাপারটিও জানান দেওয়া হয়েছে।

এবার তাকে নিয়ে ইতিবাচক গল্প শোনালেন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) সর্বশেষ আসরে চ্যাম্পিয়ন শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের কোচ সোহেল ইসলাম। ইমরুল কায়েসের অধীনে সোহান খেলেছেন এই দলেই। ব্যাট হাতে দারুণ কিছু করে দলকে শিরোপা এনে দিতে বড় ভূমিকা ছিল সোহানের। দীর্ঘ দিন ধরে শেখ জামালে খেলা এই উইকেট রক্ষক ব্যাটার নেতৃত্বও দিয়েছেন এর আগে।

অধিনায়ক সোহানকে কাছ থেকে দেখা সোহেল ইসলাম বলছেন,

‘ও নিজে যে সিদ্ধান্ত নেয় ওটার প্রতি সে আত্মবিশ্বাসী থাকে। অধিনায়ক হিসেবে যেটা গুরুত্বপূর্ণ। সিদ্ধান্তগুলো সাহসের সাথে নেয়। যার কারণে কোনো পরিবর্তনের ক্ষেত্রে…বিশেষ করে যখন কোনো বোলারের হাতে বল তুলে দেয় ম্যাচের পরিস্থিতি অনুযায়ী কি চায় বোলারের কাছে সেটা ব্যাখ্যা করে। যেটা বোলারদের জন্য কাজটা সহজ করে।’

‘আর অধিনায়ক হিসেবে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে হবে। লাস্ট অধিনায়ক ইমরুল হলেও সোহান কিন্তু দীর্ঘদিন শেখ জামালে অধিনায়কত্ব করেছে। যতদিন খেলেছে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তগুলো সে দারুণভাবে সামলে নিয়েছে। অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে খেলাটা ওর মধ্যে আছে।’

‘চরিত্রের উপর নির্ভর করে। ও ছোটবেলা থেকে সাহসী, ওর মধ্যে জিনিসটা আছে। আমি মনে করি অধিনায়কত্বের জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ যে গাটস থাকা। এটা আছে এবং যেহেতু দীর্ঘ দিনের অভিজ্ঞতা অধিনায়কত্বের আমি বিশ্বাস করি ও সহজাত নেতৃত্বটাই দিবে।’

সোহান জিম্বাবুয়েতে নেতৃত্ব দিবেন সিনিয়র ক্রিকেটার বিহীন বাংলাদেশকে। রিয়াদের সাথে মুশফিকুর রহিমকেও যে দেওয়া হয়েছে বিশ্রাম। এদিকে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকেই অবসরে তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান এই সফর থেকে নিয়েছেন ছুটি।

নতুনদের নিয়ে সোহানের কাজটা চ্যালেঞ্জ না ভেবে সোহেল ইসলাম দেখছেন সুযোগ হিসেবে,

‘আমি এগুলো সবগুলো আসলে সুযোগ হিসেবে দেখতে চাই। আমি যখন নেই হিসেবে দেখবো তখন নেতিবাচক। আমি যদি ছেলেদের সুযোগ হিসেবে দেখি তাহলে এটা আসলে ইতিবাচক। আমার কাছে এটা ইতিবাচক বলেই মনে হচ্ছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

পরিবার সহ মুস্তাফিজের সাথে দেখা, দারুণ উচ্ছ্বসিত ব্রিটিশ হাই কমিশনার

Read Next

বাংলাদেশের সংস্কৃতি স্পিনারদের দায়িত্ব নিতে শেখায়

Total
7
Share