বিসিবির ৯ম এজিএম, এজেন্ডায় যা থাকছে

বিসিবির ৯ম এজিএম, এজেন্ডায় যা থাকছে
Vinkmag ad

আগামীকাল (১৯ জুলাই) রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে হবে বিসিবি’র (বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড) বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম)। এটি বিসিবির ৯ম এজিএম, বর্তমান মেয়াদের অবশ্য প্রথম।

বিসিবির সর্বশেষ বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০২১ সালের ২৬ আগস্ট, বিসিবি পরিচালকদের নির্বাচনকে সামনে রেখে।

নির্বাচনের পর নতুন বোর্ড পরিচালকরা দায়িত্ব নেবার পর প্রথম এজিএমে এজেন্ডা কি থাকছে? তা নিয়ে মিরপুরে আজ গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানিয়েছেন বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান তানভির আহমেদ টিটু।

টিটু বলেন, ‘এজিএমে আমাদের সারা বছরের যে নির্ধারিত কর্মকান্ড গুলো থাকে সেগুলোর এপ্রুভাল নেওয়া এবং এর আগে যে এজিএম হয়েছে সেগুলোর এপ্রুভাল নেওয়া। আমাদের আঞ্চলিক ক্রিকেট কাঠামো তৈরির একটা পরিকল্পনা আছে সেটার এপ্রুভাল করা। বাজেট আছে সেগুলো এপ্রুভ করা। সাধারণ পরিষদের সভায় যে ধরণের এজেন্ডা গুলো থাকে এগুলোই হচ্ছে মেইন। এর সাথে রিলেটেড ছোটখাটো কিছু ইস্যু আছে সেগুলো আমরা এজিএমে উপস্থাপন করব।’

‘সারা বছরের যেসব কর্মকান্ড থাকে, আমাদের যত বোর্ড মিটিং হয় এবং সে বোর্ড মিটিংয়ে যে সিদ্ধান্তগুলো হয় সেগুলো সাধারণ পরিষদে অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন থাকে, তো সেগুলোই আমরা সেখানে প্রেজেন্ট করি এবং সেখান থেকে তাদের এপ্রুভাল নিই।’

বিসিবির এই এজিএমে গঠনতন্ত্র সংশোধনের ব্যাপারও আসবে বলে জানিয়েছেন টিটু।

‘গঠনতন্ত্র সংশধোন নিয়ে নির্দিষ্ট করে আমি একটা যদি বলি, আমাদের আঞ্চলিক ক্রিকেট কাঠমো নিয়ে যে কথাগুলো হচ্ছিল এবং যেটা সময়ের দাবি হিসেবে যেটা বারবার উঠে আসছিল, তো আঞ্চলিক ক্রিকেট কাঠামোকে যদি আমাদের প্রতিষ্ঠিত করতে হয় প্রথমে আমাদের গঠনতন্ত্রে সংশোধনী নিয়ে আসতে হবে। কারণ আঞ্চলিক ক্রিকেট কাঠামোর কোনো ব্যাপারই আমাদের ক্রিকেট গঠনতন্ত্রে ছিল না। তো গঠনতন্ত্রে যদি পরিবর্তন না আনা হয় তাহলে নতুন কিছু পরফেকশন করাও সম্ভব না। যে কারণে সাধারণ পরিষদের অনুমোদন লাগে। এ কারণে কালকে আমাদের এজিএমে এই আঞ্চলিক ক্রিকেট কাঠামো গঠনের জন্য যে গঠনতন্ত্রে সংশোধনী সে প্রস্তাবটা কালকে আনা হবে।’

‘কাউন্সিলরশিপ অবশ্যই আলোচনায় থাকবে। কাউন্সিলর কারা হবে না হবে সেটা কিন্তু গঠনতন্ত্রে আছে। তো গঠনতন্ত্রের কোনো একটা সংশোধনী যদি আনতে হয়, সংশোধন-সংযোজন যাই আনি না কেনো সেটা আনতে হলে সাধারণ পরিষদের সভা লাগে। আমাদের কাউন্সিরলদের জন্য যে ফরম্যাটটা এখন করা আছে, সেখানে চেঞ্জ আনতে হলে এজিএমের এপ্রুভাল লাগবে। তো সেক্ষেত্রে আমাদের মাননীয় বোর্ড সভাপতি বলেছেন, যে প্রস্তাবটা রাখছে যারা আমাদের ক্লাব যারা সিসিডিএমের মাধ্যমে খেলায় অংশগ্রহণ করে তাদের সব ক্লাবগুলোকে কাউন্সিলরশিপ দেওয়ার জন্য বোর্ড সভাপতি প্রস্তাব করেছেন। সে প্রস্তাব কালকে উপস্থাপন করা, এগ্রি হলে সে অনুযায়ী কাজ হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জিম্বাবুয়ে নয়, দুবাইয়ের বার্তা পেয়েছেন সাইফউদ্দিন

Read Next

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিলেন লেন্ডল সিমন্স

Total
7
Share