অসাধ্য সাধন করে আইরিশদের স্বপ্নভঙ্গের কারণ ব্রেসওয়েল

অসাধ্য সাধন করে আইরিশদের স্বপ্নভঙ্গের কারণ ব্রেসওয়েল
Vinkmag ad

ডাবলিনের ম্যালাহাইডে নিউজিল্যান্ডকে বাগে পেয়েও হারাতে পারেনি আয়ারল্যান্ড। মাইকেল ব্রেসওয়েলের অসাধ্য সাধন করার দিনে স্বাগতিকরা হেরেছে ১ উইকেটের ব্যবধানে। ম্যাচের লম্বা সময় জয়ের পথে ছিল আইরিশরা, তবে ব্রেসওয়েল কাটা না সরাতে পেরে তাদের পাওয়া হয়নি কিউইদের প্রথমবার হারানোর স্বাদ। 

ডাবলিনের ম্যালাহাইডে এদিন টসে হেরে আগে ব্যাট করে আয়ারল্যান্ড। হ্যারি টেক্টরের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরিতে স্কোরবোর্ডে ঠিক ৩০০ রান জমা করে তারা।

অথচ আইরিশদের শুরুটা হয়েছিল বাজেই। ২য় ওভারেই সাজঘরে ফেরেন পল স্টারলিং। ৫ রান করে লকি ফার্গুসনের বলে বোল্ড হন তিনি। ৭ম ওভারে অধিনায়ক অ্যান্ডি বালবার্নি (৯) ম্যাট হেনরির শিকারে পরিণত হন দলের রান তখন ২৬।

সেখান থেকে অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন ও হ্যারি টেক্টর গড়েন ৬০ রানের জুটি। ৫৮ বলে ৪ চার ও ১ ছয়ে ৩৯ রান করা ম্যাকব্রাইনকে ফেরান ফার্গুসন।

ম্যাকব্রাইন ফেরার পর কুর্টিস ক্যাম্ফারকে নিয়ে টেক্টর গড়েন ৯৪ রানের জুটি। ৫ চার ও ১ ছয়ে ৪৭ বলে ৪৩ রান করেন ক্যাম্ফার। তাকে বোল্ড করেন গ্লেন ফিলিপস।

ক্যাম্ফার ফিফটি হাতছাড়া করলেও ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন টেক্টর। ৪৩.৫ ওভারের সময় ৬ষ্ঠ ব্যাটার হিসাবে তিনি যখন আউট হন দলের রান তখন ২৫১। তার নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে ১১৩ রান। ১১৭ বল স্থায়ী ইনিংসে তিনি হাঁকান ১৪ চার ও ৩ ছক্কা।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

লরকান টাকারের ২৬, জর্জ ডকরেলের ১৮ ও সিমি সিংয়ের ১৯ বলে ৩০ রানে ভর করে ৩০০ অব্দি পৌছে যায় আইরিশরা। কিউইদের পক্ষে ২ টি করে উইকেট নেন লকি ফার্গুসন, ব্লেয়ার টিকনার ও ইশ সোধি। ১ টি করে শিকার ম্যাট হেনরি ও গ্লেন ফিলিপসের।

জবাব দিতে নেমে ১৯ রানের মধ্যেই ২ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। ফিন অ্যালেন (৬) কে ফেরান মার্ক অ্যাডায়ার। ১ রান করা উইল ইয়াংকে ফেরান ক্রেইগ ইয়াং।

অধিনায়ক টঅম ল্যাথামকে নিয়ে বিপদ থেকে দলকে উদ্ধারের চেষ্টা চালান ওপেনার মার্টিন গাপটিল। এই জুটি থেকে আসে ৩৮ রান। ২৫ বলে ২৩ রান করা টম ল্যাথামকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে জুটি ভাঙেন কুর্টিস ক্যাম্ফার।

হেনরি নিকোলস (৭) টেকেননি বেশিক্ষণ। ফিফটি পুর্ণ করার পরপরই সাজঘরে ফেরেন মার্টিন গাপটিল। ৫ম ব্যাটার হিসাবে গাপটিল (৬১ বলে ৫১) যখন ফেরেন দলের রান তখন ১২০!

গ্লেন ফিলিপসের প্রতিরোধ থামে ৩৮ এ। তাকে ফেরান অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন। ১৫৩ রানেই ৬ উইকেট নেই কিউইদের।

সেখান থেকে ইশ সোধিকে নিয়ে ৬১ রানের জুটি গড়েন মাইকেল ব্রেসওয়েল। ২৫ রান করে ইশ সোধি রান আউট হলে ভাঙে জুটি।

৯ এ নামা ম্যাট হেনরি ৮ বল খেলে কোন রান না করতে পারলেও দলের চাপ বাড়ান। লকি ফার্গুসনের সঙ্গে ৩৮ বলে ৬৪ রানের জুটি গড়ে আইরিশদের স্বপ্নভঙ্গের ভয় দেখান মাইকেল ব্রেসওয়েল। যেখানে ফার্গুসনের অবদান কেবল ১৩ বলে ৮। এই জুটিতে ২৫ বলে ৫২* রান আসে ব্রেসওয়েলের ব্যাটে।

অসাধ্য সাধন করার চেষ্টায় মাইকেল ব্রেসওয়েল করেন নিজের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি।

শেষ ওভারে নিউজিল্যান্ডের দরকার ছিল ২০ রান। ক্রেইগ ইয়াংয়ের করা প্রথম দুই বলে টানা দুই চার মারেন ব্রেসওয়েল। এরপর ডিপ মিডউইকেট দিয়ে বিশাল এক ছক্কা।

৩ বলে দরকার ছয় রান। চতুর্থ বলে ব্রেসওয়েলের আরও এক চার। দুই বলে যখন মাত্র ২ দরকার তখন ৫ম বলে লং ওনের ওপর বিশাল এক ছক্কা হাঁকিয়ে আনন্দে মাতেন ব্রেসওয়েল। স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়ে কিউইরা।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

১ বল ও ১ উইকেট হাতে রেখে জয় পায় নিউজিল্যান্ড। ৮২ বলে ১০ চার ও ৭ ছক্কায় ১২৭ রান করে অপরাজিত থাকেন ব্রেসওয়েল।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

আয়ারল্যান্ড ৩০০/৯ (৫০), স্টারলিং ৫, বালবার্নি ৯, ম্যাকব্রাইন ৩৯, টেক্টর ১১৩, ক্যাম্ফার ৪৩, টাকার ২৬, ডকরেল ১৮, অ্যাডায়ার ০, সিমি ৩০, ইয়াং ০*; হেনরি ১০-১-৬২-১, ফার্গুসন ১০-১-৪৪-২, টিকনার ১০-০-৭১-২, সোধি ১০-০-৬২-২, ফিলিপস ২-০-৯-১

নিউজিল্যান্ড ৩০৫/৯ (৪৯.৫), গাপটিল ৫১, অ্যালেন ৬, ইয়াং ১, ল্যাথাম ২৩, নিকোলস ৭, ফিলিপস ৩৮, ব্রেসওয়েল ১২৭*, সোধি ২৫, হেনরি ০, ফার্গুসন ৮, টিকনার ০*; অ্যাডায়ার ৭-১-৪৩-২, ইয়াং ৯.৫-০-৭৮-১, লিটল ৬-০-৪৬-১, ক্যাম্ফার ১০-০-৪৯-৩, ম্যাকব্রাইন ৭-০-৩৩-১

ফলাফলঃ নিউজিল্যান্ড ১ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ মাইকেল ব্রেসওয়েল (নিউজিল্যান্ড)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

গায়ানায় আগে বোলিংয়ে বাংলাদেশ, কমেছে ওভার

Read Next

মিরাজ-শরিফুলদের সামনে কোণঠাসা ওয়েস্ট ইন্ডিজ

Total
1
Share