‘বাজবল’ ইস্যুতে স্মিথের করা মন্তব্যের কড়া জবাব দিলেন ম্যাককুলাম

'বাজবল' ইস্যুতে স্মিথের করা মন্তব্যের কড়া জবাব দিলেন ম্যাককুলাম
Vinkmag ad

বাজবল ইস্যুতে স্টিভ স্মিথের করা মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে, ইংল্যান্ডের প্রধান কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম বাজবলকে একটি ‘ছোট শব্দ’ বলে অভিহিত করেছেন। স্মিথ বলেছিলেন যে কামিন্স, হ্যাজলউড এবং স্টার্কের সামনে বাজবল প্রক্রিয়া চালিয়ে যেতে পারে কিনা তা দেখতে আকর্ষণীয় হবে।

ইংল্যান্ড শেষ দুই টেস্ট সিরিজে নিউজিল্যান্ডকে ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করার পর, ভারতকে ৭ উইকেটে হারায়। চারটি ম্যাচেই বেন স্টোকসের নেতৃত্বাধীন দল ২৭০ রানের বেশি তাড়া করেছিল এবং ভারতের বিরুদ্ধে সফলভাবে ৩৭৮ রানের লক্ষ্যে পৌঁছায়।

স্টোকস অধিনায়কত্বের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে, ইংল্যান্ড মাঠে আক্রমণাত্মক ব্র্যান্ড ক্রিকেট খেলেছে এবং তাঁদের বীরত্বের জন্য অনেকেই তাঁদের প্রশংসা করেছে। শেষ চার ম্যাচে যখনই মনে হচ্ছিল ইংল্যান্ড সমস্যায় পড়েছে, তখনই কেউ পাল্টা আক্রমণের ইনিংস খেলে দলকে সমস্যা থেকে বাঁচিয়েছে।

কিছুদিন আগেই ইংল্যান্ডের কোচের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে নিউজিল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককুলামকে। ম্যাককুলামের ডাক নাম বাজ এবং তাঁর কৌশলের নাম হল বাজবল। যিনি ইংল্যান্ডের টেস্ট ক্রিকেট সংস্কৃতিকে পুরোপুরি বদলে দিতে বদ্ধপরিকর।

তবে অজি তারকা ব্যাটার স্টিভ স্মিথ হুমকির ইঙ্গিত দিয়ে বললেন, অস্ট্রেলিয়ার পেসারদের সামনে ইংল্যান্ডের ‘বাজবল’ কতটা কার্যকর হবে তা দেখতে তিনি মুখিয়ে আছেন।

‘আমি ওদের খেলা কিছুটা দেখেছি। খুব উত্তেজনাময় ক্রিকেট। অ্যালেক্স লিসের মতো ক্রিকেটারও ক্রিজ থেকে বেরিয়ে এসে মারতে যায়। দেখতে ভাল লাগে। আমি দেখতে এটা কত দিন টেকে? পিচে যদি ঘাস থাকে আর সেখানে জস হ্যাজেলউড, প্যাট কামিন্স এবং মিচেল স্টার্ক একসঙ্গে আক্রমণ করে তখনও এরকম খেলবে তো? দেখব তখন কী হয়। সেটা দেখার অপেক্ষায় আছি আমি।’

সেন ডব্লিউএ ব্রেকফাস্টে অ্যাডাম গিলক্রিস্টের সাথে কথা বলার সময় ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম স্বীকার করেছেন যে ‘বাজবল’ কী তা তার কোন ধারণা নেই তবে দলের পারফরম্যান্সে তিনি খুশি। তিনি আরও বলেছিলেন যে তার দল সেই ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি বজায় রাখবে। এবং বাজবলকে “ছোট শব্দ” বলেছেন এবং ইংল্যান্ডের পারফরম্যান্সকে সম্মান জানিয়েছেন।

‘না, বাজবল কী তা আমার কোনো ধারণা নেই, একটু সময় নিয়ে কিন্তু ছেলেরা অসাধারণ হয়েছে। আমি নিশ্চিত যে আমাদের ছেলেরা চেষ্টা করবে এবং ইতিবাচক পদ্ধতি বজায় রাখবে। আমি মনে করি আসল চাবিকাঠি কেবল ক্র্যাশ এবং বার্ন নয় যদি ছেলেরা কীভাবে এটি করেছে সে পদ্ধতির দিকে তাকাই।’

‘এ কারণেই আমি সেই ছোট শব্দটি পছন্দ করি না যা লোকেরা ছুঁড়ে ফেলেছে, কারণ আসলে বেশ কিছুটা চিন্তাভাবনা রয়েছে যা ছেলেরা কীভাবে তাদের পারফরম্যান্স তৈরি করে এবং কখন তারা বোলারদের উপর চাপ দেয় এবং কোন বোলারদের চাপ দেয়। এমনও সময় আছে যেখানে তারা বোলারদের চাপকে সুন্দরভাবে খেলেছে।’

স্মিথের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ম্যাককুলাম বলেছেন যে অস্ট্রেলিয়ান বোলারদের মুখোমুখি হওয়া চ্যালেঞ্জিং।

‘আমি সেই (মন্তব্যগুলি) ফিডগুলোতে এই বাজবল কথাটা পড়লাম। এটা একদম ঠিক, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আমরা খেলতে গেলে এটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ হতে যাচ্ছে। এটি আমাদের পদ্ধতিকে চ্যালেঞ্জ করতে যাচ্ছে এবং আমরা তা টপকে যেতে সক্ষম এবং আমি মনে করি এটি বেশ উত্তেজনাপূর্ণ। আমি মনে করি নিজেকে পুনরুজ্জীবিত করা এবং তারপরে সবচেয়ে সেরাদের মুখোমুখি হওয়া।’

‘আমি বিশ্বাস করি নিউজিল্যান্ড এবং ভারতও খুব ভাল ক্রিকেট দল। অ্যাশেজের ইতিহাস এবং সেখানে বিদ্যমান প্রতিদ্বন্দ্বিতার কারণে অস্ট্রেলিয়া একটি ভিন্ন ধরনের চ্যালেঞ্জ। তবে আমি বিশ্বাস করি ছেলেরা চেষ্টা করবে এবং ইতিবাচক খেলবে।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

মাত্র দুই বলের প্রস্তুতিতে মাঠে নামছেন তামিম

Read Next

‘আরও ২-৩ টা অলরাউন্ডার থাকলে সাকিবকে নিয়ে এতো প্রশ্ন হত না’

Total
29
Share