‘এটা কি টেকসই?’: ‘বাজবল’ নিয়ে কৌতুহলী স্মিথ

'এটা কি টেকসই?': 'বাজবল' নিয়ে কৌতুহলী স্মিথ
Vinkmag ad

টেস্ট ক্রিকেটে সাম্প্রতিক সময়ে ইংল্যান্ডের দাপুটে পারফরম্যান্সের সময়ে ক্রিকেট বিশ্বে ঝড় তুলেছে একটি শব্দ- ‘বাজবল’ (BazBall)। কি এই বাজবল, কেনই বা এই শব্দ ব্যবহৃত হচ্ছে?

বলা হচ্ছে বাজবল হচ্ছে এমন এক ফিলোসফি যেটা ইংল্যান্ড টেস্ট দলের কোচ হবার পর সাবেক কিউই ব্যাটার ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম ইংলিশ দলে যোগ করেছেন। যেখানে ক্রিকেটাররা ম্যাচের অবস্থা যেমনই হোক আক্রমণাত্মক ও সাহসী পন্থায় খেলে।

বুধবার গলে অস্ট্রেলিয়ার নেট সেশনেও উঠে আসে বাজবল শব্দটি। স্টিভ স্মিথ একটা আক্রমণাত্মক শট খেলার পর পাশ থেকে সতীর্থদের টিপ্পনি (বাজবল)!

পরে এই ইস্যুতে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেন অজিদের সাবেক অধিনায়ক। তিনি জানান এই তত্ব নিয়ে কৌতুহলী তিনি, তবে এটার স্থায়ীত্ব কেমন হবে তা নিয়ে সন্দিহান তিনি।

স্মিথ বলেন, ‘আমি এটার (বাজবল) কিছুটা দেখেছি। এটা নিশ্চিতভাবেই এন্টারটেইনিং। অ্যালেক্স লিসের মত ক্রিকেটারও ইনিংসের শুরুতে ক্রিজ ছেড়ে এগিয়ে এসে শট খেলছে, এটা এক্সাইটিং। আমি কেবল কৌতুহলী এটা দেখতে যে এটা কতদিন টেকে, এটা আদৌ টেকসই কিনা।’

‘ধরেন আপনি এগিয়ে আসলেন এমন উইকেটে যেখানে ঘাস আছে। এবং জশ হ্যাজেলউড, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্করা আপনার দিকে তেড়ে আসলেন। তখনও কি একই রকম হবে? আমরা দেখব কেমন হয়। আমি এটা (বাজবল) নিয়ে কৌতুহলী, দেখা যাবে কি হয়।’

ইংল্যান্ড খুব বেশি রান রেট নিয়ে ব্যাট করেছে। তবে স্মিথ বলছেন অস্ট্রেলিয়াও সাম্প্রতিক কিছু ম্যাচে বেশি রান রেট নিয়ে ব্যাট করেছে।

‘হোবার্টে পিংক বল টেস্ট, যেখানে ট্রাভিস হেড ও মারনাস লাবুশেইন আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করে। উইকেটে অনেক কিছু হচ্ছিল, তাই ব্যাটাররা বোলারদের ওপর চাপ ফিরিয়ে দিচ্ছিল। এই পন্থা ঐ ম্যাচে কাজে লেগেছে, তবে সেটা কি বারবার কাজে লাগবে? আমি জানি না।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে টাইগারদের জন্য নেই আলাদা নির্দেশনা

Read Next

ব্যর্থতাকে ভয় পান না বেয়ারস্টো, নজর প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলাতে

Total
12
Share