পাওয়ার হিটিং শেখাতে নিজেই যথেষ্ট বলছেন সিডন্স

পাওয়ার হিটিং শেখাতে নিজেই যথেষ্ট বলছেন সিডন্স
Vinkmag ad

বছরের শেষদিকে মাঠে গড়াচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তার আগে আছে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এশিয়া কাপ। দুই গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্ট সামনে রেখে দল গোছানোর কাজটা বাংলাদেশ করতে চায় ওয়েস্ট ইন্ডিজে সিরিজ থেকেই। এদিকে বিশ্বজুড়ে চলছে পাওয়ার হিটিং বিপ্লব, দলগুলো এ বিষয়ে দক্ষ আলাদা কোচ নিয়োগের পথেও হাঁটছে। টাইগার ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্স অবশ্য নিজেই সেটা পারবেন বলে জানান।

টি-টোয়েন্টির মতো ছোট ফরম্যাটে পেশী শক্তির ব্যবহার করতে হয় দারুণভাবে। তবে শরীরি গড়ন আর দক্ষতার দিক বিবেচনায় নিলে এই জায়গায় বেশ পিছিয়ে বাংলাদেশের ব্যাটাররা। ফলে তাদের ভিন্ন পন্থায় তৈরি করা জরুরী। দিনের পর দিন ব্যাটিং ব্যর্থতায় ভরাডুবির সাক্ষী হতে হচ্ছে।

মাঝে পাওয়ার হিটিং কোচ খোঁজার মিশনেও নেমেছিল বাংলাদেশ। তবে নানা কার্যক্রমের আড়ালে হারিয়ে গেছে সে আলোচনা। বিশেষ করে ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্সেই যেন সব সমস্যার সমাধা খুঁজে নিয়েছে দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এই অস্ট্রেলিয়ান নিজেও দাবি করছেন পাওয়ার হিটিং শেখানো কাজেও তিনি পটু।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটি আগামী ২ জুলাই ডমিনিকায় মাঠে গড়াবে। তার আগে গতকাল (২৯ জুন) সেন্ট লুসিয়ায় অনুশীলন করে বাংলাদেশ দল। অনুশীলন শেষে এক ভিডিও বার্তায় সিডন্স কথা বলেন পাওয়ার হিটিং নিয়ে।

‘আমি মনে করি, আমার সেই সামর্থ্য রয়েছে (পাওয়ার হিটিং নিয়ে কাজ করার)। কিন্তু এখানে আসার পর মাত্র পাঁচটি ট্রেনিং সেশন হয়েছে। এর বাইরে সব ম্যাচ এবং ট্রাভেলিং। পাওয়ার হিটিংয়ের স্কিল আয়ত্ব করতে অনেক বেশি ট্রেনিং সেশন প্রয়োজন। তো আমার এটি প্রয়োজন। ট্রেনিংয়ে আরও বেশি সময় দিয়ে দেখতে হবে খেলোয়াড়দের স্কিলে পরিবর্তন আনা যায় কি না।’

‘এই মুহূর্তে আমরা ম্যাচ খেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। এ অবস্থায় আপনি অন্য কিছু চিন্তা করতে পারবেন না। খেলোয়াড়দের জন্য নতুন টেকনিক রপ্ত করে একটা টেস্ট ম্যাচ খেলতে নামা খুবই কঠিন। এসব স্কিল ডেভেলপ করার জন্য সময় প্রয়োজন।’

এদিকে সামনে ইভেন্টগুলো মাথায় রেখে দল গুছানোর ব্যাপারে সিডন্স যোগ করেন, ‘আমাদের টি-টোয়েন্টি দলে বেশ কয়েকজন নতুন খেলোয়াড়। আমরা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার জন্য বা বিশ্বকাপে ভালো খেলার জন্য একটি ভালো টি-টোয়েন্টি দল গড়ার চেষ্টা করছি। এছাড়া এশিয়া কাপও রয়েছে। এখানে তিনটি ম্যাচ, এশিয়া কাপেও কিছু ম্যাচ পাবো। বিশ্বকাপের জন্য আমরা যথাযথ প্রস্তুত হতে পারবো।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

উইন্ডিজদের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে মিরাজ-তাসকিন

Read Next

বাংলাদেশ ব্যাটারদের বিকল্প পথ দেখাচ্ছেন সিডন্স

Total
1
Share