ওয়েস্ট ইন্ডিজেই এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে চায় বাংলাদেশ

তাসকিন-লিটনদের ক্যারিয়ার সেরা রেটিং, সেরা দশে সাকিব
Vinkmag ad

টেস্ট সিরিজে হোয়াইট ওয়াশড হওয়ার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে মাঠে নামার অপেক্ষায় বাংলাদেশ। সফরে আছে ওয়ানডে সিরিজও। তবে সামনে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপ আছে বলে প্রস্তুতির দারুণ সুযোগ দেখেন পেসার তাসকিন আহমেদ।

চোটের কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজে টেস্ট খেলা হয়নি তাসকিনের। অনিশ্চিত ছিলেন টি-টোয়েন্টিতেও। তবে শেষ মুহূর্তে ফিটনেস পরীক্ষায় উতরে গত ২৪ জুন দেশে ছাড়েন এই পেসার, খেলবেন টি-টোয়েন্টিও। ২ জুলাই ডমিনিকায় মাঠে গড়াবে প্রথম টি-টোয়েন্টি।

গতকাল (২৮ জুন) সেন্ট লুসিয়ায় অনুশীলন শেষে এক ভিডিও বার্তায় তাসকিন সিরিজ সামনে রেখেক নিজেদের ভাবনা জানান, ‘দুর্ভাগ্যবশত শেষ (টেস্ট) যে সিরিজটা, আমাদের ভালো যায়নি। এখন সামনে আমাদের একটা টি-টোয়েন্টি সিরিজ আছে, এর পরেই একটা ওয়ানডে সিরিজ। তো যে ভুলাগুলো হয়েছে সেগুলো নিয়ে ভবিষ্যতে কাজ করতে হবে।’

‘এখন বসে থাকা যাবে না কারণ, সামনে অন্য ফরম্যাটের খেলা আছে। ‌তো অবশ্যই আমরা সামনে যে টি-টোয়েন্টি সিরিজ আছে সেদিকেই তাকিয়ে, টি-টোয়েন্টি নিয়েই পরিকল্পনা করব আমরা সবাই। চাইব ভালো করতে। দেশকে জয় উপহার দিতে।’

টি-টোয়েন্টিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দারুণ চ্যালেঞ্জিং দল। দুইবারের বিশ্বকাপ জয়ীদের বিপক্ষে অবশ্য বাংলাদেশের রেকর্ড মন্দ নয়। ১৩ বারের মুখোমুখি লড়াইয়ে বাংলাদেশের ৫ জয়ের বিপরীতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জিতেছে ৭ ম্যাচে।

২০১৮ সালে সর্বশেষে ক্যারিবিয়ান সফরে ২-০ ব্যবধানে জিতেছে টাইগাররা। তাসকিন প্রতিপক্ষ না ভেবে প্রতিটি ম্যাচকেই দেখছেন গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে। এ দফায়ও জানালেন লক্ষ্য বিশ্বকাপের জন্য সেরা প্রস্তুতি নেওয়া।

তার মতে, ‘প্রত্যেকটি ম্যাচ বা সিরিজ গুরুত্বপূর্ণ, যেহেতু সামনে এশিয়া কাপ আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে। যেহেতু বড় ইভেন্টের খেলা আছে সেহতু প্রত্যেকটা ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। অবশ্যই জয়ের জন্যই খেলব।’

‘আমরা যেন দীর্ঘমেয়াদী সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারি, নিজেদের উন্নতি করতে পারি, আত্মবিশ্বাসগুলো বেশি করে নিতে পারি। এটাই লক্ষ্য থাকবে যে, এখানে খেলে আমরা সামনে নিজেদেরকে আরো ভালোভাবে প্রস্তুতি করতে পারি বিশ্বকাপের জন্য।’

এদিকে তাসকিনকে দেশের পেস বিপ্লবের পথে অন্যতম সেনানী হিসেবে উল্লেখ করেছেন সাকিব আল হাসান। সাকিবের কাছ থেকে পাওয়া প্রশংসায় অনুপ্রাণিত হয়ে নিজের সেরাটা দিতে মুখিয়ে এই পেসার।

তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমি অনেক অনুপ্রাণিত হয়েছি এবং আমার অনেক ভালো লেগেছিল সাকিব ভাইয়ের ওই কথাগুলো শুনে। এটা আমাকে বাড়তি অনুপ্রেরণা দিচ্ছে যে সামনে আমাকে আরো ভালো করতে হবে। প্রত্যেকটা সিরিজই চ্যালেঞ্জ, প্রত্যেকটা ম্যাচ নতুন করে শুরু হয়। তো চাইব আমার যে আমার বেসিক প্রক্রিয়া সেটা ঠিক রেখে সামনে এগিয়ে যেতে।’

‘নিজের আরো বেশি ইমপ্রুভ করতে যেসব দুর্বলতা আছে, আসলে এখনো অনেক দুর্বলতা আছে, যেসব জায়গায় ইমপ্রুভমেন্ট এর জায়গা আছে সেগুলো আরো পরিপূর্ণ বোলার হিসেবে তৈরি করতে পারি সামনের দিনে এবং দলকে বেশি বেশি জয় উপহার দিতে পারে এটা লক্ষ্য থাকবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দলে যোগ দিয়েই ডোনাল্ডের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নিলেন তাসকিন

Read Next

রানবন্যার ম্যাচে ভারতকে ভড়কে দিয়েছিল আয়ারল্যান্ড

Total
17
Share