যে রাতে আলোর ঝলকানির সাথে পরিচিত হল আড়ালে থাকা ক্রিকেটাররা

যে রাতে আলোর ঝলকানির সাথে পরিচিত হল আড়ালে থাকা ক্রিকেটাররা
Vinkmag ad

ঢাকার বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাবে গতরাতে (২৬জুন) এক ঝাঁক ক্রিকেটারের মিলন মেলা হয়। জাতীয় দল কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত মুখ নন, আড়ালে পড়ে থাকা পারফর্মাদের এ দিন আলোর ঝলকানির সাথে পরিচয় করিয়ে দেয় ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম)।

যেখানে দেখা মেলে ৪২ ছুঁইছুঁই বয়সী সালাউদ্দিন পাপ্পুর। না, তিনি কোচ নন, একজন দুর্দান্ত ব্যাটার। তবে বাকি সবাই অবশ্য তার অর্ধেক বয়সী ক্রিকেটার। যারা ঢাকা প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিভাগে সর্বশেষ মৌসুমে ব্যাটে-বলে সেরা পারফর্মার।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) অ্যাওয়ার্ড নাইট আয়োজন হয় না ১৫ বছর ধরে। নিকট ভবিষ্যতেও হচ্ছে কীনা এ নিয়ে আলোচনা হয়ে আসছে কেবল টেবিলেই। তবে এর মাঝেই সিসিডিএম হাতে নিল দারুণ এক উদ্যোগ। প্রথম থেকে তৃতীয় বিভাগে ব্যাটিং, বোলিং ও অলরাউন্ডার ক্যাটাগরিতে সেরা পারফর্মারদের পুরষ্কৃত করতে আয়োজন করলো সিসিডিএম অ্যাওয়ার্ড নাইট।

সর্বোচ্চ রান, উইকেট সংগ্রাহক ও অলরাউন্ডারকে উপহার দেওয়া হয় ভালো মানের ক্রিকেট সরঞ্জাম। যা বিসিবি সভাপতি নিজ হাতে তুলে দেন সালাউদ্দিন পাপ্পু, মোহাম্মদ সাব্বির হোসেন, সজীব মিয়া, সোহেল রানাদের।

তাদের পারফরম্যান্স ভবিষ্যতের জন্য স্বপ্ন দেখাতে বাধ্য। ঢাকা প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে র‍্যাপিড ফাউন্ডেশনের হয়ে ৯০৫ রান সাব্বিরের ব্যাটে। বল হাতে একই দলের বাঁহাতি পেসার সোহেল রানার শিকার ৩৮ উইকেট।

দ্বিতীয় বিভাগে আম্বার স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে সালাউদ্দিন পাপ্পুর রান ৭৫২। ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের ডানহাতি পেসার মোহাম্মদ হারুনেরও শিকার ৩৮ উইকেট। দ্বিতীয় বিভাগে সেরা অলরাউন্ডার গাজী টায়ারস ক্রিকেটার্সের সজীব মিয়া। ব্যাট হাতে ৪৩০ রানের পাশাপাশি অফ স্পিনে উইকেট নেন ২৭ টি।

তৃতীয় বিভাগে উদিতি ক্লাবের হয়ে সাগর ইসলাম আপনের রান ৭৯৪। বল হাতে একই ক্লাবের ডানহাতি পেসার শাকির আহমেদের উইকেটও ৩৮ টি।

দেশের ক্রিকেটে প্রথম বিভাগ থেকে তৃতীয় বিভাগে পারফর্মারদের এভাবে উৎসাহী করার নজির খুব একটা দেখা মেলে না। বিসিবি সভাপতি ছাড়াও এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিসিডিএম চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন চৌধুরী, বিসিবি পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক, বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন, জাতীয় দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন।

এই অনুষ্ঠানে সিসিডিএমে অধীনে ২০০৭ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ১০ বছরে বিভিন্ন ক্লাবের আটকে থাকা ৮০ টি ট্রফিও বুঝিয়ে দেওয়া হয়। পাশাপাশি ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) সর্বশেষ মৌসুমে (২০২১-২২) শিরোপা জয়ী শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকেও ট্রফি প্রদান করা হয়।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সেন্ট লুসিয়ায় বাংলাদেশের ইনিংস পরাজয়ের শঙ্কা

Read Next

বিশ্বকাপের আগে নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের ত্রিদেশীয় সিরিজ

Total
1
Share