আইকনিক ক্রিকেটার ও গৌরবের ইতিহাসেই পিছিয়ে বাংলাদেশ

সব থেকেও কিছুই নাই এর দিন রাসেল ডোমিঙ্গোর
Vinkmag ad

টেস্টের বর্তমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল কোনভাবেই তাদের অতীত ইতিহাসকে মনে করায় না। শক্তিমত্তায় বাংলাদেশের কাছাকাছি মানের দলটির প্রায় শত বছরের টেস্ট ক্রিকেটের গৌরব। অর্জনের খাতায় আছে বহু কিংবদন্তীর নাম। আর এ কারণেই ঘুরের দাঁড়ানোর পথটা ভালোই জানে বর্তমান দলের কাইল মায়ের্স, ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটরা। এমনটাই মনে করেন টাইগার কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো।

১৯২৮ সালে টেস্ট ক্রিকেটে যাত্রা ওয়েস্ট ইন্ডিজের, খেলে ফেলেছে প্রায় ৬০০ এর কাছাকছি টেস্ট। যে পথে বিশ্ব ক্রিকেট দেখেছে স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস, স্যার গ্যারি সোবার্স, গর্ডন গ্রিনিজ, ক্লাইভ লয়েড, ডেসমন্ড হেইন্স, ব্রায়ান লারা, জোয়েল গার্নার, মাইকেল হোল্ডিং, কোর্টনি ওয়ালশ, কার্টলি অ্যাম্ব্রোস, রিচি রিচার্ডসন, অ্যান্ডি রবার্টসদের মতো কিংবদন্তীদের।

অন্যদিকে ২০০০ সালে টেস্ট ক্রিকেটে নাম লেখানো বাংলাদেশ দুই দশকেও পারেনি একটা সংস্কৃতি গড়ে তুলতে। এখনো হাঁটি হাঁটি পায়ে এগিয়ে চলা শিশুর মতো ক্রমাগত হোঁচট খেয়ে চলছে টাইগাররা। দুই সময়ের পার্থক্য থাকলেও ২২ বছর কাটিয়ে দিয়েও প্রত্যাশিত অবস্থানে যেতে পারেনি বাংলাদেশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চলমান টেস্ট সিরিজে অ্যান্টিগায় হেরেছে ৭ উইকেটে। সেন্ট লুসিয়ায় দ্বিতীয় দিন শেষেও পিছিয়ে আছে বেশ। বাংলাদেশের ২৩৪ এর জবাবে স্বাগতিকরা ৫ উইকেটে ৩৪০ রান তুলে ফেলেছে। ১৩২ রানে ৪ উইকেট হারালেও কাইল মায়ের্সের দারুণ এক সেঞ্চুরিতে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ক্যারিবিয়ানরা।

বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো সংবাদ সম্মেলনে দুই দলের টেস্ট সংস্কৃতি নিয়ে বলেন, ‘পুরোপুরি বলা কঠিন (বাংলাদেশের ঘাটতি কোথায়)… টেস্ট ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দীর্ঘ ইতিহাস ও সংস্কৃতি আছে। আশি-নব্বইয়ের দশকে তারা বিশ্বের সেরা টেস্ট দল ছিল। তারা তাই জানে, টেস্ট ম্যাচ কীভাবে খেলতে হয়। ওদের আইকনিক অনেক ক্রিকেটার আছে, যারা টেস্ট ম্যাচে ভালো করেছেন। আমাদের টেস্ট ম্যাচ সংস্কৃতি এখনও সেখানেই নেই, যেখানে থাকা উচিত।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ দেখাচ্ছে কেন তারা আমাদের চেয়ে বড় দল’

Read Next

মায়ের্সের পথে হাটুক বাংলাদেশের কেউ চাওয়া ডোমিঙ্গোর

Total
1
Share