আইসিসি প্লেয়ার অব দ্য মান্থের শর্ট লিস্টে মুশফিকের সঙ্গে দুই লঙ্কান

মুশফিকুর রহিম
Vinkmag ad

দ্য ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের ‘আইসিসি প্লেয়ার অব দ্য মান্থ’ পুরুষ বিভাগে মে মাসের মনোনয়নের শর্ট লিস্টে মুশফিকুর রহিম, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও আসিথা ফার্নান্দোর নাম। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার সবশেষ টেস্ট সিরিজে অনবদ্য পারফর্ম করে তাঁরা এবার আছেন সেরা হওয়ার দৌড়ে।

২০২২ সালের মে মাসের জন্য মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করেছে আইসিসি। ঘরের মাঠে মে মাসে দারুণ পারফরম্যান্স ও অর্জন দিয়েই পুরুষ বিভাগের মনোনয়ন পেয়ে যান মুশফিকুর রহিম। সঙ্গে জায়গা পেয়েছেন আরও দুই লঙ্কান।

মে মাসের সেরাদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পাওয়াদের প্রসঙ্গে আইসিসি বলেছে,

বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার সিরিজ জয়ে অভিজ্ঞ অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস দেখিয়েছেন ব্যাটিং নৈপুণ্য। তিনি সিরিজে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হিসেবে দুই টেস্টে ৩৪৪ রান করেন যার মধ্যে ছিল দুটি সেঞ্চুরি। প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে, ডাবল সেঞ্চুরির কাছাকাছি এসে বিদায় নেন ১৯৯ এ। দ্বিতীয় টেস্টে তাঁর ব্যাটে আরেকটি সেঞ্চুরি। ব্যাট হাতে রানের ফুলঝুরি ছুটিয়ে এগিয়ে ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়েও। ৬ ধাপ এগিয়ে জায়গা করেছেন ১৫ নম্বরে।

দল পরাজিত হলেও মুশফিকুর রহিমের জন্য এটি একটি স্মরণীয় সিরিজ ছিল। তিনি ৩০৩ রান করে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হিসেবে সিরিজ শেষ করেন এবং ম্যাথুজের মতো তাঁর দখলেও দুটি সেঞ্চুরি ছিল। উদ্বোধনী টেস্টে, তিনি প্রথম বাংলাদেশি খেলোয়াড় হিসেবে টেস্টে ৫০০০ রান করেন।

প্রথম টেস্টে তাঁর ১০৫ রানের ইনিংস বাংলাদেশকে ৬৮ রানের লিড এনে দিতে সাহায্য করে। সিরিজে তাঁর দ্বিতীয় টন আরও কঠিন পরিস্থিতিতে এসেছিল। বাংলাদেশের স্কোর ১৬/৩ যখন মুশফিক ব্যাট করতে আসেন এবং শীঘ্রই স্কোরবোর্ড ২৪/৫ হয়ে যায়। কিন্তু তখনই তিনি আর লিটন দাস একসঙ্গে লঙ্কান বোলারদের উপর পালটা লড়াই চালান। দু’জনেই সেঞ্চুরি করেন এবং ষষ্ঠ উইকেটে ২৭২ রানের জুটি গড়ে দলকে রক্ষা করেন। দুর্ভাগ্যবশত, মুশফিকের ১৭৫* রানের অবিশ্বাস্য ইনিংসও দলকে জয় এনে দিতে পারেনি। তবে সিরিজ শেষে তিনি আইসিসি টেস্ট ব্যাটার্সের র‌্যাঙ্কিংয়ে আট ধাপ এগিয়ে ১৭ নম্বরে উঠে এসেছেন।

বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে বল হাতে লঙ্কান আসিথা ফার্নান্দোই ছিলেন সেরা। চট্টগ্রামে প্রথম টেস্টে বদলি হিসেবে নেমে এক ইনিংসে তুলে নেন তিন উইকেট। আর ঢাকা টেস্টে দখলে নিয়েছেন মোট ১০ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে কেবল ৫১ রান খরচায় ৬ উইকেট শিকার করে শ্রীলঙ্কার জয়ে রেখেছেন বড় অবদান। পেয়ে যান ম্যাচ সেরার পুরষ্কারও।

এছাড়া নারী বিভাগের মনোনয়ন তালিকায় রয়েছেন- তুবা হাসান (পাকিস্তান), বিসমাহ মারুফ (পাকিস্তান) ও ত্রিনিটি স্মিথ (জার্সি)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি, অস্ট্রেলিয়ার সেরা একাদশ ঘোষণা

Read Next

শরিফুল-নাইমকে যুক্ত করা হচ্ছে বাংলাদেশ টাইগার্সে

Total
10
Share