মিরপুরে বড় হার সঙ্গী হল বাংলাদেশের

মিরপুরে পরাজয়ের পথে বাংলাদেশ
Vinkmag ad

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ২৩ মে থেকে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ২য় টেস্ট। এই টেস্টের পঞ্চম ও শেষ দিনের খুটিনাটি আপডেট এই লাইভ রিপোর্টে।

১৬৯ রানে গুটিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কাকে জয়ের জন্য কেবল ২৯ রানের লক্ষ্য দিতে পারে। যা তুলতে মাত্র ৩ ওভার নেয় সফরকারীরা। ৯ বলে ২১ রান করে অপরাজিত থাকেন ওশাদা ফার্নান্দো, ৭ রান করে দিমুথ করুনারত্নে। ১০ উইকেটে ম্যাচ জেতার সাথে ১-০ তে সিরিজও জিতল শ্রীলঙ্কা। 

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসে ৩৬৫/১০ (১১৬.২), জয় ০, তামিম ০, শান্ত ৮, মুমিনুল ৯, মুশফিক ১৭৫*, সাকিব ০, লিটন ১৪১, মোসাদ্দেক ০, তাইজুল ১৫, খালেদ ০, এবাদত ০; রাজিথা ২৮.২-৭-৬৪-৫, আসিথা ২৬-৩-৯৩-৪

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংসে ৫০৬/১০ (১৬৫.১), ওশাদা ৫৭, করুনারত্নে ৮০, মেন্ডিস ১১, রাজিথা ০, ম্যাথুস ১৪৫*, ধনঞ্জয়া ৫৮, চান্দিমাল ১২৪, ডিকওয়েলা ৯, রমেশ ১০, জয়াবিক্রমা ০, আসিথা ২; এবাদত ৩৮-৪-১৪৮-৪, সাকিব ৪০.১-১১-৯৬-৫

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসে ১৬৯/১০ (৫৫.৩), জয় ১৫, তামিম ০, শান্ত ২, মুমিনুল ০, মুশফিক ২৩, লিটন ৫২, সাকিব ৫৮, মোসাদ্দেক ৯, তাইজুল ১, এবাদত ০*, খালেদ ০; রাজিথা ১২-৫-৪০-২, আসিথা ১৭.৩-৫-৫১-৬, রমেশ ১১-২-২০-১

শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংসে ২৯/০ (৩), ওশাদা ২১*, করুনারত্নে ৭*

ফলাফলঃ শ্রীলঙ্কা ১০ উইকেটে ম্যাচে জয়ী, ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জয়ী।

ম্যাচসেরাঃ আসিথা ফার্নান্দো (শ্রীলঙ্কা)

সিরিজসেরাঃ অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস (শ্রীলঙ্কা)। 

মিরপুরে পরাজয়ের পথে বাংলাদেশঃ

মিরপুর টেস্টে শ্রীলঙ্কার নায়কে পরিণত হয়েছেন আসিথা ফার্নান্দো। টানা দুই বলে তাইজুল ইসলাম ও খালেদ আহমেদকে সাজঘরে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে যখন অলআউট করে দিলেন, নামের পাশে তখন ৬ উইকেট।

১৬৯ রানে গুটিয়ে গেছে বাংলাদেশ। সফরকারী শ্রীলঙ্কার সামনে জয়ের লক্ষ্য মাত্র ২৯।

ব্যর্থতার ষোলোকলা পুর্ণ করলেন মোসাদ্দেকঃ 

দীর্ঘদিন বাদে টেস্ট দলে সুযোগ পেয়েছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন। তবে মিরপুরে ফেরাটা সুখকর হল না মোসাদ্দেকের। ১ম ইনিংসে কোন রান না করে ফেরা মোসাদ্দেক দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ৯ রান। ২২ বল স্থায়ী ইনিংসের শেষটা হয়েছে বাজেভাবেই। যেভাবে দৃষ্টিকটু শট খেলতে যেয়ে এলবিডব্লিউ হয়েছেন তাতে হতাশ হবার কথা তারও।

আসিথা ফেরালেন সাকিবকেওঃ 

লাঞ্চের পর শ্রীলঙ্কাকে জয়ের পথে এগিয়ে দিলেন আসিথা ফার্নান্দো। ফিফটি করে লাঞ্চ বিরতিতে যাওয়া লিটন দাস ও সাকিব আল হাসানকে সাজঘরের পথ দেখিয়েছেন তিনি। ৭২ বলে ৭ চারে ৫৮ রান করে উইকেটের পেছনে নিরোশান ডিকওয়েলাকে ক্যাচ দেন সাকিব।

৩.২ ওভারের ব্যবধানে দুই সেট ব্যাটারের উইকেট হারিয়ে বিপাকে বাংলাদেশ। ৩ উইকেট হাতে থাকা বাংলাদেশের লিড মাত্র ২২।

ফিরলেন লিটনঃ

সাকিব আল হাসান ও লিটন দাসের ৬ষ্ঠ উইকেট জুটি ভাঙতে শ্রীলঙ্কার দরকার ছিল দারুণ কিছুর। সেটাই সফরকারীদের উপহার দিলেন আসিথা ফার্নান্দো। নিজের বোলিংয়ের ফলো থ্রুতে এক হাতে দারুণ এক ক্যাচ নিয়ে সাজঘরে ফেরান লিটন দাসকে। তাতে ভাঙে ১৬৪ বল স্থায়ী সাকিব-লিটনের ১০৩ রানের জুটি।

১৩৫ বলে ৩ চারে ৫২ রান করে আউট হন লিটন। প্রথম ইনিংসে লিটন খেলেছিলেন ১৪১ রানের ইনিংস।

লিটনের ফিফটি, সাকিবের সঙ্গে জুটিতে ১০০ পারঃ

ব্যক্তিগত ১ রান নিয়ে ৪র্থ দিন শেষ করেছিলেন লিটন দাস, দল ২য় ইনিংসে পিছিয়ে ছিল ১০৭ রানে। লিটন দাসের সামনে তাই বেশ বড় দায়িত্ব ছিল। সেই দায়িত্ব দারুণভাবেই সামলাচ্ছেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটার। ১৩০ বলে ৩ চারে ৫০ পূর্ণ করেন তিনি। ধৈর্যশীলতার পরিচয় দিয়ে লিটন তুলে নিয়েছেন নিজের ১৩ তম ফিফটি।

সাকিব আল হাসানের সঙ্গে লিটনের ৬ষ্ঠ উইকেট জুটি পেরিয়েছে ১০০ রানের গন্ডি।

সাকিবের ফিফটি, স্বস্তি নিয়েই লাঞ্চে গেল বাংলাদেশঃ 

আগেরদিন সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসান জানিয়েছিলেন সেঞ্চুরি করার চেয়ে ৩ ঘন্টা ব্যাটিং করা বেশি গুরুত্বপুর্ণ। প্রথম সেশনে ১ টির বেশি উইকেট যাওয়া বাংলাদেশের জন্য বিপজ্জনক বলেছিলেন তিনি।

প্রথম সেশনে বাংলাদেশ আজ হারায়নি ১ টির বেশি উইকেট। ব্যাট হাতে লিটন দাসের সঙ্গে দলের হাল ধরেছেন সাকিব আল হাসান। লাঞ্চের আগে দুজনের অবিচ্ছেদ্য জুটিতে এসেছে ৯৬ রান। যেখানে ৫২ রানই সাকিব আল হাসানের।

৬১ বলে ৭ চারে ৫২ রান করে অপরাজিত আছেন সাকিব আল হাসান, ১২৭ বলে ৩ চারে ৪৮ রান করে অপরাজিত আছেন লিটন দাস। বাংলাদেশের রান ৫ উইকেটে ১৪৯, লিড ৮ রানের।

লিড নিল বাংলাদেশঃ 

২য় ইনিংসে ১০৭ রানে পিছিয়ে থেকে ৫ম দিনের খেলা শেষ করেছিল বাংলাদেশ, হাতে ছিল ৬ উইকেট। ইনিংস হারের শঙ্কা তাই ছিলই।

দিনের শুরুতে মুশফিকুর রহিম ফিরে গেলে সেই শঙ্কা আরও বেড়ে যায়। তবে লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান জুটি বেধে সেই শঙ্কা দূর করেছেন। ৪৪ তম ওভারের ৫ম বলে সিঙ্গেল নিয়ে বাংলাদেশের লিড নিশ্চিত করেন সাকিব আল হাসান। লিটন ও সাকিব দুজনেই আছেন ফিফটির পথে।

দুই হাজারি ক্লাবে লিটন দাসঃ 

টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম ১০০০ রান করতে ৩৭ ইনিংস লাগিয়েছিলেন লিটন দাস। তবে ১০০০ থেকে ২০০০ অব্দি যেতে মাত্র ১৯ ইনিংস লাগল লিটনের। মিরপুরে আজ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লিটন টেস্টে ২০০০ রানের গন্ডি পার করলেন।

২০০০ বা তার বেশি রান করা ৮ম বাংলাদেশি ব্যাটার লিটন দাস। ইনিংসের বিচারে লিটন দাস ৩য় দ্রুততম। ৪৭ ইনিংসে ২০০০ রান পূর্ণ করা মুমিনুল সবার উপরে। তামিম ইকবালের লেগেছিল ৫৩ ইনিংস।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

২০০০ রান করতে ইনিংস-

মুশফিকুর রহিম- ৬৭
তামিম ইকবাল- ৫৩
সাকিব আল হাসান- ৫৮
মুমিনুল হক- ৪৭
হাবিবুল বাশার- ৫৮
মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ- ৬৭
মোহাম্মদ আশরাফুল- ৯১
লিটন দাস- ৫৬

মুশফিককে ফেরালেন রাজিথাঃ

কাসুন রাজিথার আগের ওভারের শেষ বলে লিটন দাসকে আউট দিয়েছিলেন আম্পায়ার। যদিও রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান লিটন। টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল লাগেনি লিটনের ব্যাটে।

তবে রাজিথার উইকেট পেতে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করা লাগেনি। নিজের করা পরবর্তী ওভারের ৩য় বলেই মুশফিককে সাজঘরে ফেরান তিনি। ৩৯ বলে ৪ চারে ২৩ রান করে আউট হন তিনি। ৫৩ রানে ৫ম উইকেট হারায় বাংলাদেশ দল। তখনও ইনিংস ব্যবধানে হার এড়াতে ৮৮ রান দূরে ছিল স্বাগতিকরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (৪র্থ দিন শেষে):

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসে ৩৬৫/১০ (১১৬.২), জয় ০, তামিম ০, শান্ত ৮, মুমিনুল ৯, মুশফিক ১৭৫*, সাকিব ০, লিটন ১৪১, মোসাদ্দেক ০, তাইজুল ১৫, খালেদ ০, এবাদত ০; রাজিথা ২৮.২-৭-৬৪-৫, আসিথা ২৬-৩-৯৩-৪

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংসে ৫০৬/১০ (১৬৫.১), ওশাদা ৫৭, করুনারত্নে ৮০, মেন্ডিস ১১, রাজিথা ০, ম্যাথুস ১৪৫*, ধনঞ্জয়া ৫৮, চান্দিমাল ১২৪, ডিকওয়েলা ৯, রমেশ ১০, জয়াবিক্রমা ০, আসিথা ২; এবাদত ৩৮-৪-১৪৮-৪, সাকিব ৪০.১-১১-৯৬-৫

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসে ৩৪/৪ (১৩), জয় ১৫, তামিম ০, শান্ত ২, মুমিনুল ০, মুশফিক ১৪*, লিটন ১*; রাজিথা ৬-৩-১২-১, আসিথা ৬-২-১২-২

২য় ইনিংসে বাংলাদেশ ১০৭ রানে পিছিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সেঞ্চুরির চেয়ে ৩ ঘন্টা যখন সাকিবের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ

Read Next

জিতেও ফাইনালে যাওয়া হল না সালমা খাতুনদের

Total
42
Share