২য় ইনিংসেও বাংলাদেশের ব্যাটিং বিপর্যয়

২য় ইনিংসেও বাংলাদেশের ব্যাটিং বিপর্যয়
Vinkmag ad

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ২৩ মে থেকে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ২য় টেস্ট। এই টেস্টের চতুর্থ দিনের খুটিনাটি আপডেট এই লাইভ রিপোর্টে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (৪র্থ দিন শেষে):

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসে ৩৬৫/১০ (১১৬.২), জয় ০, তামিম ০, শান্ত ৮, মুমিনুল ৯, মুশফিক ১৭৫*, সাকিব ০, লিটন ১৪১, মোসাদ্দেক ০, তাইজুল ১৫, খালেদ ০, এবাদত ০; রাজিথা ২৮.২-৭-৬৪-৫, আসিথা ২৬-৩-৯৩-৪

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংসে ৫০৬/১০ (১৬৫.১), ওশাদা ৫৭, করুনারত্নে ৮০, মেন্ডিস ১১, রাজিথা ০, ম্যাথুস ১৪৫*, ধনঞ্জয়া ৫৮, চান্দিমাল ১২৪, ডিকওয়েলা ৯, রমেশ ১০, জয়াবিক্রমা ০, আসিথা ২; এবাদত ৩৮-৪-১৪৮-৪, সাকিব ৪০.১-১১-৯৬-৫

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসে ৩৪/৪ (১৩), জয় ১৫, তামিম ০, শান্ত ২, মুমিনুল ০, মুশফিক ১৪*, লিটন ১*; রাজিথা ৬-৩-১২-১, আসিথা ৬-২-১২-২

২য় ইনিংসে বাংলাদেশ ১০৭ রানে পিছিয়ে।

২য় ইনিংসেও বাংলাদেশের ব্যাটিং বিপর্যয়ঃ 

০, ২, ৬, ৫, ২, ৯, ০- না কোন মোবাইল নম্বরের ডিজিট নয়। গত ৭ টেস্ট ইনিংসে বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হকের রান। শেষ ৭ ইনিংস মিলে তার রান সাকুল্যে ২৪।

চট্টগ্রামে ব্যর্থ হবার পর মিরপুরেও হাসল না মুমিনুল হকের ব্যাট। প্রথম ইনিংসে ৯ রান করা মুমিনুল আজ দ্বিতীয় বলেই কোন রান না করে ফিরেছেন।

এর আগে কোন রান না করে ফিরেছেন তামিম ইকবালও। টেস্ট ক্রিকেটে এই প্রথম ‘পেয়ার’ (দুই ইনিংসেই ডাক) এর স্বাদ পেলেন তামিম।

১১ বলে ২ রান করে দৃষ্টিকটু রান আউট হয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। শুরু থেকেই নড়বড়ে থাকা মাহমুদুল হাসান জয় ফিরেছেন ২৭ বলে ৩ চারে ১৫ রান করে। ২৩ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছে বাংলাদেশ দল।

সাকিবের ৫, শ্রীলঙ্কার ১ম ইনিংসে সংগ্রহ ৫০৬ঃ 

২৬ ওভারে ৫৯ রান খরচে ৩ উইকেট। এমন বোলিং ফিগার নিয়েই ৩য় দিন শেষ করেছিলেন সাকিব আল হাসান। সংবাদ সম্মেলনে টাইগারদের পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ড বলেছিলেন ৪র্থ দিনে সাকিব ৫ উইকেটের দেখা পেলে দারুণ হবে।

৪র্থ উইকেটের দেখা পেতে অবশ্য সাকিবকে বল করতে হয়েছে আরও ১১.৫ ওভার। নিজের ৩৮ তম ওভারের ৫ম বলে নিরোশান ডিকওয়েলাকে (৯) লিটন দাসের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান সাকিব। যদিও বাংলাদেশ আবেদন করেছিল স্টাম্পিংয়ের। অনফিল্ড আম্পায়ার তৃতীয় আম্পায়ারের দারস্থ হলে টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল ছুঁয়ে গেছে ডিকওয়েলার ব্যাটের কানা।

৪র্থ উইকেট পেতে দেরি হলেও ৫ম উইকেট পেতে দেরি হয়নি সাকিবের। ৪০ তম ওভারের ৩য় বলে প্রবীন জয়াবিক্রমাকে লিটন দাসের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান সাকিব। পূরণ হয় টেস্ট ক্যারিয়ারে তার ১৯ তম ৫ উইকেট।

সাকিবের ৪র্থ ও ৫ম উইকেটের মাঝে অবশ্য রমেশ মেন্ডিসকে এলবিডব্লিউ করে ফেরান এবাদত হোসেন।

এবাদতের অবশ্য ৫ উইকেট নেওয়া হয়নি। আসিথা ফার্নান্দো রান আউট হলে ৫০৬ রানে গুটিয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। ১৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। শ্রীলঙ্কার ১ম ইনিংসে লিড ১৪১।

১৯৯ এ থামল ম্যাথুস-চান্দিমাল জুটিঃ 

চট্টগ্রাম টেস্টের ১ম ইনিংসে ১৯৯ রান করে আউট হয়েছিলেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। মিরপুর টেস্টের ১ম ইনিংসে আরও এক ১৯৯ এর আক্ষেপে পুড়তে হল ম্যাথুসকে। দীনেশ চান্দিমালের সঙ্গে তার ৬ষ্ঠ উইকেট জুটি ভাঙে ১৯৯ তেই।

৪১৫ বল স্থায়ী জুটি ভাঙেন এবাদত হোসেন। ২১৯ বলে ১২৪ রান করা চান্দিমালকে তামিম ইকবালের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান এবাদত। বাংলাদেশের ১ম ইনিংসের সংগ্রহের ঠিক ১০০ রানে এগিয়ে থাকার সময়ে ৬ষ্ঠ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা।

বাংলাদেশের আরও এক হতাশাময় সেশনঃ

মিরপুরে আগের দিন বৃষ্টির পেটে গিয়েছিল গোটা ১ সেশন। আজ তাই আধা ঘন্টা আগে শুরু হয়েছিল ৪র্থ দিনের খেলা। ৩৩ ওভারের ১ম সেশনে কোন উইকেট না হারিয়ে ৮৭ রান যোগ করেছিল শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় সেশনেও কোন উইকেট হারায়নি সফরকারীরা। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দীনেশ চান্দিমালের সেঞ্চুরি তুলে নেবার সেশনে ২৫ ওভারে ৯০ রান তুলেছে তারা।

৫ উইকেটে ৪৫৯ রান নিয়ে চা বিরতিতে গেছে শ্রীলঙ্কা, লিড বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৪।

বাংলাদেশের বিপক্ষে চান্দিমালের আরও এক সেঞ্চুরিঃ

বাংলাদেশ দলকে বরাবরই পছন্দ দীনেশ চান্দিমালের। ১১ সেঞ্চুরি নিয়ে এবারের সিরিজ খেলতে এসেছিলেন চান্দিমাল। যার ৪ টিই ছিল বাংলাদেশের বিপক্ষে। এর আগে কলম্বো, গল, চট্টগ্রামে সেঞ্চুরি থাকলেও মিরপুরে সেঞ্চুরি ছিল না। আজ সেই আক্ষেপও দূর হল। মিরপুরে নিজের ১২ তম শতক তুলে নিলেন চান্দিমাল, বাংলাদেশের বিপক্ষে যা ৫ম!

ম্যাথুসের মত অবশ্য তিন অঙ্ক স্পর্শ করতে বেশি বল খেলেননি চান্দিমাল। ১৮১ বলে ৯ চার ও ১ ছয়ে উদযাপনে মাতেন। ইতোমধ্যে ম্যাথুস ও চান্দিমালের ৬ষ্ঠ উইকেট জুটি পার করেছে ১৫০ রানের গন্ডি, লিডও পার করেছে ৫০ এর কাটা।

চট্টগ্রামের পর মিরপুরেও সেঞ্চুরি, স্টেটমেন্ট দিলেন ম্যাথুসঃ

যখন উইকেটে এসেছিলেন দলের রান তখন ৩ উইকেটে ১৪৪। প্রতিপক্ষের চেয়ে দল পিছিয়ে তখনো ২২১ রানে। আরও ২০ রান দলের রানের খাতায় যুক্ত হবার পর সাজঘরে ফিরতে দেখেন অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নেকেও। তবে চট্টগ্রাম টেস্টের ১ম ইনিংসের ন্যায় মিরপুর টেস্টের প্রথম ইনিংসেও দলের হাল ধরলেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস।

টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৩ তম সেঞ্চুরি করার দিন ৩৫ ছুঁইছুঁই ম্যাথুস যেনো স্টেটমেন্ট দিলেন- ‘এইজ ইজ জাস্ট এ নাম্বার’।

২৭৪ বলে ৬ চার ও ২ ছক্কায় তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন ম্যাথুস। ম্যাথুসকে দারুণ সঙ্গ দেওয়া দীনেশ চান্দিমালও ছুটছেন সেঞ্চুরির পথে। শ্রীলঙ্কার লিডটা ৪০ এর কাটা পার করেছে। নিশ্চিতভাবেই মিরপুরে চালকের আসনে শ্রীলঙ্কা।

শ্রীলঙ্কার স্বপ্নের মত এক সেশনঃ 

৩৩ ওভারে কোন উইকেট না হারিয়ে ৮৭ রান। ৪র্থ দিনের প্রথম সেশনে এর চেয়ে বেশি কিছু চাইতে পারত না শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের বোলারদের নিষ্প্রভ থাকার দিনে স্বাচ্ছন্দে ব্যাটিং করেছেন লঙ্কানদের দুই অভিজ্ঞ ব্যাটার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দীনেশ চান্দিমাল।

৫ উইকেটে ৩৬৯ রান নিয়ে হাসিমুখেই লাঞ্চে গেছে চান্দিমাল ও ম্যাথুস। শ্রীলঙ্কার লিড এখন ৪ রানের। ৯৩ রান করে অপরাজিত ম্যাথুস, ৬১ রান করে অপরাজিত চান্দিমাল।

লিড নিল শ্রীলঙ্কাঃ 

৮৩ রানে পিছিয়ে থেকে ৩য় দিনের খেলা শেষ করেছিল শ্রীলঙ্কা। সফরকারী দলের সহকারী কোচ নাভিদ নেওয়াজ সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন লিড নিতে চায় তার দল। ৪র্থ দিনের প্রথম সেশনেই লিড নিশ্চিত করে ফেলেছে শ্রীলঙ্কা।

অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দীনেশ চান্দিমালের জুটি ছাড়িয়েছে ১০০ রানের গন্ডি। মিরপুরে এখন এগিয়েই আছে সফরকারীরা।

আগের দিন ৫৮ রানে অপরাজিত থাকা ম্যাথুস আছেন সেঞ্চুরির পথে। ১০ রান করে ৩য় দিন শেষ করা দীনেশ চান্দিমাল তুলে নিয়েছেন ফিফটি। ৪র্থ দিনে এসে উইকেটের অপেক্ষা বেড়েই চলেছে স্বাগতিকদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (৩য় দিন শেষে):

বাংলাদেশ ৩৬৫/১০ (১১৬.২), জয় ০, তামিম ০, শান্ত ৮, মুমিনুল ৯, মুশফিক ১৭৫*, সাকিব ০, লিটন ১৪১, মোসাদ্দেক ০, তাইজুল ১৫, খালেদ ০, এবাদত ০; রাজিথা ২৮.২-৭-৬৪-৫, আসিথা ২৬-৩-৯৩-৪

শ্রীলঙ্কা ২৮২/৫ (৯৭), ওশাদা ৫৭, করুনারত্নে ৮০, মেন্ডিস ১১, রাজিথা ০, ম্যাথুস ৫৮*, ধনঞ্জয়া ৫৮, চান্দিমাল ১০*; এবাদত ২৬-৪-৭৮-২, সাকিব ২৬-৯-৫৯-৩

শ্রীলঙ্কা ৮৩ রানে পিছিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মিরপুরে ডেভিড গাওয়ারের খোঁজে ক্যারোলিন জোয়েটের একদিন!

Read Next

ক্যাচ মিসের মাশুল দিয়ে বাদ পড়ল লখনৌ

Total
20
Share