আহামরি কিছু না ভেবেই রাজিথার পাঁচ উইকেট

আহামরি কিছু না ভেবেই রাজিথার পাঁচ উইকেট
Vinkmag ad

মূল পেসার বিশ্ব ফার্নান্দো মাথায় আঘাত পেয়ে ছিটকে গেলে চট্টগ্রাম টেস্টে তার কনকাশন বদলি হিসেবে নামেন কাসুন রাজিথা। আর তাতেই করেছেন বাজিমাত, এক ইনিংসে বল করে নেন ৪ উইকেট। চলতি ঢাকা টেস্টে আরও দুর্দান্ত, প্রথম ইনিংসে নিলেন রেকর্ড গড়া ৫ উইকেট। তবে নিজে জানালেন খুব ভেবে চিন্তে নয়, বরং বেসিক ঠিক করেই সফল হয়েছেন।

টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২৪ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। যেখানে রাজিথার ৩ ও আসিথা ফার্নান্দোর শিকার ২ উইকেট। এরপর অবশ্য জোড়া সেঞ্চুরিতে টাইগারদের হাল ধরেন লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম।

প্রথম দিন আর কোনো উইকেট না হারানো বাংলাদেশ আজ (দ্বিতীয় দিন) লাঞ্চের পরপরই হয়েছে অলআউট। তাতেও বড় অবদান রাজিথা-ফার্নান্দোর। দুজনে মিলে ২ টি করে উইকেট তুলে নিয়ে ৩৬৫ রানেই আটকে দেয় স্বাগতিকদের।

সবমিলিয়ে ৬৪ রান খরচায় রাজিথার ঝুলিতে ৫ উইকেট। যা বাংলাদেশের মাটিতে কোনো লঙ্কান পেসারের প্রথম ৫ উইকেট। অন্যদিকে আরেক পেসার ফার্নান্দো নেন ৯৩ রান খরচায় ৪ উইকেট।

বাংলাদেশী ব্যাটারদের বিপক্ষে ঠিক কি পরিকল্পনা করে বল করেছেন রাজিথা? এমন প্রশ্নে ডানহাতি এই পেসার কেবল বেসিক ঠিক রেখে লাইন-লেন্থ মেনেছেন বলে জানান।

‘ব্যক্তিগত সেরা নিয়ে আমি খুবই খুশি। আমি মনে করি, বেসিক ঠিক রাখতে পেরেছিলাম। দুই টেস্টেই লাইন-লেংথ ঠিকঠাক ধরে রেখে বোলিং করে গেছি। আজকেও (গতকাল) সেটাই করে গেছি।’

প্রথম দুইদিনে পড়া ১২ উইকেটের ১০ টিই নিয়েছে পেসারারা। অথচ মিরপুর মানেই স্পিনারদের স্বর্গ। রাজিথা বলছেন ধীরে ধীরে ঠিকই স্পিন সহায়ক হবে।

চট্টগ্রামের ব্যাটিং বান্ধব ফ্ল্যাট উইকেটের সাথে ঢাকার কিছুটা মন্থর উইকেটের পার্থক্য তুলে ধরে ২৮ বছর বয়সী রাজিথা যোগ করেন, ‘চট্টগ্রামের উইকেট কিছুটা শক্ত। ঢাকার উইকেট সে হিসেবে নরম। কিছুটা ধীরগতির। কিন্তু এখানে কিছু মুভমেন্ট রয়েছে। পেসারদের জন্য ভালো উইকেট। আগামীকাল (আজ) আর তার পরদিন মনে হয় উইকেটে টার্ন দেখা যাবে।’

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৩৬৫ রানের জবাবে শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ২ উইকেটে ১৪৩ রান তুলে। এখনো পিছিয়ে আছে ২২২ রানে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মিরপুরের অচেনা রূপ, এবাদত-খালেদের বড় ভূমিকা দেখেন লিটন

Read Next

ডি ভিলিয়ার্স বললেন, ‘আগামী আইপিএলে ফিরছি’

Total
1
Share