মিরপুরের অচেনা রূপ, এবাদত-খালেদের বড় ভূমিকা দেখেন লিটন

মিরপুরের অচেনা রূপ, এবাদত-খালেদের বড় ভূমিকা দেখেন লিটন
Vinkmag ad

প্রচলিত মিরপুরের উইকেট মানেই মন্থর ও টার্নিং উইকেট। তবে চলমান ঢাকা টেস্টের প্রথম দুইদিন রাজত্ব করেছেন লঙ্কান দুই পেসার কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দো। যদিও ঠিক একই রকম প্রভাব ফেলতে পারেনি বাংলাদেশের পেসাররা। এখনো ২২২ রানে পিছিয়ে থাকা লঙ্কানদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে আগামীকাল (ম্যাচের তৃতীয় দিন) টাইগার পেসারদের ভালো ভূমিকা দেখেন লিটন।

টস জিতে আগে ব্যাট করা বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসের ৪০ মিনিটেই বিপর্যস্ত। ২৪ রান তুলতেই হারায় ৫ উইকেট। রাজিথা ৩ ও ফার্নান্দো নেন ২ উইকেট। সেখান থেকে লিটন ও মুশফিকের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়িয়ে প্রথম দিনে হারায়নি আর কোনো উইকেট।

আজ দ্বিতীয় দিন বাংলাদেশ হারায় বাকি ৫ উইকেট। যার চারটিই নেয় রাজিথা-ফার্নান্দো। দুজনেই আজ ভাগাভাগি করেন দুইটি করে উইকেট। বাকি একটি রান আউট।

সবমিলিয়ে ২৮.২ ওভার বল করে রাজিথার শিকার ৫ উইকেট। যা বাংলাদেশের মাটিতে কোনো শ্রীলঙ্কান পেসারের প্রথম ৫ উইকেট শিকার। অন্যদিকে ২৬ ওভারে ৯৩ রান খরচায় ৪ উইকেট ফার্নান্দোর।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৩৬৫ রানের জবাবে ২ উইকেটে ১৪৩ রান তুলে দিন শেষ করেছে শ্রীলঙ্কা। যেখানে বাংলাদেশের দুই পেসার খালেদ আহমেদ ও এবাদত হোসেন রাখতে পারেনি সেরকম প্রভাব। দুজনে মিলে ১৮ ওভার বল করে খরচ করেচে ৫৮ রান। এবাদত অবশ্য নিয়েছেন ১ উইকেট।

চলমান টেস্টে স্পিনারদের জন্য খুব বেশি সুবিধা নেই, অন্তত প্রথম দুইদিনের বিচারে। সেক্ষেত্রে আগামীকাল তৃতীয় দিনের শুরুতেও টাইগার পেসারদের ভালো সুযোগ রয়েছে বলছেন সেঞ্চুরিয়ান লিটন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ‘ সত্যি কথা বলতে পেসারদের জন্য গতকালও সাহায্য ছিল আজকেও ছিল। আমি মনে করি না স্পিনারদের জন্য খুব একটা সাহায্য ছিল। তারপরও যথেষ্ট ভালো বোলিং করেছে আমাদের স্পিনাররা। আমার মনে হয় আমাদের যে দুটা ফ্রন্ট লাইনে বোলার (খালেদ-এবাদত) আছেন তাদের দায়িত্বশীল হতে হবে। কিছু উইকেট না বের করতে পারলেও ইকোনমি দিয়ে যদি বল করে কিছুতো আপ অ্যান্ড ডাউন হবে। তো এই জিনিষটা আমাদের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।’

এখনো ২২২ রানে পিছিয়ে আছে শ্রীলঙ্কা। ঢাকা টেস্ট বর্তমানে যেখানে দাঁড়িয়ে সেখানে জয়ের ভালো সুযোগ দেখেন লিটন।

তার মতে, ‘এখনও ওরা অনেক পিছিয়ে আছে। সকাল সকাল ২-১টা উইকেট নিয়ে নিতে পারলে আমাদের লিডের অনেকখানি সুযোগ থাকবে। প্রথম ইনিংস এখানে অনেক গুরুত্বপূর্ণ। যদি আমাদের কাছাকাছি বা আমাদের ওপরে চলে যায় তাহলে আমরা ব্যাকফুটে চলে যাব। যত এগিয়ে থাকব আমাদের জন্য ভালো।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ব্যাটিং অর্ডারে উন্নতি, লিটন তাকিয়ে বড় ভাইদের দিকে

Read Next

আহামরি কিছু না ভেবেই রাজিথার পাঁচ উইকেট

Total
19
Share