নাইমের চোখে যে কারণে আজকের বোলিং সেরা

নাইমের চোখে যে কারণে আজকের বোলিং সেরা
Vinkmag ad

২০১৮ সালে ঘরের মাঠ চট্টগ্রামে অভিষেক টেস্ট খেলতে নেমেই পাঁচ উইকেট শিকার নাইম হাসানের। এরপর পাঁচ উইকেট নিয়েছেন আরও একবার। এবার ১৫ মাস পর টেস্ট খেলতে নেমে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রামেই নিলেন পাঁচ উইকেট। তবে পরিস্থিতি ও উইকেট বিবেচনায় এবারের পাঁচ উইকেটকে এগিয়ে রাখলেন এই অফ স্পিনার।

অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের ১৯৯ রানের পরও শ্রীলঙ্কাকে ৩৯৭ রানে আটকানো গেছে নাইমের পাশাপাশি সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলামের স্পিন ঘূর্ণিতে। নাইমের ৬ উইকেটের বিপরীতে সাকিবের ৩ ও তাইজুলের ১ উইকেট।

চট্টগ্রামের ব্যাটিং বান্ধব উইকেটে নাইমের নেওয়া ১০৫ রান খরচায় ৬ উইকেট ক্যারিয়ার সেরা। ক্যারিয়ার সেরা বলে নয় উইকেটের কারণেই আগের দুইবারের পাঁচ উইকেট পিছিয়ে থাকছে তার কাছে। অভিষেক টেসয়ে ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চট্টগ্রামে নেন ৬১ রানে ৫ উইকেট। ২০২০ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৮২ রানে নেন ৫ উইকেট।

চলতি টেস্টে নেওয়া ৬ উইকেটকে এগিয়ে রেখে সংবাদ সম্মেলনে নাইম বলেন, ‘আসলে এটা এগিয়ে রাখা বলতে। সব পাঁচ উইকেটই তো অন্যরকম। বিশেষত এটা খুব ভালো উইকেটে (ব্যাটিং বান্ধব) পাঁচ উইকেট পেয়েছি, এজন্য একটু এগিয়ে রাখবো।’

এদিকে বোলিং করার সময় নিজের কি পরিকল্পনা ছিল জানাতে গিয়ে এই অফ স্পিনার যোগ করেন, ‘আসলে উইকেটটা খুব ভালো। ওখানে রান ছাড়া বল করার পরিকল্পনা ছিল ভালো জায়গায়। কিন্তু ওখানে যদি এক রান হওয়া যায় প্যানিক হবে না। সাকিব ভাইয়ের সঙ্গে কথা হয়েছিল আমার, উনি বলেছিল। বাউন্ডারি ছাড়া ওভারটাই ভালো ছিল।’

অধিনায়ক মুমিনুল হক ছারাও সাকিব সবসময় পরামর্শ দিতে এগিয়ে আসে বলছেন লঙ্কানদের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সেরা বোলার, ‘আসলে সাকিব ভাই তো আমাদের সঙ্গে কথা বলে, সৌরভ ভাইও কথা বলে। উনার কাছে তো পুরো টিমের দায়িত্ব। তো সাকিব ভাই ছোট ছোট বিষয়গুলো বলে দেয়, মানে এখন এরকম করতে হবে, যেটা অনেক উপকার হয়।’

তিন স্পিনারই ভালো করেছেন, তবে উইকেট সংখ্যায় এগিয়ে নাইম। তার মতে তাইজুল-সাকিবের কিপটে বোলিংই তাকে উইকেট পেতে সাহায্য করেছে।

এ প্রসঙ্গে তার ভাষ্য, ‘তাইজুল ভাইরাও তো খুব ভালো বল করছে, ওনারা রান আটকে রেখেছে। তারপর সাকিব ভাইও ভালো বল করেছে, রান আটকে রেখেছে। গতকালকে কিন্তু আমি ওরকম ভালো বল করতে পারিনি যেটা সত্যি কথা মানে একটা জায়গায় রান আটকে রাখার মতো।’

‘গতকালকে উনারা রান আটকে রাখছে। গতকালকে সাকিব ভাই, কোচ ও সৌরভ ভাইদের সঙ্গে কথা বলেছি উইকেট কি ডিমান্ড করছে, ওই অনুযায়ী বল করার চেষ্টা করেছি। আল্লাহর রহমতে সাফল্য এসেছে।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মিরাজের চোটে কপাল খুললেও মন খারাপ ছিল নাইমের

Read Next

আমি যেটা শুনিনি সেটা লিটন কীভাবে শুনবে, প্রশ্ন ম্যাথুসের

Total
1
Share