সাকিবের ফিট প্রমাণের মিশন কেড়ে নিল সব আলো

দেশের মানুষ ও মিডিয়ার চিন্তা-ভাবনায় পরিবর্তন আনা জরুরিঃ সাকিব
Vinkmag ad

সাকিব আল হাসানকে ঘিরে গতকাল (১৩ মে) তুঙ্গে থাকা আলোচনার অবসান হল আজকের অনুশীলন দিয়ে। সাকিব এলেন, মাঠে নামলেন, ব্যাট হাতে নিজেকে ফিট প্রমাণের চেষ্টা করলেন।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে করোনা পজিটিভ হয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্ট থেকে ছিটকে যান। তবে আইসোলেশনের পাঁচদিন শেষ করার আগেই করোনা নেগেটিভ হয়ে খেলার ইচ্ছে প্রকাশ করেন। গতকাল রাতে চট্টগ্রামে পৌঁছে দলের সাথেও যোগ দেন।

তবে তাকে খেলানোর ব্যাপারে কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ছিলেন কিছুটা যদি কিন্তুর উপর নির্ভরশীল। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছিলেন পুরো ফিট হলেই সাকিবকে খেলানোর ইচ্ছে তার। ৫০-৬০ শতাংশ ফিট হলেও না খেলানোর পক্ষে টাইগার কোচ।

সাকিব আজ ম্যাচের আগের দিন জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সকাল সকালই দলের সাথে আসেন। ব্যাট হাতেই নিজের প্রথম কার্যক্রম শুরু করেন।

সাগরিকার আকাশ কখনো মেঘলা, কখনো বা রৌদ্রজ্জ্বল। মাঠে নেমে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো, ব্যাটিং পরামর্শক জেমি সিডন্স, পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ড, টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গে মিনিট দশেক আলোচনা সেরে নেন সাকিব।

ততক্ষণ সাকিবকে দেখে স্বস্তির হাসি ফুটেছে অধিনায়ক মুমিনুল হকের মুখেও। আলাপচারিতা শেষ করেই ড্রেসিংরুমে ফিরে যান সাকিব। এরপর ১০ মিনিটের মাথায় ব্যাট-প্যাড পরে নেমে আসেন।

স্টেডিয়ামের দক্ষিণ-পশ্চিম প্রান্তের নেটে মোকাবেলা করেছেন নেট বোলারদের। ম্যাচের আগের দিন বলে অনেকটা ঐচ্ছিক অনুশীলন হয়ে পড়া দিনে পাননি স্কোয়াডের কোনো পেসারকে। খালেদ আহমেদ ও শহিদুল ইসলাম মাঠে আসলেও করেননি বল।

তাকে বল ছুড়েছেন রাসেল ডমিঙ্গো। ডমিঙ্গোর সঙ্গে যোগ দেন থ্রোয়ার মোহাম্মদ নাসির ও টিম ম্যানেজার নাফিস ইকবাল।

ডমিঙ্গোর প্রথম কয়েকটি থ্রোতে ডিফেন্স করেন সাকিব। এরপর ড্রাইভ করার চেষ্টায় ভালোই ফল মিলেছে তাঁর। আবার শটের টাইমিংয়ে গড়বড় হলে নিজের ওপর হতাশা ঝেড়েছেন।

ততক্ষণে একজন নেট বোলারকে কয়েকবার বাউন্ডারিতে উড়িয়ে মারেন সাকিব। ডমিঙ্গোর সাকিবের ব্যাটিং দেখে স্বস্তির সুরে জানান ‘ওয়েলডান’।

সাকিব যখন নেটে তখন পেছনে দাঁড়িয়ে শট দেখিয়ে দেন ব্যাটিং পরামর্শক জেমি সিডন্সও। খানিক পরই সিডন্সের জায়গায় দাঁড়িয়ে একই কাজ করলেন ডমিঙ্গো। নেটের পেছন থেকে সাকিবকে ডেকে ব্যাটিং নিয়ে কিছু একটা দেখিয়ে দিতে দেখা গেল বাংলাদেশ দলের এ প্রোটিয়া কোচকে।

প্রায় আধা ঘন্টার ব্যাটিং করে বিরতিতে যান সাকিব। মাঝে তাকে বল করেছেন স্কোয়াডে না থাকা পেসার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। দুজনে মাঝে মেতে উঠেন খুনসুটিতেও। যতক্ষণ নেটে ছিলেন সাকিব ছিলেন ফুরফুরে মেজাজে। চোখে মুখে ছিল না কোনো ক্লান্তির ছাপ।

কে বলবে একদিন আগেও করোনা পজিটিভ হয়ে ছিটকে যাওয়া একজন ছিলেন?

সাকিবের ৩০ মিনিটের অনুশীলনে পাশের নেটে সঙ্গী ব্যাট করেছেন মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক। অনুশীলন চলাকালীন আশেপাশেই ছিলেন তিন নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু, হাবিবুল বাশার সুমন ও আব্দুর রাজ্জাক।

সাকিবের ব্যাটিং শেষ হওয়ার পরই সাগরিকায় বৃষ্টি নামে। তবে মিনিট দশেকের মাঝেই থেমে যায়। বাংলাদেশ দল ফের মাঠে নামলেও ছিল ঢিলেঢালা অনুশীলন। যা চলেনি ১৫ মিনিটের বেশি। এভাবেই শেষ হয় লঙ্কানদের বিপক্ষে প্রথম টেসের আগে চূড়ান্ত অনুশীলন।

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নিউজিল্যান্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ব্রেসওয়েল-আজাজ, বাদ নিশাম

Read Next

শুধু ব্যাটিং দেখেই যেভাবে সাকিবকে চট্টগ্রাম টেস্ট খেলাচ্ছে বাংলাদেশ!

Total
6
Share