সাদা পোশাকে বিবর্ণ মুস্তাফিজই রাজার চোখে বিশ্বমানের!

যতদিন বায়ো-বাবল আছে ততদিন টেস্ট খেলবেন না মুস্তাফিজ
Vinkmag ad

সর্বশেষ টেস্ট খেলেছেন এক বছরের বেশি সময় পেরিয়েছে, এর আগেও ছিলেন না নিয়মিত। লাল বলে সেরা ছন্দে না থাকায় দল থেকে বাদও পড়েছিলেন মাঝে। ৭ বছরের ক্যারিয়ারে মুস্তাফিজুর রহমান টেস্ট খেলেছেন কেবল ১৪ টি। গত বছর নিজেই এই ফরম্যাট থেকে নাম সরিয়ে নেন অনির্দিষ্ট কালের জন্য। অথচ তাকেই সাদা পোশাকে বিশ্বমানের বলছেন অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা পেসার রেজাউর রহমান রাজা।

১৪ ম্যাচের ক্যারিয়ারে উইকেট ৩০ টি। টেস্টে দলের স্ট্রাইক বোলার ছিলেন না কখনোই। বায়ো-বাবল ইস্যুর সাথে নিজের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ওয়ার্ক লোড কমাতে টেস্ট না খেলার কথা বোর্ডকে জানায় মুস্তাফিজ। বোর্ডও তার ইচ্ছেকে সম্মান জানায়, রাখেনি এই ফরম্যাটের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে। শুধু মুস্তাফিজ নয় সব ক্রিকেটারকেই কেন্দ্রীয় চুক্তির আগে নিজেদের পছন্দ মতো ফরম্যাট বেছে নেওয়ার সুযোগ দিয়েছিল দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

কিন্তু বর্তমানে দিল্লি ক্যাপিটালসের হয়ে আইপিএল খেলা মুস্তাফিজকে নিয়ে নতুন করে শুরু হয়েছে টানাটানি। হুট করেই বোর্ড কর্তাদের মনে হচ্ছে টেস্টেও মুস্তাফিজের খেলা উচিৎ। প্রয়োজনে তাকে বাধ্য করানোর পথও যেন খুঁজে বেড়াচ্ছে।

এদিকে সাদা পোশাকে বিবর্ণ মুস্তাফিজকেই বিশ্বমানের বলছেন রাজা। ডানহাতি এই পেসার পরিসংখ্যানকে পাশ কাটিয়ে দিয়েছেন নিজস্ব যুক্তিও। রঙিন পোশাক আর সাদা বলের দুর্দান্ত মুস্তাফিজের অভাব সুযোগ পেলে টেস্ট ফরম্যাটে পূরণ করতে চান এই তরুণ পেসার।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ সামনে রেখে চট্টগ্রামে চলছে অনুশীলন ক্যাম্প। ১৫ মে শুরু হবে প্রথম টেস্ট। তার আগে চলমান ক্যাম্পের ছুটির দিন ছিল আজ (১১ মে)। তবে টীম হোটেলে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেছেন ঠিকই।

২২ বছর বয়সী রাজা জানান, ‘দেখেন, একটা জিনিস। মুস্তাফিজ ভাই হচ্ছে বিশ্বমানের বোলার। উনি দলে থাকা মানে আমাদের আলাদা একটা শক্তি। যেহেতু নাই, আমরা যারা আছি চেষ্টা করব…। অবশ্যই মিস তো করছি, যেহেতু বিশ্বমানের খেলোয়াড়। উনি থাকলে উনার কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পারতাম। যেহেতু উনি বিশ্ব মানের বোলার, উনি যেকোনো কন্ডিশনের জন্যই সেরা বোলার আমার যেটা মনে হয়।’

বারবার রাজার মুখে মুস্তাফিজকে বিশ্বমানের বলতে শুনে সংবাদ কর্মীরা মনে করিয়ে দিলেন টেস্টে তার পরিসংখ্যান সাদামাটাই (১৪ ম্যাচে ৩০ উইকেট)। যেখানে ওয়ানডে (৭৪ ম্যাচে ১৩১ উইকেট) ও টি-টোয়েন্টিতে (৬৩ ম্যাচে ৮৭ উইকেট) সেরাদের একজন।

বাস্তবতা জেনেও রাজা দিলেন নিজস্ব ব্যাখ্যা, ‘আসলে বিশ্বমান বলতে বিশ্বমানই। যেকোনো একটা বল দিয়ে বিশ্বমান ঈঙ্গিত করা হয় না। যেহেতু উনি ১৪টা ম্যাচ খেলছে (টেস্টে), আরও ম্যাচ খেললে অবশ্যই ভালো করবে। আমাদের বিশ্বাস এটা, যেহেতু উনি বিশ্বমানের আমাদের একটা প্রত্যাশা থাকবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

রাজার অনুধাবন, শুধু গতি দিয়ে টিকে থাকা যাবে না

Read Next

মার্শের অলরাউন্ড নৈপুণ্য, আশা বেঁচে রইল দিল্লির

Total
4
Share