ছেলেকে ক্রিকেটার বানানোর প্রত্যয় মোশাররফ রুবেলের স্ত্রীর

ছেলেকে ক্রিকেটার বানানোর প্রত্যয় মোশাররফ রুবেলের স্ত্রীর
Vinkmag ad

গত ১৯ এপ্রিল ক্যান্সারের সাথে যুদ্ধে পরাজিত হয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেল। তার ৫ বছরের ছেলে রুশদানের এখনো তা বোঝার মতো অবস্থা হয়নি। অপেক্ষার প্রহর গুনেন বাবা বুঝি ফিরে আসবেন। এমন আবেগে মোড়ানো মুহুর্ত সঙ্গী করেই সময় কাটছে রুবেলের স্ত্রী চৈতি ফারহানা রূপার। অকালে বাবা হারানো ছেলেকে ক্রিকেটার বানাতে বদ্ধপরিকর এই সংগ্রামী নারী।

২০১৯ সালে ব্রেইন টিউমার ধরা পড়ার পর থেকেই স্বামীর সেবায় নিজেকে উজাড় করে দেন চৈতি। কিন্তু ৩ বছরের বেশি সময়ের লড়াই থেমে যায় চলতি মাসে। জাতীয় দলের সাবেক বাঁহাতি স্পিনার রুবেলকে দাফন করা হয় বনানী কবরস্থানে। কিন্তু কবরের জায়গাটুকু ছিল না স্থায়ী, প্রধানমন্ত্রীর কাছে তার স্ত্রীর চাওয়া ছিল কবরের জায়গাটুকু যেন স্থায়ী করা হয়।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের অধীনস্থ বনানী কবরস্থান। মেয়র আতিকুর রহমান চৈ সময় ওমরাহ পালনে সৌদি আরবে থাকলেও বিষয়টি জানতে পেরে তাৎক্ষনিক আশ্বাস দেন। এবার দেশে ফিরে রুবেলের বাসায় গেলেন, তার ছেলে রুশদানের জন্য নিয়ে গেলেন ক্রিকেট সরঞ্জাম সহ বেশ কিছু উপহার। পরে সংবাদ মাধ্যমে জানান কবর স্থায়ী করার প্রক্রিয়া তারা শুরু করেছন।

অন্যদিকে রুবেলের স্ত্রী এমন কিছুতে প্রকাশ করেছেন কৃতজ্ঞতা। সিটি মেয়রকে অভিভাবক হিসেবে পাওয়ার পাশাপাশি দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিসিবিকেও পাশে পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি। রুবেলের চাওয়া মতো ছেলেকে যে ক্রিকেটার বানানোর সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন জানালেন সেটিও।

চৈতি বলেন, ‘রুবেলের খুব ইচ্ছা ছিল ছেলেটাকে ভালো একজন ক্রিকেটার বানানোর। আমি সর্বোচ্চ পরিমাণে চেষ্টা করব একজন ক্রিকেটার হিসেবে তৈরি করার। মেয়র বলেছেন পারিবারিক অভিভাবক হিসেবে উনি থাকবেন সবসময়।’

‘আমরা হয়ত বিসিবিকেও পাশে পাব। আর কোনো চাওয়া নেই আসলে আমার। সবার কাছেই আমি কৃতজ্ঞ। গণমাধ্যম খবরটা মেয়রের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন, নাহলে এটা হত না। আপনাদের কাছেও কৃতজ্ঞ।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘মুস্তাফিজ, তুমি একজন স্টার’

Read Next

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াডে মোসাদ্দেক

Total
4
Share