বাংলাদেশকে পরের ধাপে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখেন সোহান

উইন্ডিজদের বিপক্ষে ম্যাচের আগে সোহানরা অনুপ্রেরণা পাচ্ছেন যেভাবে
Vinkmag ad

ব্যাটিং পজিশনের কারণে আন্তর্জাতিক কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেট, কোথাও ধারবাহিক পারফর্মার হওয়ার সুযোগ থাকে না নুরুল হাসান সোহানের। তবে সদ্য সমাপ্ত ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে (ডিপিএল) শিরোপা জয়ী শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের হয়ে দেখালেন ঝলক। সে ক্ষেত্রে দল দ্রুত ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়াকে আশীর্বাদ হিসেবেই দেখতে পারেন এই উইকেট রক্ষক ব্যাটার। দারুণ এক টুর্নামেন্ট কাটানো সোহানের স্বপ্ন তরুণরা মিলে বাংলাদেশকে পরের ধাপে নিয়ে যাওয়া।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের কারণে প্রথম পর্বে খেলতে পারেন ৩ ম্যাচ। তবে সুপার লিগে শেখ জামালের হয়ে খেলেছেন ৫ ম্যাচেই। আর তাতেই ৮ ম্যাচে ৯৬.৬০ গড়ে রান করেছেন ৪৮৩, আছে ৪ ফিফটি ১ সেঞ্চুরি। রান সংখ্যার চাইতে পরিস্থিতি বিবেচনায় খেলা তার ইনিংসগুলো মুগ্ধ করবে যে কাউকে।

সুপার লিগেই পেয়েছেন একমাত্র সেঞ্চুরিটি, ১৩২ রানের অপরাজিত ইনিংসটি সোহান খেলেন দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তোলার পথে। রূপগঞ্জ টাঈগার্সের বিপক্ষে ঐ ইনিংসে ভর করেই দল পেয়েছে জয়। এরপর আবাহনীর বিপক্ষে শিরোপা নিশ্চিত হওয়া ম্যাচেও বিপর্যয়ের মুহূর্তে ৮১ রানের অপরাজিত ইনিংস।

গতকাল (২৮ এপ্রিল) লেজেন্ডস অব রূপগঞ্জের কাছে তার দল হারলেও শিরোপা জয়ের উল্লাস ঠিকই হয়েছে। পরে সংবাদ মাধ্যমে কথা বলেছেন নিজের ব্যাটিং, লক্ষ্য, স্বপ্ন নিয়ে।

‘অনেক বড় আশা, বাংলাদেশ দলকে অনেক বড় জায়গায় দেখতে চাই। সিনিয়র যারা ছিলেন, তারা একটা জায়গায় বাংলাদেশ দলকে নিয়ে গেছেন। আমাদের লক্ষ‍্য থাকবে, আমরা যেন পরের ধাপে নিয়ে যেতে পারি। অবশ‍্যই বাংলাদেশের হয়ে অনেক বড় কিছু করার আশা।’

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শুরুতে সোহান নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। তবে গত দুই বছরে খুব বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ না পেলেও জাতীয় দলের সাথে আছেন নিয়মিতই। যখনই সুযোগ পান নিজেকে প্রমাণের চেষ্টা করছেন।

সোহান বলেন, ‘গত দুই বছর ধরে অনেক বেশি পরিশ্রম করছি। যেহেতু মিডল অর্ডারে ব‍্যাটিং করি, সব সময়ই লক্ষ‍্য থাকে যেন শেষ করে আসতে পারি। দুই বছর ধরে ঘরোয়া লিগে যেভাবে খেলছি, অবশ‍্যই আশা থাকবে। হয়তো কম্বিনেশনের জন‍্য জাতীয় দলে অনেক সময় সুযোগ আসে না। তবে যদি সুযোগ আসে, তাহলে দলের জয়ে যেন অবদান রাখতে পারি, এভাবে খেলতে পারি, এটাই আশা থাকবে।’

‘গত দুই বছর ধরে বাবুল স‍্যারের (মিজানুর রহমান, বিসিবির কোচ) সঙ্গে ব‍্যাটিং টেকনিক নিয়ে কাজ করেছি। আমার মনে হয়, ব‍্যাটিং টেকনিকের পাশাপাশি মেন্টাল ফিটনেসটাও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এটা নিয়ে আমি কয়েকটা ক্লাসও করেছি। আমার মনে হয়, এটা সত‍্যিই কাজে লেগেছে। আমরা সবাই জানি, ক্রিকেটে স্কিলের সঙ্গে মেন্টালিও অনেক কিছু রিলেটেড থাকে। এমন কিছু কিছু জিনিস আমার কাজে এসেছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাব্বিরের কাছে রোজা আগে, খেলা পরে

Read Next

‘মুস্তাফিজ, তুমি একজন স্টার’

Total
14
Share