ক্রিকেটারদের বেশি টাকা দিয়ে দেওয়া হচ্ছে কীনা প্রশ্ন সালাউদ্দিনের

মোহাম্মদ সালাউদ্দিন
Vinkmag ad

দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম জমজমাট আসর ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ (ডিপিএল)। জাতীয় দলের বাইরের ক্রিকেটারদের আয়ের বড় একটা অংশ আসে এই টুর্নামেন্ট থেকে। স্থানীয় কোচরা সারা বছর অপেক্ষা করেন ডিপিএল শুরু হওয়ার। বড় ক্লাবগুলো ক্রিকেটারদের পেছনে বেশ বড় অঙ্কের অর্থ ব্যয় করে। প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন যেমন বলেই বসলেন মাঝে মাঝে তার মনে হয় খেলোয়াড়দের বেশি টাকা দিয়ে দেওয়া হচ্ছে কীনা!

ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) উন্মাদনাই বর্তমানে বেশি। তবে সেখানে দল কম, একাদশেও বিদেশী থাকে। ফলে খুব সীমিত ক্রিকেটারেরই সুযোগ মিলে। সে দিক বিবেচনায় ঘরোয়া ক্রিকেটের বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই মুখিয়ে থাকেন ডিপিএলে দল পেতে। ১২ টি ক্লাব (এবার অবশ্য ১১ টি অংশ নিয়েছে, একটি দল নাম প্রত্যাহার করে শেষ মুহূর্তে) নিয়ে টুর্নামেন্ট চলে বলে ২০০ এর বেশি ক্রিকেটারের সুযোগ হয় খেলার, সাথে আর্থিক নিরাপত্তাও নিশ্চিত হয়।

আবাহনী, মোহামেডান, শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব, গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স, লেজেন্ডস অব রূপগঞ্জ, প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের মতো বড় দলগুলো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই দল গড়ে। জাতীয় দল ও এর বাইরে ঘরোয়া লিগের নিয়মিত পারফর্মারদের অন্তর্ভূক্ত করা হয়। দেশে সেরা কোচদেরই বেছে নেয় ক্লাবগুলো।

দীর্ঘদিন গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সে কাজ করা মোহাম্মদ সালাউদ্দিন এবার কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবে। আগামীকাল (১৮ এপ্রিল) প্রাইম ব্যাংক সুপার লিগের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে আবাহনীর।

তার আগে আজ অনুশীলন শেষে মিরপুরে তার কাছে সাংবাদিকদের জানতে চাওয়া খেলোয়াড় ও কোচদের পারিশ্রমিক কি ঠিকঠাক বণ্টন হচ্ছে?

জবাবে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলে সালাউদ্দিন জানালেন,

‘আমার মনে হয় বেশিরভাগ ক্লাবের যারা বড় দল গড়ে তাদের পারিশ্রমিক (কোচ ও খেলোয়াড়) খুব ভালো। নিচের দিকে কি হয় সেটা আমি জানি না। উপরের দিকে যারা আছে তাদের পেমেন্ট খুব ভালো। মাঝে মাঝে মনে হয় আমরা কি বেশি টাকা দিয়ে দিচ্ছি নাকি খেলোয়াড়কে!’

তবে সালাউদ্দিন জানালেন যৌক্তিক কারণেই যে যার প্রাপ্য অর্থটাই পায়। নিজেদের যোগ্যতা, মেধা ও শ্রমের বিনিময়েই কোচ ও খেলোয়াড়েরা পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন।

‘আপনি যদি আপনার পেশায় ভালো পয়সা পেয়ে থাকেন…সেটা কিন্তু আপনি আপনার যোগ্যতায় পেয়েছেন। আপনাকে কিন্তু এমনি এমনি দেয়নি। প্রত্যেকটা পেশায় আপনাকে কিন্তু প্রমাণ করতে হবে। ধার করে কিন্তু কিছু পারবেন না। কোচকেও তার গুরুত্ব বুঝতে হবে। কোচ যদি ক্লাবগুলোকে বুঝাতে পারে সে খুব গুরুত্বপূর্ণ তখন অটোমেটিক তার টাকা বাড়বে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিবের খেলার সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় বিসিবি, অধিনায়কত্ব টিকে যাচ্ছে মুমিনুলের

Read Next

উমরান মালিকের অগ্নিঝরা বোলিংয়ে পাঞ্জাবকে হারাল হায়দ্রাবাদ

Total
17
Share