ইমরুলদের জয়রথ থামানো যাচ্ছে না কোনভাবেই

2
Vinkmag ad

চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে (ডিপিএল) শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের জয়রথ থামানো যাচ্ছে না। জিয়াউর রহমানের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে শেষ ওভারের রোমাঞ্চে আজ (১১ এপ্রিল) রূপগঞ্জ টাইগার্সের বিপক্ষে দলটি জিতেছে ৪ রানে। বল হাতে শেষের ঝলক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীর।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করা শেখ জামাল ধানমন্ডি ব্যাটিং বিপর্যয়ের মাঝেও সাইফ হাসান ও জিয়াউর রহমানের ফিফটিতে অলআউট হওয়ার আগে ২০২ রানের পুঁজি পায়।

জবাবে বল হাতে জিয়ার শুরুর তোপ পেছনে ফেলে আসিফ রাতুলের ৯৫ রানের ইনিংসে জয়ের পথে থেকেও শেষের নাটকীয়তায় পরাজিত দলে রূপগঞ্জ। থেমেছে ৮ উইকেটে ১৯৮ রানে।

এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের এক নম্বর অবস্থান আরও পোক্ত হল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের। ইমরুল কায়েসের দল ৯ ম্যাচে জিতেছে ৮ টিতে, প্রথম ৪ ম্যাচে টানা জয়ের পর এক পরাজয়। এরপর আজ নিয়ে আবারও টানা ৪ জয়। যেখানে ৯ ম্যাচে ৪ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের ৬ নম্বর অবস্থানে রূপগঞ্জ টাইগার্স।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ওপেনার সৈকত আলিকে (২) হারায় শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদের দ্বিতীয় শিকার হয়ে দ্রুত ফেরেন ইমরুল কায়েসও (১৬)।

ফরহাদ রেজার বলে জহরুল ইসলাম (৫), এনামুল হক জুনিয়রের টানা দুই শিকারে রবিউল ইসলাম (২০) ও তাইবুর রহমান (০) ফিরলে ৮১ রানেই ৫ উইকেট নেই সলটির।

ওপেনার সাইফ হাসান এক পাশ আগলে রাখলেও অন্য প্রান্তে নিয়মিত বিরতিতে পড়ে উইকেট। ১৩১ রানে ৭ম ব্যাটার হিসেবে সাইফ যখন ফেরেন তখন তার নামের পাশে ৯৪ বলে ৪ চার ৩ ছক্কায় ৬১ রান।

সাইফের বিদায়ের পর শেখ জামাল ২০০ পেরোয় জিয়াউর রহমানের ব্যাটে। ৫০ বলে ৩ চার ৪ ছক্কায় খেলেন ৫৭ রানের ইনিংস। এ ছাড়া পারভেজ রাসুল ১৯ ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীর ব্যাট থেকে আসে ১০ রান।

২০২ রানে আটকে দেওয়ার পথে রূপগঞ্জ টাইগার্সের হয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নাসুম আহমেদের। সমান ২ টি করে উইকেট মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, ফরহাদ রেজা ও এনামুল হক জুনিয়রের।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে জিয়াউর রহমানের তোপে স্কোরবোর্ডে কোনো রান তোলার আগেই ফিরে যান জাকির হাসান (০) ও ফজলে মাহমুদ (০)। ওপেনার ইমরানুজ্জামানও ২০ রানের বেশি করতে পারেননি।

৪২ রানে ৩ উইকেট হারানো রূপগঞ্জ টাইগার্সকে টেনে নেন আসিফ আহমেদ রাতুল ও মার্শাল আইয়ুব। দুজনে মিলে জুটিতে যোগ করেন ৭৮ রান। ৪৭ বলে ২৮ রান করে মার্শাল আউট হলেও সাদ নাসিমকে নিয়ে জয়ের পথেই এগোচ্ছিলেন আসিফ।

নিজেও ফিফটি তুলে হাঁটছিলেন সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীর শেষ স্পেলে এলোমেলো হয় আসিফের সেঞ্চুরির স্বপ্ন, সাথে দলের জয়ও।

৪৬তম ওভারের শেষ বলে আসিফকে এক্সট্রা কাভারে ইমরুলের ক্যাচে পরিণত করেন মৃত্যুঞ্জয়। ১৩২ বলে ৮ চার ২ ছক্কায় ৯৫ রানে ফিরতে হয়েছে আসিফকে।

তার বিদায়ের পর হাতে ৫ উইকেট নিয়ে ২৪ বলে প্রয়োজন ছিল ২৯ রান। কিন্তু এক প্রান্তে সেট ব্যাটার সাদ নাসিম থাকা স্বত্বেও এই সমীকরণ আর মেলাতে পারেনি ফরহাদ রেজা (৩), মোহাম্মদ শরিফুল্লাহ (৩), নাসুম (১*), মুগ্ধরা (০*)।

শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৮ রান, মৃত্যুঞ্জয়ের ঐ ওভারে নাসিম (৩৭) ও শরিফুল্লাহ কে হারিয়ে রূপগঞ্জ নিতে পারেনি ৩ রানের বেশি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব: ২০২ ( ৪৮.১ ওভার) সৈকত ২, সাইফ ৬১, ইমরুল ১৬, জহুরুল ৫, রবিউল ২০, তাইবুর ০, রাসুল ১৯, জিয়াউর ৫৭, সানজামুল ৩, মৃত্যুঞ্জয় ১০, আরিফ ৩*; নাসুম ১০-২-২২-৪, মুকিদুল ৯.১-২-৫৪-২, শরিফউল্লাহ ২-০-১৮-০, ফরহাদ ১০-০-৩৭-২, এনামুল জুনিয়র ১০-১-২৯-২, নাসিম ৭-০-৪২-০।

রূপগঞ্জ টাইগার্স ক্রিকেট ক্লাব: ১৯৮/৮ (৫০ ওভার) ইমরানউজ্জামান ২০, জাকির ০, ফজলে ০, আফির ৯৫, মার্শাল ২৮, নাসিম ৩৭, রেজা ৩, শরিফউল্লাহ ৩, নাসুম ১*, মুকিদুল ০*; রাসুল ১০-২-২৮-১,জিয়াউর ৭-২-১৬-২, আরিফ ৮-১-৩২-১, মৃত্যুঞ্জয় ৮-০-৩৭-৩, সানজামুল ৫-০-৩২-০, তাইবুর ৬-০-২১-০, রবিউল ৬-০-২৬-১।

ফলাফল: শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ৪ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরা: জিয়াউর রহমান (শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মুশফিককে আগলে রেখে মুমিনুল বলছেন রিভার্স সুইপ ক্রিকেটের বাইরের শট না

Read Next

টেস্টে বাংলাদেশ আগের জায়গাতেই আছেঃ মুমিনুল

Total
18
Share