নিজের সাথে মুশফিকের ফর্মও ভাবাচ্ছে না মুমিনুলকে

মুশফিকুর রহিম মুমিনুল হক
Vinkmag ad

দলের ব্যাটিং বিভাগের অন্যতম ভরসা হয়ে উঠেছেন বলে নামের পাশে ট্যাগ লেগেছিল ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’। তবে এই মিস্টার ডিপেন্ডেবল খ্যাত মুশফিকুর রহিমকে সাম্প্রতিক সময়ে চেনা রূপে দেখা যাচ্ছে না। টাইগারদের টেস্ট কাপ্তান মুমিনুল হকও নেই ফর্মে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টের আগে মুমিনুল নিজের কিংবা মুশফিকের ফর্ম নিয়ে কোনভাবেই চিন্তিত নন।

সর্বশেষ ১০ ইনিংসে মুমিনুল দুই অঙ্ক ছুঁয়েছেন মাত্র ৩ বার। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্ট জয়ের ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ৮৮ রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে অপরাজিত ছিলেন ১৩ রানে। এর আগের ৪ ইনিংস যথাক্রমে ৬, ০, ১ ও ৭। এর পরের ৪ ইনিংস যথাক্রমে ০, ৩৭, ০ ও ২!

অন্যদিকে মুশফিকের সর্বশেষ ১০ ইনিংসে ফিফটি মাত্র একটি। গত বছর পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে খেলেন ৯১ রানের ইনিংস। বাকি ৮ ইনিংসে ৪০ পেরিয়েছেন ২ বার। সর্বশেষ ৪ ইনিংস ১২, ৫*,৭ ও ০। এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ঐতিহাসিক ওয়ানডে সিরিজ জেতা ৩ ম্যাচেও তার ব্যাটে রান সাকূল্যে ৫০!

বিশেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান টেস্টে দুজনের কাছ থেকে কোনো প্রকার সাহায্য পায়নি দল। ৫৩ রানে অলআউট হওয়া দ্বিতীয় ইনিংসে মুশফিকের দিকেই চেয়েছিল ভক্ত সমর্থকরা। অথচ ফিরেছেন কোনো রান না করে, প্রথম ইনিংসে থেমেছেন ৭ রানে। প্রথম ইনিংসে কোনো রান না করা মুমিনুল দ্বিতীয় ইনিংসে থামেন ২ রানে।

আগামীকাল (৮ এপ্রিল) পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জ স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছ দ্বিতীয় টেস্ট। তার আগে আজ সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুল বলছেন ফর্মহীনতা নিয়ে একটুও ভাবছেন না। যদিও প্রথম টেস্ট শেষেও সাংবাদিকের করা প্রশ্নের জবাবে নিজের ফর্ম নিয়ে উদ্বিগ্ন নন বলে জানান।

তার ভাষ্য, ‘উনাকে (মুশফিক) নিয়ে কোন চিন্তাই করি না। উনি বাংলাদেশ দলের সেরা ব্যাটসম্যান। তিনটা ডাবল সেঞ্চুরি আছে। উনি অবশ্যই দ্রুত কামব্যাক করবে। আর আমি নিজেকে নিয়েও চিন্তিত নই। আগে কি হয়েছে তা নিয়ে না ভেবে সামনের ম্যাচে কি হবে সেটার দিকে তাকাচ্ছি।’

এদিকে আগের ম্যাচে ২২০ রানের বড় পরাজয়, সাথে দলের গুরুত্বপূর্ণ পেসার তাসকিন আহমেদ চোটে পড়ে দেশে ফিরে এসেছেন। এর বাইরে পোর্ট এলিজাবেথের বাতাসও নিতে পারে কঠিন পরীক্ষা। এবারই যে প্রথম এই মাঠে টেস্ট খেলতে যাচ্ছে মুমিনুলরা। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতে কাজটা চ্যালেঞ্জিং হলেও মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী টাইগার কাপ্তান।

মুমিনুল বলেন, ‘চ্যালেঞ্জ না, আপনি একেক জায়গায় একেক রকম পরিস্থিতিতে পড়তেই পারেন। এটা ক্রিকেটে না, সবক্ষেত্রেই হয়। আপনার এটার সাথে মানিয়ে নিয়েই খেলতে হবে। সব জায়গায় তো…যেটা একটু আগে বললাম একেক সময় একেক কন্ডিশনে থাকবে, ইংল্যান্ডে একরকম থাকে, নিউজিল্যান্ডে এক রকম থাকে সাউথ আফ্রিকায় ভিন্ন।’

‘তো একেক জায়গায় এক রকম থাকে। আসলে মানিয়ে নিয়ে খেলাটা হলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। আমার কাছে মনে হয় সবাই মানিয়ে নিয়ে খেলবে। আমরা ওভাবেই মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়ে আছি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কেন্দ্রীয় চুক্তিতে বড় চমক জশ ইংলিস

Read Next

মুস্তাফিজের উইকেট না পাবার দিন জিতল লখনৌ

Total
1
Share