মুমিনুলের চোখে হারমার-মহারাজদের উইকেট দেওয়া বিরাট অপরাধ

হারমারের স্পিন বিষে নীল বাংলাদেশ
Vinkmag ad

ডারবান টেস্টে ২২০ রানের বড় ব্যবধানে হার, দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৩ রানে গুটিয়ে যেতে হয়েছে বাংলাদেশকে। দক্ষিণ আফ্রিকান দুই স্পিনার কেশব মহারাজ ও সিমন হারমার যে দাপট দেখিয়েছেন তা বড় বিস্ময়। অথচ বাংলাদেশের ব্যাটারদের ক্যারিয়ারের লম্বা সময়ই কেটে যায় ঘরোয়া ক্রিকেটে স্পিন বান্ধব উইকেটে স্পিনারদের খেলে। অধিনায়ক মুমিনুল বলছেন বিদেশের মাটিতে স্পিনারকে উইকেট দেওয়া অনেক বড় অপরাধ।

দক্ষিণ আফ্রিকার কন্ডিশন মানেই পেসারদের রাজত্ব। তবে শত বছরের পুরোনো ভেন্যু ডারবানের কিংসমিডে সাম্প্রতিক সময়ে স্পিন ধরা শুরু হয়েছে। কিন্তু কেবল স্পিনাররাই প্রতিপক্ষের সবকটি উইকেট তুলে নিবে এটাও ছিল বিস্ময়।

সদ্য সমাপ্ত বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা ডারবান টেস্টের দ্বিতীয় দিন থেকেই স্পিনাররা পেয়েছে সাহায্য। তবে চতুর্থ ও পঞ্চম দিনে প্রোটিয়া দুই স্পিনার কেশব মহারাজ ও সিমন হারমার সব নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেন নিজেদের দিকে।

২৭৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করা বাংলাদেশকে ১৯ ওভারে ৫৩ রানেই গুটিয়ে দেন দুজন মিলে। কেশব ৩২ রানে ৭ উইকেট ও হারমার ২১ রানে নেন ৩ উইকেট। প্রথম ইনিংসে কেশব উইকেট শূন্য থাকলেও হারমার শিকার করেন ৪ উইকেট। অর্থাৎ দ্বিতীয় ইনিংসের সবকটি সহ পুরো ম্যাচে বাংলাদেশের ২০ উইকেটের ১৪ টিই নিয়েছেন প্রোটিয়া স্পিনাররা।

অথচ বাংলাদেশের আলো বাতাসে বেড়ে ওঠা যেকোনো ব্যাটারই ক্যারিয়ারের শুরু থেকে স্পিন খেলতে অভ্যস্ত। কন্ডিশনের কারণেই এখানে স্পিন নির্ভর উইকেট, ঘরোয়া ক্রিকেটেই খেলতে হয় প্রচুর ভালো মানের স্পিনারকে। সে হিসেবে বিদেশের মাটিতে স্পিনারদের এভাবে উইকেট দিয়ে আসা টাইগার কাপ্তান মুমিনুলের চোখে বিরাট অপরাধ।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় বিদেশে এসে স্পিনারদের উইকেট দেওয়া বিরাট বড় অপরাধ। আমার মনে হয় বিদেশে এসে আপনি স্পিনারদের উইকেট দিতে পারবেন না। এই কারণে দায়টা আমারই বেশি। বিদেশে এসে স্পিনারদের কোনভাবেই উইকেট দেওয়া যাবে না। অবশ্যই এটা ব্যটিং ব্যর্থতা ছাড়া আর কিছুই না।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আরামেই ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ, বলছেন মুমিনুল

Read Next

আইসিসির কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ জানাবে বিসিবি

Total
1
Share