শেষের নাটকে ১ রানে জিতল প্রাইম ব্যাংক, রাজার প্রথম পাঁচ

শেষের নাটকে ১ রানে জিতল প্রাইম ব্যাংক, রাজার প্রথম পাঁচ
Vinkmag ad

এভাবেও ম্যাচ জেতা যায়! ডিপিএলে ব্রাদার্স ইউনিয়নের বিরুদ্ধে ১ রানের রোমাঞ্চকর জয় পেল প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। অপরাজিত ২৪ রানের ক্যামিও ইনিংসেও দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিতে ব্যর্থ আবু হায়দার রনি। প্রাইম ব্যাংকের রেজাউর রহমান রাজা পাঁচ উইকেট শিকার করে হয়েছেন ম্যাচ সেরা।

বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) ম্যাচে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের করা ২৭৩ রানের জবাবে ২৭২ এ আটকে যায় ব্রাদার্স ইউনিয়নের ইনিংস। শেষের নাটকীয়তায় ১ রানে জিতল প্রাইম ব্যাংক।

বিকেএসপির চার নম্বর গ্রাউন্ডে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে ২৭৩ রান জমা করে প্রাইম ব্যাংক। ফিফটি পেয়েছেন তিন ব্যাটসম্যান। তবে তিনজনই প্যাভিলিয়নে ফেরত যান ষাটোর্ধ ইনিংসে। নাসির হোসেনের ব্যাট এদিন হেসেছে, করেছেন সর্বোচ্চ ৬৬ রান। শামসুর রহমান শুভ বিদায় নেন ৬০ করতেই। এনামুল হক বিজয় ১৫ রানে ফিরলেও আরেক ওপেনার শাহাদত দিপুর ব্যাট থেকে আসে ৬৪ রান।

তিনে নামা মেহেদী হাসান করেন ২২ রান। ইনিংস গড়ার আগেই সাজঘরের পথে হাটেন অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন (১)। এছাড়া অলক কাপালি ১৯ ও নাহিদুল ইসলামের ব্যাট থেকে আসে ১০ রান।

ব্রাদার্স ইউনিয়নের হয়ে বল হাতে এদিন সফল আবু হায়দার রনি। ৫১ রান খরচায় এই পেসার দখলে নেন ৪টি উইকেট।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে শুরুতেই ওপেনার সাদিকুরের (১) উইকেট হারায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন। অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল তিনে নেমে কিছুটা লড়াই করেন। তবে ইনিংস বড় করার আগেই আশরাফুল বিদায় নেন ১৭ বলে ১৭ রান করে। এরপর দ্রুতই ফিরে যান মাইশুকুর রহমান (৪)।

রেজাউর রাজার দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেনের ব্যাট থেকে আসে ৪৩ রান। লঙ্কান চাতুরঙ্গা ডি সিলভাকে ব্যক্তিগত ১১ রানে রেখেই বোল্ড করে দেন রেজাউর। স্কোরবোর্ডে ৮০ রান তুলতেই ব্রাদার্স ইউনিয়ন হারিয়ে ফেলে টপ অর্ডারের পাঁচ ব্যাটসম্যানকে।

এরপর ধীমান ঘোষ আর আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের ব্যাটে স্বস্তি পায় ব্রাদার্স শিবির। দু’জনই পেয়েছেন অর্ধশত রানের দেখা। তবে ব্যক্তিগত ৫১ রানে ধীমান সাজঘরে ফিরতেই ভাঙে তাঁদের ৮৮ রানের জুটি। উইকেটে এসেই ব্যাট হাতে তান্ডব চালান সোহাগ গাজী। চার-ছক্কার বন্যা বইয়ে দেন গাজী। তবে ভয়ংকর সোহাগ গাজীকে ফিফটি হাঁকানোর পর বেশিদূর এগোতে দেয়নি নাসির হোসেন। ফেরার আগে মাত্র ২১ বলে ৬ ছক্কা ও ২ চারে ৫৪ রানের ইনিংস খেলেন গাজী।

৪৮তম ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৬৬ রান করা ব্রাদার্স শেষ ৩ উইকেট হারিয়েছে ৬ রান করতেই। ৪৯তম ওভারে ৫ রান খরচায় দুই উইকেট তুলে নিয়ে রেজাউর রহমান রাজা পূর্ণ করেন ফাইফার। আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে ব্যক্তিগত ৬২ রানে ফেরান রেজাউর রহমান রাজা। আবু হায়দার রনি খেলেন ক্যামিও ইনিংস। ১৫ বলে ২ ছক্কায় অপরাজিত থাকেন ২৪ রানে। তবুও হারতে হয় তাঁর দলকে। নির্ধারিত ওভারের দুই বল আগেই ২৭২ রানে আটকে যায় ব্রাদার্স ইউনিয়নের ইনিংস। ফলে ২ রানের রোমাঞ্চকর জয় পায় প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ২৭৩/৯ (৫০), বিজয় ১৫, দিপু ৬৪, মেহেদী ২২, মিঠুন ১, নাসির ৬৬, শামসুর ৬০, কাপালি ১৯, নাহিদুল ১০, রাজা ১*, রাকিবুল ২*; রনি ১০-১-৫১-৪, সুজন ৭-০-৪৯-২, চতুরঙ্গ ১০-০-৩৮-১, রায়হান ১০-০-৩৯-১, আশরাফুল ৪-০-২৩-১

ব্রাদার্স ইউনিয়ন ২৭২/১০ (৪৯.৪), ইমতিয়াজ ৪৩, সাদিকুর ১, আশরাফুল ১৭, মাইশুকুর ৪, বিপ্লব ৬২, চতুরঙ্গ ১১, ধীমান ৫১, সোহাগ ৫৪, রনি ২৪*, রায়হান ০, সুজন ১; রুবেল ৯-০-৭৫-১, মেহেদী ১০-১-২৪-১, রাকিবুল ১০-১-৫৩-১, রাজা ১০-০-৪৩-৫, কাপালি ৪.৪-০-৩১-১, নাসির ২-০-২২-১

ফলাফলঃ প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ১ রানে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ রেজাউর রহমান রাজা (প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দেশের ক্রিকেট গ্রাফ উপরের দিকে নিচ্ছে বর্তমান নির্বাচক প্যানেল

Read Next

অভিজ্ঞতায় নিজেরা এগিয়ে, তবুও মুমিনুল বলছেন…

Total
1
Share