বিশ্বকাপ জেতা সম্ভব এমন বিশ্বাস তৈরির এখনই সময়: ডোমিঙ্গো

নাইমের মাঝে সাদা বলের ভবিষ্যৎ দেখেন ডোমিঙ্গো
Vinkmag ad

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের মাটিতে টেস্ট জয়ের পর থেকেই যেন বাংলাদেশ ক্রিকেটে পরিবর্তনের হাওয়া। এবার সে হাওয়ায় বাড়তি উন্মাদনা যোগ করে দিল দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জয়। টাইগার কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলছেন অন্তত এবার বিশ্বাস তৈরি হওয়া উচিৎ বাংলাদেশ বিশ্বকাপ জিততে পারে। এবার না হলে আর কোনো কিছুতে এই বিশ্বাস অর্জন সম্ভব নয় বলে মনে করেই এই দক্ষিণ আফ্রিকান।

এর আগে কোনো ফরম্যাটেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তাদের মাটিতে কোনো জয় ছিল না বাংলাদেশ। এবার শুধু প্রথম জয় নয় এসেছে প্রথম সিরিজ জয়ও। গতকাল (২৩ মার্চ) তৃতীয় ওয়ানডেতে প্রোটিয়াদেরতো কোনো সুযোগই দেয়নি বাংলাদেশ। ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে জিতে ২-১ এ সিরিজ নিশ্চিত করে তামিম ইকবাল।

দক্ষিণ আফ্রিকান কন্ডিশনে এমন অর্জনে বিশ্বকাপ জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাস বাড়ানো উচিৎ বলে অধিনায়ক তামিম ইকবালকে বার্তা দিয়েছেন ডোমিঙ্গো। আজ (২৪ মার্চ) দক্ষিণ আফ্রিকায় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন তামিম।

সেখানেই প্রসঙ্গক্রমে টাইগার কাপ্তান বলেন, ”গতকাল ম্যাচ শেষে রাসেল (ডোমিঙ্গো) দারুণ একটি কথা বলেছে, তিনি বলেছেন, ‘এই সিরিজ জেতার পর তোমরা যদি বিশ্বাস না করো যে, তোমরা বিশ্বকাপ জিততে পারবে তাহলে আর কোনো কিছুতে বিশ্বাস করবে না।’ আমি মনে করি, এটা খুব ভালো বার্তা। আমি মনে করি, এটা দিয়ে শুরু হলো।”

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাওয়ার আগেই এবার অন্যরকম আশার ঝিলিক ছিল ক্রিকেটারদের চোখে মুখে। যেখানে কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর বিশ্বাসের পারদটা ছিল অনেক উপরে।

তামিম যোগ করেন, ‘দেশে থেকে আসার সময় এটা বিশ্বাস ছিল যে জিততে পারব। সিরিজ জিততে পারব নাকি, এটা বলাটা কঠিন ছিল। তবে ম্যাচ জয়ের বিশ্বাস ছিল। তবে এটাও বলতে হয়, কোচের প্রচণ্ড বিশ্বাস ছিল যে বাংলাদেশ সিরিজটি জিতবে। তিনি ক্রমাগত বলে গেছেন এবং ক্রিকেটারদেরও সেই বিশ্বাস জোগানোর চেষ্টা করেছেন।’

খেলা দক্ষিণ আফ্রিকায়, ফলে দেশটির সাবেক ও বর্তমান বাংলাদেশ ডোমিঙ্গো শক্তিমত্তা, দুর্বলতা ভালোই জানেন। সাথে সিরিজ শুরুর আগেই দক্ষিণ আফ্রিকান সাবেক তারকা পেসার অ্যালান ডোনাল্ড যোগ দেন পেস বোলিং কোচ হিসেবে। এর বাইরে ডোমিঙ্গোর পরামর্শেই অ্যালবি মরকেল টাইগারদের সাথে কয়েকটি সেশনে কাজ করেন, হোটেলে এসে কিছু সময় কাটীয়ে যান এবিডি ভিলিয়ার্সও।

ডোমিঙ্গোর এত সব আয়োজন ছাড়াও দলের অন্যান্য কোচরাও এই সাফল্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। সিরিজ জয়ের পর সেসব ভুলে যাননি অধিনায়ক তামিম, দিয়েছেন প্রাপ্য কৃতিত্ব।

কোচদের অবদান নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা মনে হয় কোচরা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। তাদের কাছে যে তথ্য ছিল তা তারা আমাদের সঙ্গে ভাগাভাগি করেছে। পাশাপাশি এটাও বলতে হবে যে, এর আগে যারা কাজ করে গেছে তাদেরও এই সফলতার পেছনে অবদান আছে।’

‘ওদের কথাও ভুলে গেলে হবে না। আর যারা কাজ করতেছে তাদের তো অবশ্যই আছে। এটা দলীয় প্রচেষ্টার ফল। কোচিং স্টাফরাও এর অংশ। সবাই সবার কাজটা ঠিকঠাক করেছে দেখেই অর্জন।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিব বেঁচে থাকুক কোটি হৃদয়ে বিশ্বাস হয়ে, ভরসা হয়ে অথবা আদর্শ হয়ে

Read Next

ঐতিহাসিক সিরিজ জয়, কোনো কৃতিত্বই নিচ্ছে না বিসিবি

Total
15
Share