বাংলাদেশকে সহজেই হারাল দক্ষিণ আফ্রিকা

জোহানেসবার্গে কুইন্টন ডি কক ঝড়
Vinkmag ad

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তাদের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জয় দিয়ে শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। সিরিজ জয়ের মিশনে আজ ২য় ওয়ানডেতে মাঠে নামছে তামিম ইকবালের দল। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে সিরিজে টিকে থাকার মিশন। এই ম্যাচের খুটিনাটি আপডেট এই লাইভ রিপোর্টে। 

৭৬ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখেই বাংলাদেশকে হারাল দক্ষিণ আফ্রিকা। সিরিজে আনল ১-১ এ সমতা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশ ১৯৪/৯ (৫০), তামিম ১, লিটন ১৫, সাকিব ০, মুশফিক ১১, রাব্বি ২, মাহমুদউল্লাহ ২৫, আফিফ ৭২, মিরাজ ৩৮, তাসকিন ৯*, শরিফুল ২, মুস্তাফিজ ২*; এনগিডি ১০-২-৩৪-১, রাবাদা ১০-০-৩৯-৫, পারনেল ২.৫-০-৬-১, শামসি ১০-১-২৬-১, ডুসেন ১-০-৩-১

দক্ষিণ আফ্রিকা ১৯৫/৩ (৩৭.২), মালান ২৬, ডি কক ৬২, ভেরেনে ৫৮*, বাভুমা ৩৭, ডুসেন ৮*; মিরাজ ১০-০-৫৬-১, সাকিব ১০-২-৩৩-১, আফিফ ৫-০-১৫-১

ফলাফলঃ দক্ষিণ আফ্রিকা ৭ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ কাগিসো রাবাদা (দক্ষিণ আফ্রিকা)।

জুটি ভাঙলেন আফিফঃ 

৮৬ রানে প্রথম ও ৯৪ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতনের পর বাংলাদেশ ম্যাচে কোনমতে ফিরেছিল বটে। তবে ৮২ রানের জুটি গড়ে প্রোটিয়াদের জয়ের পথ সহজ করেন টেম্বা বাভুমা ও কাইল ভেরেনে। ৫২ বলে ৩৭ রান করা বাভুমাকে শরিফুল ইসলামের ক্যাচ বানিয়ে এই জুটি ভাঙেন আফিফ হোসেন।

ডি কককে ফেরালেন সাকিবঃ 

আগের ম্যাচে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন সাকিব আল হাসান, তবে সেটা ব্যট হাতে ৭৭ রানের ইনিংসের জন্য। বল হাতে ছিলেন উইকেটশুন্য। তবে আজ ২য় ওভারের ২য় বলেই পেলেন উইকেটের দেখা। দারুণ খেলতে থাকা কুইন্টন ডি কককে সাজঘরে ফেরান সাকিব। ৪১ বলে ৯ চার ও ২ ছয়ে ৬২ রান করা ডি কককে ফেরাতে বাউন্ডারি লাইনে দারুণ এক ক্যাচ নেন আফিফ হোসেন।

জুটি ভাঙলেন মিরাজঃ

কুইন্টন ডি কক ও ইয়ানেমান মালানের ৮৬ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ইনিংসের ১৩ তম ওভারের ৩য় বলে মালানকে বোল্ড করেন মিরাজ। ৪০ বলে ৪ চারে ২৬ রান করেন মালান।

কুইন্টন ডি কক ঝড়ঃ

মাত্র ১৯৫ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কুইন্টন ডি কক ও ইয়ানেমান মালানের ব্যাটিং দেখে অবশ্য আপনার তা বোঝার উপায় নেই। বিশেষ করে কুইন্টন ডি ককের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে আপনি বিভ্রান্ত হতে পারেন, চোখ কচলে টার্গেট টা আরেকবার দেখতে চেয়েছেন নিশ্চয়ই। 

২৬ বলে ৮ চার ও ২ ছয়ে ফিফটি পূর্ণ করেন তিনি। পাওয়ার প্লের ১০ ওভারেই ম্যাচ নিজেদের দিকে টেনে নিয়েছে প্রোটিয়া দুই ওপেনার। কোন উইকেট না হারিয়ে তাদের রান ৭২।

১৯৪ এ থামল বাংলাদেশের ইনিংসঃ 

৩৪ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর কেউ যদি আপনাকে বলত বাংলাদেশ ২০০ এর কাছাকাছি স্কোর গড়বে, হয়তো আপনি বিশ্বাস করতেন না। তবে সেটাই করে দেখিয়েছেন আফিফ ও মিরাজ। ৮৬ রানের জুটি গড়ে দলকে ১৯৪ রান করতে সাহায্য করেছেন এই দুজন। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম ইনিংস শেষে):

বাংলাদেশ ১৯৪/৯ (৫০), তামিম ১, লিটন ১৫, সাকিব ০, মুশফিক ১১, রাব্বি ২, মাহমুদউল্লাহ ২৫, আফিফ ৭২, মিরাজ ৩৮, তাসকিন ৯*, শরিফুল ২, মুস্তাফিজ ২*; এনগিডি ১০-২-৩৪-১, রাবাদা ১০-০-৩৯-৫, পারনেল ২.৫-০-৬-১, শামসি ১০-১-২৬-১, ডুসেন ১-০-৩-১।

রাবাদা ফেরালেন আফিফ ও মিরাজকেওঃ

৪৫ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ১৮০ রান, উইকেটে দুই সেট ব্যাটার আফিফ হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ। শেষ ৫ ওভারে কাগিসো রাবাদার ওভার কেবল ১ টি। সেই ১ ওভারেই সাজঘরে আফিফ ও মিরাজ। ১০৭ বলে ৯ চারে ৭২ রান করে বাভুমাকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন আফিফ। ৪৯ বলে ৩৮ রান করে মালানকে ক্যাচ দেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ম্যাচে ৫ উইকেট নেওয়া রাবাদার বোলিং ফিগার- ১০-০-৩৯-৫।

ফিফটি করে বাংলাদেশকে ম্যাচে রেখেছেন আফিফঃ 

৩৪ রানে ৫ উইকেট পড়ার পর উইকেটে এসেছিলেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। ২২ বছর বয়সী আফিফের কাধে তখন রাজ্যের দায়িত্ব। সেই দায়িত্ব ভালোভাবেই পালন করেছেন আফিফ। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে গড়েন ৬০ রানের জুটি। জুটিতে ৫০ ছাড়ানোর পর আফিফ নিজের পঞ্চাশও পূর্ণ করেন। ৭৯ বলে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২য় ফিফটি পুর্ণ করেন তিনি।

সাজঘরে রিয়াদ, বাংলাদেশের ১০০ পারঃ

২৮ তম ওভারের ৫ম বলে দলীয় ১০০ রান পূর্ন হয় বাংলাদেশের। যদিও সেই ওভারের ১ম বলে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের উইকেট হারায় সফরকারীরা। তাব্রাইজ শামসির বলে ইয়ানেমান মালানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন রিয়াদ। ৪৪ বলে ৩ চারে ২৫ রান করেন রিয়াদ।

রিয়াদ-আফিফ জুটিতে ৫০ঃ

৩৪ রানে ৫ উইকেট যাবার পর বাংলাদেশ দলের স্কোর বাড়ানোর কাজটা করেন আফিফ হোসেন ধ্রুব ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৭৪ বলে ৫০ রানের জুটি পূর্ণ করেন এই দুজন। 

মাঠ ছাড়লেন পারনেল, বাংলাদেশের ৫০ পারঃ 

দীর্ঘ বিরতির পর দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় দলে ফিরেছেন ওয়েইন পারনেল। গেল নভেম্বরে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ওয়ানডে খেলা পারনেল নিজের করা প্রথম ২ ওভারে ১ উইকেট নিয়ে ফেরাটা স্মরণীয়ও করে ফেলেছিলেন। তবে ৩য় ওভারেই বিপত্তি। হ্যামস্ট্রিং চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে, শেষ করতে পারেননি ৩য় ওভারও, বাকি থাকা ১ বল করেন অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা।

১৭ তম ওভারের শেষ বলে বাউন্ডারি হাকিয়ে বাংলাদেশের রান ৫০ এর গন্ডি পার করান আফিফ হোসেন ধ্রুব।

৩৪ এই নেই বাংলাদেশের ৫ঃ 

নিজের খেলা ৩য় বলেই ফিরতে পারতেন, ক্যাচ দিয়ে বেচে গিয়েছিলেন ইয়াসির আলি চৌধুরী রাব্বি। তবে কাগিসো রাবাদার সেই আক্ষেপ বেশিক্ষণ থাকেনি। নিজের করা ৬ষ্ঠ ওভারের শেষ বলে রাব্বিকে কেশব মহারাজের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান রাবাদা। ১৪ বল খেলে ২ রান করা রাব্বির ইনিংস ছিল অস্বস্তিতে ভরা।

সাবলীল ছিলেন না মুশফিকুর রহিমও। ৩১ বলে কোন বাউন্ডারি ছাড়া ১২ রান করে আউট হয়েছেন ওয়েইন পারনেলের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে। ৩৪ এই ৫ উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ।

ফিরলেন লিটন, বাঁচলেন রাব্বিঃ

আগের ম্যাচে ফিফটি করা লিটন দাসকে সাবলীল লাগছিল। তবে ৮ম ওভারের ১ম বলে সাজঘরে ফেরেন তিনি। ৩ বাউন্ডারিতে ২১ বলে ১৫ রান করেন লিটন। কাগিসো রাবাদার করা শর্ট বলে আপার কাট খেলার চেষ্টা করেছিলেন লিটন, তবে বল শরীরের খুব কাছে আসায় বল ব্যাটে লেগে যায় সোজা উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে। একই ওভারে কাগিসো রাবাদা পেতে পারতেন আরও এক উইকেট। তবে ইয়াসির আলি রাব্বির দেওয়া সহজতম ক্যাচ প্রথম স্লিপে মিস করেন ভ্যান ডার ডুসেন।

দ্রুত ফিরে গেলেন তামিম -সাকিবঃ

সেঞ্চুরিয়নে খেলেছিলেন ৪১ রানের ইনিংস। তবে জোহানেসবার্গে ৩৩ তম জন্মদিনের দিন ১ রানের বেশি করা হলনা তামিম ইকবালের। লিটন দাসের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে এসেছে ৭ রান। ৪ বলে ১ রান করে লুঙ্গি এনগিডির শিকার হয়েছেন তামিম। ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে থাকা ফিল্ডার কেশব মহারাজ নিয়েছেন সহজতম ক্যাচ।

আগের ম্যাচে ৭৭ রানের ইনিংস খেলা সাকিব আল হাসান আজ রানের খাতা খুলতে পারেননি। ৬ বল খেলে কোন রান না করে কাগিসো রাবাদার বাউন্সে পরাস্ত হয়ে ক্যাচ দেন কাইল ভেরেনেকে। ৮ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে বিপাকে বাংলাদেশ।

একাদশ আপডেটঃ

বাংলাদেশ একাদশে আসেনি কোন পরিবর্তন। দক্ষিণ আফ্রিকা মাঠে নেমেছে ৩ পরিবর্তন নিয়ে। বাদ পড়েছেন এইডেন মার্করাম, আন্দিলে ফেলুকওয়ায়ো ও মার্কো জানসেন। একাদশে ঢুকেছেন কুইন্টন ডি কক, ওয়েইন পারনেল ও তাব্রাইজ শামসি। 

বাংলাদেশ একাদশ-

তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), ইয়াসির আলি চৌধুরী রাব্বি, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান।

দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ-

টেম্বা বাভুমা (অধিনায়ক), কেশব মহারাজ (সহ অধিনায়ক), ওয়েইন পারনেল, ইয়ানেমান মালান, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), ডেভিড মিলার, লুঙ্গি এনগিডি, তাব্রাইজ শামসি, কাগিসো রাবাদা, র‍্যাসি ভ্যান ডার ডুসেন, কাইল ভেরেনে ।

টস আপডেটঃ

জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামে টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল। 

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

করাচিতে দাতে দাত চেপে লড়াই, চাট্টিখানি কথা নয় বলছেন রিজওয়ান

Read Next

মোসাদ্দেক বলছেন ঘরোয়া ক্রিকেটেও ম্যাটার করে না সিনিয়র-জুনিয়র

Total
16
Share