বাদ পড়েছেন বলতে অস্বস্তি নেই লিটনের, ব্যাটিং পজিশন নিয়ে তর্ক করতে চান না

বাদ পড়েছেন বলতে অস্বস্তি নেই লিটনের, ব্যাটিং পজিশন নিয়ে তর্ক করতে চান না
Vinkmag ad

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে হতাশ করা লিটন দাস বাদ পড়েছেন ঘরের মাঠে পাকিস্তান সিরিজে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে ফিরেই হাঁকালেন ফিফটি, খেললেন দলের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংস। টি-টোয়েন্টিতে এক সিরিজ দলের বাইরে থাকলেও বাকি দুই ফরম্যাটে ছিলেন দলের নির্ভরতার প্রতীক হয়ে। নিজের বাদ পড়া নিয়ে কোনো লুকোচুরি নয়। সাবলীলভাবেই মেনে নিয়েছেন, বিশ্রাম নয় বাদই পড়েছেন।

বিশ্বকাপে ৮ ম্যাচে ১৬.৬২ গড়ে রান করেছেন ১৩৩। ৪৪ রানের একটি ইনিংস থাকলেও স্ট্রাইক রেট ছিল ১০০ এর নীচে (৯৪.৩২)। টি-টোয়েন্টিতে যা আদর্শের চেয়েও কম। ফল হিসেবে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাকে বাদ দিতে সময় নেয়নি নির্বাচকরা।

বিপিএলে পারফর্ম করে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জায়গা করে নিতে লিটনও সময় নেননি। শুধু জায়গা পাওয়াই নয়, প্রত্যাবর্তন ম্যাচেই হাঁকিয়েছেন ফিফটি। খেলেছেন ৪৪ বলে ৬০ রানের ইনিংস। ওয়ানডে সিরিজের ফর্ম টেনে এনে খেলা লিটনের এমন ইনিংসে ১৫৫ রানের পুঁজি পায় বাংলাদেশ। নাসুম আহমেদের স্পিন ভেল্কিতে খাবি খেয়ে সফরকারীরা গুটিয়ে যায় ৯৪ রানেই।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে লিটন জানান টি-টোয়েন্টি থেকে বিশ্রাম নয় বাদই পড়েছিলেন। এই সময়ে লিটন নিউজিল্যান্ডের মাটিতে সাদা পোশাকে হাঁকিয়েছেন সেঞ্চুরি। আফগানদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজেও তুলে নেন সেঞ্চুরি।

নিজের টি-টোয়েন্টি দলে বাদ পড়া নিয়ে লিটনের ভাষ্য, ‘ব্রেক না, ড্রপ। ব্রেক বলতে কী, আমি কি অনেক ক্রিকেট খেলে ফেলেছি। ছুটি? বিশ্বকাপের পর এসে সরাসরি ন্যাশনাল লিগে খেলেছি, ছুটি নিলাম কোথায়?’

‘আগেও বললাম, আমি তো কিছু না কিছু খেলছিলামই। টেস্ট খেলছিলাম, ওয়ানডে খেলেছিলাম। ধারাবাহিক ছিলাম। তারা আমাকে মনে করেছে, লিটনরে খেলালে ভালো হবে। আমি চেষ্টা করেছি শতভাগ দেওয়ার।’

টি-টোয়েন্টিতে লিটন আজ নিয়ে ৪৬ ইনিংসে ব্যাট করেছেন। যেখানে সবচেয়ে বেশি ৩৫ বার ব্যাট করেছেন ওপেনিং পজিশনে। এর বাইরে ভিন্ন ভিন্ন চারটি পজিশনে খেলেছেন। আজ নিয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬ বার ব্যাট করলেন ৩ নম্বরে। সবচেয়ে বেশি সফলও এই পজিশনে। ২৯ গড়ে রান করেছেন ১৭৪। আজ অভিষিক্ত মুনিম শাহরিয়ারের সাথে ওপেন করেছেন নাইম শেখ।

নিজের ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে লিটন বলেন, ‘দেখেন আমি ব্যাটিং পজিশন নিয়ে আর্গুমেন্ট বা কিছুতে যেতে চাই না। আমার লক্ষ্য থাকে খেললে দলকে সাহায্য করা। যেভাবেই হোক। টিম ম্যানেজমেন্ট যদি বলে একে ব্যাটিং করতে, তো একে, যদি বলে সাতে তো সাতে।’

‘টিম ম্যানেজমেন্ট ভালো বুঝবে, আমি সাতের প্লেয়ার কি না। তারা মনে করেছে আমাকে ওয়ান থেকে ওপেনে খেলালে বেটার হবে, আমি চেষ্টা করেছি খেলার জন্য। আমার কোনো সে নেই।’

‘আমাকে কাল যদি বলা হয় ওপেন করতে, করব। এতদিন কিপিং করি নাই, আজকে করতে বলেছে করেছি। যখন যেটা বলবে, চেষ্টা করব ১০০ ভাগ দেওয়ার। না হলে কিছু করার নেই।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশি বোলাররা গড়ল বিরল এক রেকর্ড

Read Next

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট ও ওয়ানডে স্কোয়াড ঘোষণা

Total
1
Share