তামিমের নতুন চাওয়া পূরণ হলেই সামনের ৩-৪ বছরে আসবে সুদিন: সিডন্স

তামিমের নতুন চাওয়া পূরণ হলেই সামনের ৩-৪ বছরে আসবে সুদিন: সিডন্স
Vinkmag ad

বিশ্রাম ও চোট কাটিয়ে ৬ মাসের বেশি সময় পর আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে জাতীয় দলের ক্যাম্পে তামিম ইকবাল। টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক ফিরেই পেলেন পুরোনো গুরুকে। সাবেক প্রধান কোচ জেমি সিডন্স যে ফিরলেন ব্যাটিং কোচ হয়ে, আর তাতেই যেনো টেকনিক নিয়ে তামিমের ক্ষুধা বেড়ে গেলো। ইতোমধ্যে নির্দিষ্ট জিনিস নিয়ে কাজ করা শুরুও করেছেন, তবে এখনো আয়ত্বে আসেনি।

ওয়ানডে সিরিজের সবকটি ম্যাচই চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। সিরিজ শুরুর আগ থেকে এখনো পর্যন্ত যে কয়দিনই অনুশীলন হয়েছে তামিমের বাড়তি মনোযোগ সামনের পা আড়াআড়ি না করে সোজা করার দিকে।

সিরিজ শুরুর একদিন আগে নতুন ভূমিকায় বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে প্রথম যোগ দেন জেমি সিডন্স। বাংলাদেশে এসেছিলেন অবশ্য মাসের শুরুতে, বিপিএল পর্যবেক্ষণ শেষে করোনা পজিটিভ হয়ে ছিলেন রুমবন্দী।

দলের সাথে যোগ দিয়ে প্রথম দিন থেকেই ছিলেন সরব। সিনিয়র, জুনিয়র এমনকি বোলারদের সাথেও কাজ করেছেন সিডন্স। তামিমের সাথে কাজ করা অংশে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পায়ের কাজ নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন।

বিশেষ করে সামনের পা সোজা রাখা, অনেকটা ক্যারিয়ারের শুরুর সময়টার মতো। ক্যারিয়ারের প্রথম ২-৩ বছর পা সোজা রেখেই ব্যাট করতেন, যেটি পরিবর্তন করেই লম্বা সময় ব্যাট করেছেন এতোদিন।

হুট করে সিডন্সকে পেয়ে আবারও সামনের পা সোজা করে খেলার প্রয়াস। সিডন্সের পাশাপাশি তামিম এ নিয়ে কাজ করেছেন টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের সাথেও। প্রথম ওয়ানডে শেষে ঐচ্ছিক অনুশীলনের দিনেও যা দেখা গিয়েছে।

তবে কাজটা যে সহজ কিছু না সেটি বুঝতে প্রথম দুই ম্যাচে তামিমের আউটের ধরণ দেখলেই বুঝা যাবে। দুই ম্যাচেই তামিম আউট হন আফগান বাঁহাতি পেসার ফজলহক ফারুকীর ভেতরে ঢোকানো বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে। যেখানে তামিমের সামনের পায়ের ভূমিকা ছিল বেশি।

সিডন্স নিজেও বলছেন এটি সময়ের ব্যাপার, তবে ঠিকঠাক কাজে লাগলে অন্তত ৩-৪ বছর তামিম সাবলীল খেলতে পারবেন। সাথে আসবে প্রচুর রান, সিডন্স আশাবাদী সামনে আসছে তামিমের সুদিন।

আজ (২৬ ফেব্রুয়ারী) চট্টগ্রামে টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড ও ওয়ানডে দলের জনা কয়েকের অনুশীলন শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘তামিম চাইছে ওর সামনের পা আরও সোজা রাখতে। এটা তো একদিনে হবে না। কিন্তু আমরা কথা বলছি লম্বা সময়ের জন্য। ওকে যদি আরও তিন-চার বছর খেলতে হয় তাহলে তার পা সোজা রাখার ব্যাপারটা ঠিক করতে হবে।’

‘তাহলে সে আরও সফলতা পাবে। যদি সে এলবিডাব্লিউয়ে আউট না হয়, তাহলে প্রতিপক্ষের ওকে সাজঘরে ফেরাতে অনেক কঠিন হবে। তাছাড়া সে অনেক রানও করতে পারবে। আমি দেখতে পাচ্ছি সামনে আরও সুদিন অপেক্ষা করছে ওর জন্য, ওর সেরাটা সামনে আসবে।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বাংলাদেশে ফিরতে মুখিয়ে থাকা সিডন্সের ভালোবাসা বিশ্বাস করেনি কিছু লোক

Read Next

বাংলাদেশ টাইগার্সে আনা হবে পাওয়ার হিটিং কোচ, ডেথ ওভার বিশেষজ্ঞ

Total
25
Share