ক্রিজে টিকলে যেকোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষেই সফল হবেন জানেন লিটন

ক্রিজে টিকলে যেকোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষেই সফল হবেন জানেন লিটন
Vinkmag ad

তুখোড় প্রতিভাবান হিসেবেই বাংলাদেশ ক্রিকেটে পরিচিত লিটন কুমার দাস। নানন্দিক ব্যাটিংয়ে মুগ্ধ করতে বাধ্য যে কাউকে। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শুরুর কয়েক বছর লিটন নিজের সামর্থ্যের ছিটেফোঁটাও দেখাতে পারছিলেন না। সময় গড়িয়েছে, পোক্ত হয়েছেন, আস্থার প্রতিদান দিতে শুরু করেছেন। তিনি নিজেও এখন বিশ্বাস করেন ৩৫ ওভার ব্যাট করতে পারলে বিশ্বের যেকোনো দলের বিপক্ষেই সেঞ্চুরির কাছাকাছি চলে যেতে পারবেন।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে চট্টগ্রামে খেলেছেন ১৩৬ রানের ঝকঝকে এক ইনিংস। ব্যাট করেছেন ৪৭তম ওভার পর্যন্ত, মুশফিকুর রহিমের সাথে তৃতীয় উইকেট জুটিতে গড়েছেন রেকর্ড। দুজনের ২০২ রানের জুটিই এখন বাংলাদেশের সর্বোচ্চ। লিটনের ১৩৬ রানের সাথে মুশফিকের ব্যাটে ৮৬ রান।

আজকের ইনিংসে লিটন শুরুতে ধীরে, পরে খেলেছেন হাত খুলে। ৬৫ বলে ফিফটি, ১০৭ বলে সেঞ্চুরি ও আউট হওয়ার আগে ১২৬ বলে ১৬ চার ২ ছক্কায় ১৩৬ রান। লিটনের ব্যাটিং ভাবনা কি ছিল এমন প্রশ্ন করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

জবাবে লিটন জানান তিনি অনুধাবন করছেন ক্রিজে অন্তত ৩৫ ওভার টিকলে যেকোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে অন্তত ৮০ রান করার সামর্থ্য তার আছে।

এ প্রসঙ্গে ভাষ্য, ‘জিনিসটা হচ্ছে, অবশ্যই ওপেনার হিসেবে আমার দায়িত্ব হলো রান করা, বড় ইনিংস খেলা। আমার প্রথম টার্গেট থাকে ৩৫ ওভার ব্যাটিং করা। আমি চেষ্টা করি, আমার যে ক্যালিবার আছে বিশ্বের যেকোনো দলের বিপক্ষে ৩৫ ওভার খেলতে পারলে অন্তত ৮০ রান করতে পারবো।’

‘ঐ জিনিসটাই আজকে… এভাবেই যাচ্ছিল। যখন আমি আর মুশি ভাই খেলছিলাম, জুটিটা ভালো হচ্ছিল। যখন ৪০ ওভার পার করলাম, তখন আমরা চিন্তা করলাম যত রানটা এগিয়ে নেওয়া যায়। কারণ তখন আমরা দুজনই সেট। তো আমরা চেষ্টা করেছি ইউজ করার জন্য।’

লিটন-মুশফিকের ব্যাটে চড়ে বাংলাদেশ পায় ৪ উইকেটে ৩০৬ রানের রেকর্ড সংগ্রহ। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে এটিই বাংলাদেশের ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

মুশফিকের সাথে জুটির গুরুত্ব তুলে ধরে লিটন যোগ করেন, ‘পার্টনারশিপটার তো আসলেই অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কারণ আমরা জানি যে তাদের হাতে কী ধরনের স্পিনার আছে। তাই আমি আর মুশি ভাই একটা জিনিসই আলাপ করছিলাম যে যতক্ষণ জিনিসটা ক্যারি করা যায়।’

‘আমরা সেট ব্যাটার আছি। যত ক্যারি করতে পারবো, পেছনের দিকে যারা আছে তাদের জন্য ইজি হবে। যদিও পেছনের ব্যাটাররা আজকে খুব একটা সময় পায়নি। তবে সে প্ল্যানিংটা ছিল, আমরা সাকসেসফুল ছিলাম।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নিজের উইকেটের মূল্য বুঝতে শিখেছেন ‘সিনিয়র’ লিটন

Read Next

ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগঃ বাংলাদেশের রোড টু ১০০ পয়েন্ট

Total
1
Share