রান না হবার দায় ক্রিকেটারদের দিলেন মাহবুব আনাম

রান না হবার দায় ক্রিকেটারদের দিলেন মাহবুব আনাম
Vinkmag ad

আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে সিরিজের সবকটি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। চট্টগ্রামের উইকেট সবসময়ই রান প্রসবা বলে খ্যাতি আছে। চট্টগ্রামের মতো রান দেখা যায় না অন্যান্য ভেন্যুতে। তবে বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান মাহবুব আনাম বলছেন সমস্যা উইকেট নয়, রান করতে ব্যর্থ ব্যাটসম্যানরাই।

বিপিএল হোক কিংবা আন্তর্জাতিক কোনো সিরিজ, রান বন্যার স্পোর্টিং উইকেটের কথা ভাবা হলে সবার আগেই আসে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের নাম। এর বাইরে মিরপুর যেনো রান খরায় ভোগা এক নিরীহ ভেন্যু। সিলেটেও চট্টগ্রামের মতো রান দেখা যায় না।

চট্টগ্রামের সেন্টার উইকেটের সংখ্যা বাড়ানোর কাজ চলছে। তা পরিদর্শনে আসেন বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান মাহবুব আনাম। সেখানেই আজ (২১ ফেব্রুয়ারি) তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অন্যান্য ভেন্যুতে রান কম হওয়ার ব্যাখ্যা দেন। উইকেটের পার্থক্য খোঁজা হলেও তার মতে ব্যর্থতা ব্যাটসম্যানদেরই।

তিনি বলেন,

‘রান হচ্ছে না সমস্যাটা ক্রিকেটারদেরই। যারা ভালো খেলে তারা সকল উইকেটেই ভালো খেলতে পারে। সুতরাং এটাকে অন্যভাবে দেখার কোনো সুযোগই নাই। ক্রিকেটে অনিশ্চয়তাটাই মজার আর সেই অনিশ্চয়তাটা উইকেট থেকেই আসে। আর এটা না থাকলে হয়তো ক্রিকেটের এই আনন্দটাই থাকতো না। তা না হলে স্পিনারও তৈরি হতনা, ফাস্ট বোলারও তৈরি হতনা। সুতরাং প্রত্যেকের যে স্কিলটা আছে সে স্কিলটা উন্নত করতে হবে।’

‘এটা এপ্লিকেশনের মাধ্যমেই ক্রিকেটাররা তাদের কৃতিত্ব বজায় রাখতে পারবে। আর ভিন্ন ভিন্ন সময়ে যেমন শীত, গ্রীষ্ম ভিন্ন ভিন্ন মৌসুমে উইকেট ভিন্ন আচরণ করবেই। এটা আবহাওয়ার সাথে সম্পৃক্ততা থাকে। আবহাওয়ার উপর নির্ভর করে উইকেটের আচরণ। চট্টগ্রাম আমাদের জন্য বেশ ভালো উইকেট, এখানে আমাদের রেজাল্ট ভালো। কিন্তু আমরা জয়ও পেয়েছি, হারও পেয়েছি। এটা নির্ভর করবে যারা ২২ গজে ভালো খেলবে তারাই জয় পাবে।’

আফগানিস্তানের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজের উইকেট কেমন হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে মাহবুব আনাম যোগ করেন,

‘এটাতো বললাম, ক্রিকেট অনিশ্চয়তার খেলা। সূর্য্য ভালো থাকলে উইকেট ভালো থাকবে। সূর্য্য ভালো না থাকলে উইকেট ভালো থাকে না। সেটা বলা কঠিন, তবে এটা ফেয়ার উইকেট। বোলার, ব্যাটার কনটেস্টটা ভালো হবে এটা আমি আশা করি।’

এদিকে জহুর আহমেদে নতুন উইকেট তৈরি প্রসঙ্গে তিনি বলেন,

‘দেখতে এসেছি সেটা হলো এখানে কিছু ডেভেলপমেন্টের কাজ চলছে সেগুলো কেমন চলছে, সেন্টার উইকেটে দুইটা নতুন উইকেট বানিয়েছি। যদি আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটগুলো এখানে খেলানো যায় আমাদের ক্রিকেটের উন্নয়ন হবে। উইকেট কিউরেটররা বানাচ্ছেন, তারা খুবই অভিজ্ঞ। এখানকার উইকেট স্পোর্টিং হয়, বাংলাদেশ ক্রিকেটে সুনাম ভালো। আমরা ভালো ক্রিকেট আশা করবো।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিব-সুজনের প্রশংসার প্রমাণ দিতে চান মুনিম

Read Next

সারপ্রাইজড এবাদত এবার পেসারদের নিয়ে আফগানিস্তান বধ করতে চান

Total
5
Share