মোহাম্মদ হারিসে ম্লান আজম খানের দাপুটে ইনিংস

মোহাম্মদ হারিসে ম্লান আজম খানের দাপুটে ইনিংস
Vinkmag ad

মোহাম্মদ হারিসের আক্রমণাত্মক ইনিংস ও সালমান ইরশাদের চমৎকার বোলিংয়ে কোয়ালিফায়ারের পথে এক ধাপ এগিয়ে গিয়েছে পেশোয়ার জালমি। ইসলামাবাদ ইউনাইটেডকে তারা হারিয়েছে ১০ রানের ব্যবধানে। ম্লান হয়ে যায় আজম খানের দাপুটে ইনিংস।

শুরুটা দারুণ করেছিলেন পেশোয়ারের হারিস। পাওয়ার প্লে চলাকালীন অবস্থায় মাত্র ১৮ বলে অর্ধশতক পূর্ণ করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ৩২ বলে ৭ চার ও ৫ ছয়ে ৭০ রান করে আউট হন তিনি।

হারিসের ইনিংস ছাড়াও শোয়েব মালিকের ৩৮ ও ইয়াসির খানের ৩৫ রানের সুবাদে পেশোয়ার নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ২০৬ রানের বিশাল সংগ্রহ দাড় করায়।

ইসলামাবাদের পক্ষে ফাহিম আশরাফ ৩টি ও ওয়াকাস মাকসুদ ২টি উইকেট নেন।

২০৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে রহমানউল্লাহ গুরবাজ প্রলয়ঙ্করী ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। মাত্র ১৯ বলে ৩ চার ও ৫ ছয়ে ৪৬ রান করে বিদায় নেন।

এরপর আজম খান ছাড়া আর কোন ব্যাটসম্যান ঠিকভাবে দাড়াতে পারেননি। একাই লড়ে যান আজম। মাত্র ৪৫ বলে ৬ চার ও ৭ ছয়ে ৮৫ রান করে আউট হওয়ার পাশাপাশি দলকে জয়ের কিনারায় পৌঁছাতে পারেননি তিনি। ৭ উইকেটে ১৯৬ রানে থামে ইসলামাবাদের ইনিংস।

পেশোয়ারের পক্ষে সালমান ইরশাদ ৩টি ও অধিনায়ক ওয়াহাব রিয়াজ ২টি উইকেট পান।

ম্যাচ সেরার পুরস্কার পান মোহাম্মদ হারিস।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

পেশোয়ার জালমিঃ ২০৬/৮ (২০), জাজাই ১৩, হারিস ৭০, ইয়াসির ৩৫, শোয়েব ৩৮, রাদারফোর্ড ১৬, লিভিংস্টোন ৯, কাটিং ০, তালাত ৮*, ওয়াহাব ০, কাদির ৬*; আশরাফ ৪-০-৩৩-৩, ওয়াকাস ৪-০-৩৪-২, ডি ল্যাঙ্গে ৩-০-৩২-১, ডসন ৪-০-৩৪-১, জহির ৩-০-৩৫-১

ইসলামাবাদ ইউনাইটেডঃ ১৯৬/৭ (২০), গুরবাজ ৪৬, মুবাসির ২১, দানিশ ০, আজম ৮৫, ডসন ৪, আসিফ ১২, আশরাফ ৯, ডি ল্যাঙ্গে ৭*, মুসা ৬*; ওয়াহাব ৪-০-২৬-২, ইরশাদ ৪-০-২৯-৩, তালাত ৪-০-৩০-১, কাটিং ৪-০-৩৭-১

ফলাফলঃ পেশোয়ার জালমি ১০ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ মোহাম্মদ হারিস (পেশোয়ার জালমি)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

শিষ্য সাকিব যখন সালাউদ্দিনের মাথা ব্যথার কারণ

Read Next

বিপিএল ফাইনালে ম্যাচ সামলাবেন যারা

Total
2
Share