১৫ মার্চ শুরু ডিপিএল, থাকছে বিদেশি ক্রিকেটারও

সাইফউদ্দিনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ডিপিএলে আবাহনীর হ্যাটট্রিক শিরোপা
Vinkmag ad

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) এবারের আসর শুরু হচ্ছে ১৫ মার্চ থেকে। এক বছর বিরতি দিয়ে আবারও বিদেশী ক্রিকেটার দলে ভেড়ানোর সুযোগ পাচ্ছে দলগুলো, দল বদলের তারিখও হয়েছে চূড়ান্ত।

দেশের ঐতিহ্যবাহী ৫০ ওভারের টুর্নামেন্টটি সামনে রেখে আজ (১৩ ফেব্রুয়ারি) মিরপুরে বৈঠক করে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম)। যেখানে সিসিডিএম কর্মকর্তারা ছাড়াও উপস্থিত ছিলো ১২ ক্লাবের প্রতিনিধি।

বৈঠক শেষে বিকেলে সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা বলেন সিসিডিএম চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন চৌধুরী। সেখানেই তিনি জানান দল বদলের তারিখ, ট্রফি উন্মোচন, টুর্নামেন্ট শুরুর তারিখ, ভেন্যু ও বিদেশী খেলোয়াড় সংক্রান্ত তথ্য।

সালাউদ্দিন চৌধুরী বলেন,

‘মার্চের ২ ও ৩ তারিখ প্রিমিয়ার লিগের দলবদল হবে। আর ১৪ তারিখ ট্রফি উন্মোচন করবো আমরা এখানে। ট্রফিটা উন্মোচনের পর ১৫ তারিখ থেকে টুর্নামেন্ট শুরু হবে।’

‘যেহেতু সামনে রোজা আসছে, বাংলাদেশ দলের ব্যস্ত সূচি, মাঠের একটা ব্যাপার আছে। তাই আমরা সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে শেষ করতে চাচ্ছি। যে কারণে প্রিলিমিনারি রাউন্ডে কোনো রিজার্ভ ডে রাখছি না। সুপার লিগে রিজার্ভ ডে থাকছে।’

২০২০ সালের ডিপিএলে বিদেশী ক্রিকেটার দলে ভেড়ানোর সুযোগ তুলে নিয়েছিলো সিসিডিএম। দেশের ঐতিহ্যবাহী এই টুর্নামেন্টে বিদেশীদের সুযোগ না থাকাকে নেতিবাচকভাবে দেখেছিলো অনেকেই।

কোভিডের কারণে ২০২০ সালে ডিপিএল মাঝপথেই স্থগিত হয়। পরবর্তীতে অসমাপ্ত ডিপিএল টি-টোয়েন্টি সংস্করণে ২০২১ সালে সম্পন্ন করা হয়। তবে ডিপিএলের আসন্ন আসরে ফিরছে আবারও বিদেশী ক্রিকেটার অন্তর্ভূক্ত করার সুযোগ।

সিসিডিএম চেয়ারম্যান জানালেন দলে একাধিক বিদেশী নেওয়া গেলেও একাদশে খেলানো যাবে না একজনের বেশি।

তিনি বলেন,

‘বিদেশি প্লেয়ার আমরা এবার একজন অনুমোদন দিচ্ছি। কোভিড সিচুয়েশন ও অন্যান দিক বিবেচনায় রেজিস্ট্রেশন আমরা রেস্ট্রিকটেড করিনি। কিন্তু এক খেলায় একজন বিদেশী খেলতে পারবে।’

ভেন্যু হিসেবে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সাথে থাকছে বিকেএসপির ৩ ও ৪ নম্বর মাঠ। বিকল্প হিসেবে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামকেও রেখেছে সিসিডিএম।

এদিকে খেলোয়াড়দের সাথে উন্মুক্ত চুক্তিতে যেতে পারছে দলগুলো। ফলে আর্থিক লেনদেনের পুরো বিষয়টি ক্লাব ও খেলোয়াড়ের ব্যাপার। যদিও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যেনো না ঘটে সে জন্য ক্লাবগুলোকে আর্থিক লেনদেনের প্রমান রাখার পরামর্শ দিয়েছে সিসিডিএম।

টুর্নামেন্টে জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের কথা আলাদা করে বিবেচনা করেনি সিসিডিএম। টুর্নামেন্ট যথাসময়ে শেষ করতে প্রয়োজনে জাতীয় দলের খেলোয়ায়ড় ছাড়াই খেলতে হবে ক্লাবগুলোকে, এমন বার্তাই দিয়ে দেওয়া হয়েছে আজকের বৈঠকে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিবকে অবিক্রীত দেখে অবাক জিয়াউর রহমান

Read Next

আইপিএল নিলাম শেষে যেমন হল ‘১০’ দলের স্কোয়াড

Total
8
Share