সিলেটকে হারিয়ে প্লে অফ নিশ্চিত করল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স

সিলেটকে হারিয়ে প্লে অফ নিশ্চিত করল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স
Vinkmag ad

প্লে অফে যেতে জিততেই হবে এমন ম্যাচে বড় সংগ্রহই তাড়া করলো চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। উইল জ্যাকসের ব্যাটে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে সিলেট সানরাইজার্সকে তারা হারিয়েছে ৪ উইকেটে। আর তাতে প্লে অফ যাত্রায় মিনিস্টার ঢাকা ও খুলনা টাইগার্সকে অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।

এনামুল হক বিজয় (৩২), লেন্ডল সিমন্স (৪২), রবি বোপারা (৪৪) ও মোসাদ্দেক হোসেনের (৩৫*) ব্যাটে ৬ উইকেটে ১৮৫ রানের পুঁজি সিলেট সানরাইজার্সের। যা উইল জ্যাকসের অপরাজিত ৯২ রানের দারুণ এক ইনিংসে ৫ বল ও ৪ উইকেট হাতে রেখেই তাড়া করে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

১০ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে নিশ্চিত হলো প্লে অফ। যেখানে ১০ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে মিনিস্টার ঢাকা অপেক্ষায় মিরপুরে আজ (১২ ফেব্রুয়ারী) খুলনা টাইগার্স ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ম্যাচের দিকে। যেখানে ৮ পয়েন্ট অর্জন করা খুলনা জিতলে বাদ পড়বে ঢাকা, খুলনা হারলে উঠে যাবে ঢাকা।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ৩৯ রানেই ২ উইকেট হারায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। যেখানে দারুণ শুরু আভাস দিয়ে সোহাগ গাজীর বলে ৯ বলে ১৭ রান করে ফেরেন এই বাঁহাতি ব্যাটার। গাজীর দ্বিতীয় শিকার হয়ে দ্রুত ফেরেন অধিনায়ক আফিফ হোসেনও (৭)।

তবে অন্য প্রান্তা নিজের ছন্দেই ছিলেন উইল জ্যাকস। চ্যালেঞ্জার্সের এই ইংলিশ ব্যাটার চ্যাডউইক ওয়ালটনকে নিয়ে যোগ করেন ৬৯ রান। রান আউটে কাটা পড়ে ফিরতে হয়েছে ওয়ালটনকে (২৩ বলে ৩৫)।

তবে ৩৫ বলে ফিফটি তুলে জ্যাকস ছিলেন দলকে জেতানোর পথেই। মাঝে বেনি হাওয়েল (৮ বলে ৮) খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। শেষ ৫ ওভারে প্রয়োজন পড়ে ৪৫ রান।

জ্যাকসের সাথে দ্রুত রান তোলাতে যোগ দেন শামীম পাটোয়ারি, আর তাতেই জয়ের পথে শঙ্কাটা কেটে যায় চট্টগ্রামে চ্যালেঞ্জার্সের।

৭ বলে ২১ রান করা শামীমের সাথে মেহেদী হাসান মিরাজও ফেরেন দ্রুত (২)। তবে শেষের কাজটা ঠিকঠাক শেষ করে আসেন জ্যাকস। ৫৬ বলে ৮ চার ৩ ছক্কায় ৯২ রানে অপরাজিত ছিলেন এই ইংলিশ।

সিলেটকে দারুণ শুরু এনে এনামুল হক বিজয় ও কলিন ইনগ্রাম। তাদের ৪১ রানের জুটি ভাঙে ইনগ্রাম সাজঘরে ফিরলে (১৯ বলে ২৪)। তিনে এসে ব্যর্থ মিজানুর রহমান। তৃতীয় উইকেটের জুটি দারুণ প্রতিরোধ গড়েন বিজয় ও লেন্ডল সিমন্স। তাদের ৫৪ রানের জুটি ভাঙেন মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী। ২৭ বলে ৪২ রান করেন সিমন্স।

একই ওভারের চতুর্থ বলে বিজয়কে ফেরান চট্টগ্রামের এই পেসার। ২৬ বলে ৩২ করেন তিনি। শেষ দিকে রবি বোপারা ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ঝড়ো ইনিংসে ভর করে ১৮৫ রানের সংগ্রহ পায় সিলেট। ২১ বলে ৪৪ করেন বোপারা।

নেতৃত্ব পাওয়ার পর এই প্রথম জ্বলে ওঠেন বোপারা। দুজনের ব্যাটে শেষ ৪ ওভারেই ৬১ রান যোগ হয়। যেখানে ১৮তম ওভারে বেনি হাওয়েলকে বোপারা হাঁকান ২ ছক্কা ১ চার, ওভারে রান আসে ২১।

তাকে ভালোই সঙ্গ দেন মোসাদ্দেক, ছিলেন ২২ বলে ৩৫ রানে অপরাজিত। ১৭তম ওভারে মেহেদী হাসান মিরাজকে হাঁকান সমান একটি করে চার, ছক্কা।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিবকে প্রশংসায় ভাসিয়ে মুশফিক বললেন, ‘আমি সত্যিই গর্বিত’

Read Next

কুমিল্লাকে উড়িয়ে দিয়ে প্লে অফে খুলনা টাইগার্স

Total
6
Share