মৃত্যুঞ্জয়ের দাপটে জিতল চট্টগ্রাম, কাজে এল না তামিমের অপরাজিত ইনিংস

মৃত্যুঞ্জয়ের দাপটে জিতল চট্টগ্রাম, কাজে এল না তামিমের অপরাজিত ইনিংস
Vinkmag ad

টানা তিন হারের পর অবশেষে জয়ের মুখ দেখল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। শেষ ওভারে মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী নিপুনের দাপুটে বোলিংয়ে মিনিস্টার ঢাকাকে ৩ রানে হারাল চট্টগ্রাম। বৃথা গেল তামিম ইকবালের অপরাজিত ৭৩ রানের ইনিংস।

বিপিএলের ২৩তম ম্যাচে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায় মিনিস্টার ঢাকার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। শুরুতেই ওপেনার জাকির হাসানকে (১) হারিয়ে ফেলে চট্টগ্রাম। এরপর আফিফ হোসেনকে নিয়ে জুটি গড়ে দলকে স্বস্তি এনে দেন আরেক ওপেনার উইল জ্যাকস। তবে ২৬ রানে থাকা জ্যাকসকে ফিরিয়ে ৪০ রানের জুটি ভেঙ্গে দেন আরাফাত সানি। ২ রানের বেশি করতে পারেননি মেহেদী হাসান মিরাজ।

পরের ওভারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের শিকার হয়ে আফিফ সাজঘরে ফেরেন ব্যক্তিগত ২৭ রানে। আফগান স্পিনার কায়েস আহমেদের শিকার হয়ে ফেরার আগে আকবর আলির ব্যাট থেকে আসে ৯ রান। অপর প্রান্তে সচল থেকে দলকে টেনে নিয়ে যান শামীম হোসেন পাটোয়ারী। তাঁকে যোগ্য সঙ্গ দেন বেনি হাওয়েল।

ইনিংস শেষের আগের বলে ফিফটি হাঁকানো শামীমকে ফিরিয়ে দেন এবাদত হোসেন। ৩৭ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় সাজানো শামীমের ৫২ রানের ইনিংস। এছাড়া বেনি হাওয়েল ১৯ বলে ২৪ রানে অপরাজিত থাকেন। ফলে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৪৮ রান জমা পড়ে চট্টগ্রামের স্কোরবোর্ডে।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান প্যাভিলিয়নে ফেরেন ব্যক্তিগত সংগ্রহ দুই অংকের ঘরে নিয়ে যাওয়ার আগেই। আফগান ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ শেহজাদ ৭, তিনে নামা ইমরাম উজ্জামান ৮ আর মাশরাফি বিন মর্তুজা ফেরেন শূন্য হাতে। স্কোরবোর্ডে ২১ ড়াণ তুলতেই ঢাকা ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায়। তবে ওপেনার তামিম ইকবালের সঙ্গে জুটি গড়ে ঢাকার শিবিরে স্বস্তি ফেরান অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে এই দু’য়ের গড়া ৭১ রানে জুটি ভেঙ্গে দেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ক্যাচ তুলে রিয়াদ ফেরেন ব্যক্তিগত ২৪ রানে।  

ব্যাট হাতে এবারের বিপিএলে উড়তে থাকা তামিম ইকবাল চেনা ছন্দে এই ম্যাচেও। দারুণ সব শট খেলে ফিফটি হাঁকিয়ে তামিম ইকবাল আরও বেশি চড়াও হন চট্টগ্রামের বোলারদের ওপর। তাঁকে সঙ্গ দিতে এসে শুভাগত হোমও হন মারমুখী। শরিফুলের বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে ১১ বলে ২২ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলে দলকে জয়ের পথে এগিয়ে নেন শুভাগত।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য মিনিস্টার ঢাকার দরকার ছিল ৯ রান। বোলিংয়ে মৃত্যুঞ্জয় এসে প্রথম বলেই বোল্ড করলেন কায়েস আহমেদকে। পরের দুই বলে ডট খেলেন মোহাম্মদ নাইম। কোন বাউন্ডারি ছাড়া এই ওভারে আসে কেবল ৫ রান, শেষপর্যন্ত ৩ রানের নাটকীয় জয় পায় চট্টগ্রাম। ৫৬ বলে ৭৩ রানের ইনিংসে অপরাজিত থেকে দলকে জেতাতে পারেননি তামিম ইকবাল।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জেসন রয়ের দাপুটে সেঞ্চুরিতে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের জয়

Read Next

আইসিসি প্লেয়ার অব দ্য মান্থঃ মনোনয়ন পেলেন এবাদত

Total
2
Share