অলরাউন্ডার সাকিবের দিনে হারল কুমিল্লা

অলরাউন্ডার সাকিবের দিনে হারল কুমিল্লা
Vinkmag ad

নিজের সেরা ছন্দে না থাকা ক্রিস গেইল জ্বলে উঠতে পারেননি, সেরা বোলার মুজিব উর রহমান উইকেট পাননি। তবে ফরচুন বরিশালের জয়ের প্রয়োজনে ব্যাটে বলে আরেক দফা পারফর্ম করলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ব্যাট হাতে টানা দ্বিতীয় ফিফটির সাথে বল হাতে যথারীতি অসাধারণ কিছু। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে এলো ৩২ রানের জয়।

সিলেট পর্বের প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে সাকিবের ফিফটির সাথে ওপেনার মুনিম শাহরিয়ারের দারুণ এক ঝড়ো ইনিংসে (২৫ বলে ৪৫) ৫ উইকেটে ১৫৫ রান ফরচুন বরিশালের।

জবাবে শুরুতেই ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়া কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স পায়নি নাগাল, শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে থেমেছে ১২৩ রানে। সর্বোচ্চ ৩০ রান আসে মুমিনুল হকের ব্যট থেকে। কুমিল্লাকে শুরুতে চেপে ধরেন সাকিব, ডোয়াইন ব্রাভো, পরে নাইম হাসানের ঘূর্ণিতে হয়েছে আরও নাকাল।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে পাওয়ার প্লেতে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৫ রান তোলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই সাকিবের শিকার ইমরুল কায়েস (১)। ফাফ ডু প্লেসিস না খেলাতে এ দিন লিটন দাসের সাথে ওপেন করেন ইমরুল।

দারুণ কিছুর আভাস দিয়ে ইমরুলের পর ফেরেন লিটনও (১৭ বলে ১৯)। ৩ নম্বরে নেমে এ দফায় ব্যর্থ মাহমুদুল হাসান জয়ও (৫)। এমন বাজে শুরুর পর আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

সাকিব ও ডোয়াইন ব্রাভোর পর উইকেট শিকারে যোগ দেন পার্ট টাইমার নাজমুল হোসেন শান্ত ও নাইম হাসানও। আর তাতেই কুপোকাত পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা দলটি। এক পাশ আগলে রেখে ৩০ বলে ৩০ রান করে দলের হারের ব্যবধানই কমাতে পেরেছেন মুমিনুল হক। ১৪ বলে ২১ রানে অপরাজিত ছিলেন তানভীর ইসলাম।

ফরচুন বরিশালের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেওয়ার পথে নাইম খরচ করেন ২৯ রান। এ ছাড়া ২ টি করে উইকেট সাকিব ও ব্রাভোর।

আগে ব্যাট করতে নামা ফরচুন বরিশালের হয়ে ইনিংস গোড়াপত্তন করেন ক্রিস গেইল ও মুনিম শাহরিয়ার। একদিন আগেই দলটির পরামর্শক নাজমুল আবেদীন ফাহিম জানান রান না করলে গেইলকেও দলের বোঝা বলা যায়।

আগের ৫ ম্যাচের মতো এ দিনও ব্যর্থ গেইল (৮ বলে ১০)। ক্যারিবিয়ায়ন দলপতি জ্বলে উঠতে না পারলেও টুর্নামেন্টে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচে খেলতে নেমেই ঝলক দেখালেন মুনিম শাহরিয়ার।

গেইলের পর নাজমুল হোসেন শান্ত (১) দ্রুত ফিরলে মুনিম ছিলেন দুর্দান্ত। পুল, স্লগ, কাট, অফ ড্রাইভে ছিলেন সাবলীল। তার ব্যাটেই পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেট হারিয়ে ৫৩ রান ফরচুন বরিশাল। তবে থেমেছেন ব্যক্তিগত ফিফটির আগেই, ২৫ বলে ৪ চার, ৩ ছক্কায় ৪৫ রান করে আউট হন মইন আলির বলে।

মুনিম ঝড়ের পর ফরচুন বরিশাল ইনিংসকে টেনে নেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও তৌহিদ হৃদয়। দুজনে জুটিতে যোগ করেন ৬৭ রান। ৩৬ বলে ৪ চার ২ ছক্কায় ফিফটি তুলে আউট হন সাকিব।

যা চলতি বিপিএলে তার দ্বিতীয় ফিফটি, দুটোই টানা। অপরাজিত থাকা তৌহিদ হৃদয়ের ব্যাটে ৩৭ বলে ২ চারে ৩১ রান। মাঝে ৬ বলে ১০ রান করেন ডোয়াইন ব্রাভো, ৫ উইকেটে ১৫৫ রান ফরচুন বরিশালের স্কোরবোর্ডে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সিলেট সানরাইজার্সে তাসকিন আউট, স্বাধীন ইন

Read Next

টুর্নামেন্টের মাঝপথে অধিনায়ক বদলে ফেলল সিলেট সানরাইজার্স

Total
12
Share