১০০ তেই থেমে গেল মিনিস্টার ঢাকার ইনিংস

১০০ তেই থেমে গেল মিনিস্টার ঢাকার ইনিংস
Vinkmag ad

মিরপুরের উইকেট টি-টোয়েন্টির আদর্শ না, উইকেট বোঝা কঠিন। এমন অনেক অজুহাতই হয়তো দেওয়া যায়, কিন্তু ব্যাটারদের মুখ থুবড়ে পড়ার দায়টা কোনো অংশে নিজেদেরও কম নয়। রান বন্যা না হোক অন্তত আধুনিক ক্রিকেট বিবেচনায় দর্শকদের কিছু বিনোদন দেওয়ার কাজ তো করতে হয়। আজ (২৫ জানুয়ারি) বিপিএলের ৭ম ম্যাচে আগে ব্যাট করে সিলেট সানরাইজার্সের বিপক্ষে মিনিস্টার ঢাকা আগে ব্যাট করে করতে পেরেছে মাত্র ১০০ রান।

টস জিতে যথারীতি আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত সিলেট সানরাইজার্স অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। দিনের ম্যাচে মিরপুরে যেভাবে স্পিনাররা সুবিধা পায় সেটাই কাজে লাগিয়েছে দলটির সোহাগ গাজী, মোসাদ্দেক হোসেন, নাজমুল ইসলাম অপুরা। তাদের স্পিন ঘূর্ণির বিপরীতে কেবল কিছুটা লড়াই করেছেন মিনিস্টার ঢাকা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে তুলতে পারে মাত্র ২২ রান। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল (৩) ও মোহাম্মদ শেহজাদের (৫) সাথে জহরুল ইসলামও (৫) হয়েছেন ব্যর্থ।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে ক্রিজে এসে ১৩তম ওভার পর্যন্ত টিকেছেন নাইম শেখ। কিন্তু খেলেছেন আরেক দফা টি-টোয়েন্টি বিরুদ্ধ দৃষ্টিকটু ৩০ বলে ১৫ রানের ইনিংস। নাইমের সাথে নাজমুল ইসলাম অপু ফেরান আন্দ্রে রাসেলকেও (০)। তাতে ৫৭ রানেই মিনিস্টার ঢাকা হারায় ৫ উইকেট।

এক পাশ আগলে রেখে যা একটু চেষ্টা করেন অধিনায়ক রিয়াদ। দলের প্রথম ৬৬ রানের ৩৩ (২৬ বলে) রানই এসেছে তার ব্যাটে, আউট হন অপুর তৃতীয় শিকার হয়ে। এরপর মিনিস্টার ঢাকা যে ১০০ পর্যন্ত যেতে পেরেছে তা কেবল শুভাগত হোমের ১৬ বলে ২১ রানে ভর করে। শেষদিকে রুবেল হোসেনের ৬ বলে ১২ রানও ছিলো কার্যকর।

ইনিংসের ৮ বল আগেই মিনিস্টার ঢাকাকে অলআউট করার পথে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট বাঁহাতি স্পিনার অপুর। ৩ টি উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ। এ ছাড়া সোহাগ গাজী দুইটি ও মোসাদ্দেকের শিকার একটি উইকেট।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

অবশেষে মিনিস্টার ঢাকার একাদশে মাশরাফি

Read Next

সিলেটের ১ম জয়, ঢাকার ৩য় পরাজয়

Total
1
Share