ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপের শিরোপা ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের

ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপের শিরোপা ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) লাল বলের ফরম্যাটে ফাইনালে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের কাছে রোমাঞ্চকর ম্যাচে হেরে শিরোপা বঞ্চিত হয় বিসিবি সাউথ জোন। ওয়ানডে সংস্করণের ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপের ফাইনালে প্রতিপক্ষ হিসেবে আবারও ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনকে পেয়ে প্রতিশোধ নেওয়ার হুংকার দিয়েছিলে বিসিবি সাউথ জোন। তবে এবারও ভাগ্য তাদের সহায় হয়নি, ৬ উইকেটে হেরে রানার আপেই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে জাকির হাসানের দলকে।

সিলেটে অনুষ্ঠিত হওয়া ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপের সব ম্যাচেই উইকেট নিয়ে আক্ষেপ করতে হয়েছে ক্রিকেটার, কোচ ও সংশ্লিষ্টদের। এমনকি ফাইনালেও লো স্কোরিং ম্যাচই দেখা গিয়েছে।

১৬৩ রানে বিসিবি সাউথ জোনকে গুটিয়ে দিয়ে ৩৯ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখেই শিরোপা ঘরে তোলে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। যদিও দারুণ শুরুর পর ছোট লক্ষ্য তাড়ায় নেমে মাঝে খেই হারায় ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। তবে টুর্নামেন্ট জুড়ে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতে ৩৩ রানের সাথে আল আমিন হোসেনের ফিফটিতে বিপদে পড়তে হয়নি।

আগে ব্যাট করা বিসিবি সাউথ জোনের শুরুটা ভালোই হয়েছে। পিনাক ঘোষ ও এনামুল হক বিজয়ের উদ্বোধনী জুটিতেই আসে ৫১ রান। তবে ১৩ রানের ব্যবধানে দুজনেই বিদায় নেন। পিনাক ৩৫ ও বিজয় থামেন ২০ রানে।

এরপর অবশ্য নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারায় বিসিবি সাউথ জোন। ৩ নম্বরে নামা অমিত হাসানের ২৯ ও নাহিদুল ইসলামের ৩১ রানে ১৬৩ রান পর্যন্ত যেতে পারে তারা। অধিনায়ক জাকির হাসআনের ব্যাটে আসে ১৪ রান।

ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের হয়ে সমান ২ টি করে উইকেট নেন মোসাদ্দেক, নাজমুল ইসলাম অপু, সৌম্য সরকার, হাসান মুরাদ ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী।

১৬৪ রানের সহজ লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার মিজানুর রহমান ও সৌম্য সরকার তুলে ফেলেন ৬৫ রান। তবে নাসুম আহমেদকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে উড়িয়ে মারতে গিয়ে লং অফে পিনাক ঘোষের হাতে ধরা পড়েন সৌম্য (২৫ বলে ২১)। এরপর শেখ মেহেদী হাসান দ্রুত ফেরান আব্দুল নজিদকে (১)। মোহাম্মদ মিঠুন (৪) ও মিজানুর রহমান (৫৩ বলে ৩৯ শিকার হন নাসুমের।

নাসুম-মেহেদীর স্পিন ঘূর্ণিতে ১১ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারিয়ে ৪ উইকেটে ৭৬ রানে পরিণত হয় ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। এমন পরিস্থিতিতে বিপদ যখন হাতছানি দিচ্ছে তখনই টুর্নামেন্টে ত্রাণকর্তা হয়ে আরেকবার হাজির মোসাদ্দেক হোসেন। ওয়ালটন সেণ্টাল জোন অধিনায়ক এদিন সঙ্গী হিসেবে পেয়েছেন আল আমিনকে।

দুজনে মিলে অবিচ্ছেদ্য জুটিতে যোগ করেন ৯০ রান, তাতেই ৬ উইকেটের জয় নিশ্চিত হয় ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের। মোসাদ্দেক ৮৫ বলে ৩৩ ও আল আমিন ৬৯ বলে ৫৩ রানে অপরাজিত ছিলেন। বিসিবি সাউথ জোনের হয়ে নাসুম আহমেদ ৩ উইকেট নেন ৩২ রান খরচায়। ব্যাট হাতে গুরুত্বপূর্ণ ৩৩ ও বল হাতে ২ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন মোসাদ্দেক।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বিসিবি সাউথ জোন ১৬৩/১০ (৪৮.৫), পিনাক ৩৫, বিজয় ২০, অমিত ২৯, হৃদয় ০, জাকির ১৪, নাহিদুল ৩১, মেহেদী ২, ফরহাদ ৭, নাসুম ৫, রাব্বি ১২, মুস্তাফিজ ৩*; সৈকত ১০-০-৪৫-২, অপু ১০-০-২৮-২, সৌম্য ৬.৫-০-১৯-২, মুরাদ ১০-০-২৯-২, মৃত্যুঞ্জয় ৭-১-২৬-২

ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন ১৬৪/৪ (৪২.৩), মিজানুর ৩৯, সৌম্য ২১, মজিদ ১, মিঠুন ৪, মোসাদ্দেক ৩৩*, আল আমিন ৫৩*; মেহেদী ১০-০-৩২-১, নাসুম ১০-১-৩২-৩

ফলাফলঃ ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন ৬ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত (ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের দায়িত্ব নিতে ঢাকায় পল নিক্সন

Read Next

রোমাঞ্চিত সাকিব বরিশালকে শিরোপা এনে দিতে আশাবাদী

Total
7
Share