এগিয়ে থেকেও সিরিজ হারল ভারত

জোহানেসবার্গে জানসেনের দাপট, টেনেটুনে ভারতের দুইশো

১-০ তে এগিয়ে গিয়ে ২-১ এ হার। নতুন ইতিহাস লেখার বদলে পুরনো ঘটনার পুনরাবৃত্তি। আরও একবার সিরিজ হারের দুঃসহ যন্ত্রণা তাড়া করছে ভারতীয় টেস্ট দলকে। তৃতীয় টেস্টে ভারতকে ৭ উইকেটে হারিয়ে ঘরের মাঠে সিরিজ জিতে নিল দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম ম্যাচে পরাজয়ের পর, পরের দুই ম্যাচই জিতে সিরিজ নিয়ে গেল প্রোটিয়ারা।

প্রথম ইনিংসে ৭২ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৮২ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরার পুরষ্কার জেতেন কিগান পিটারসেন। পুরো সিরিজে তাঁর ব্যাট থেকে আসে ২৭৬ রান, আর তাতেই পেলেন সিরিজ সেরার পুরষ্কার।

কেপটাউন টেস্টে আগে ব্যাট করে প্রথম ইনিংসে ২২৩ রান তোলে ভারত। জবাবে ১৩ রান আাগে থেমে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস। দ্বিতীয় ইনিংসে রিশাব পান্টের সেঞ্চুরির পরও ভারত ১৯৮ রানে অলআউট হয়ে যায়। ২১২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দ্বিতীয় ইনিংসে ভালই শুরু করে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ম্যাচের তৃতীয় দিনের শেষে দুই ওপেনার মার্করাম (১৬) ও ডিন এলগার (৩০) ফিরে গেলেও জয়ের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার প্রয়োজন ছিল ১১১ রান। ভারতের দরকার ছিল ৮ উইকেট। ২৯ বছর পর প্রোটিয়াদের দেশে সিরিজ জয়ের হাতছানি ছিল। কিন্তু সেই স্বপ্ন এবারও অধরাই থেকে গেল কোহলিদের। ৭ উইকেটে কেপটাউন টেস্ট হেরে গেল ভারত। চতুর্থ দিনই সহজে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় এলগারের দল।

জিততে হলে এদিন শুরুতেই কিগান পিটারসেন এবং ভ্যান ডার ডুসেনের জুটি ভাঙতে হত। কিন্তু সেটা পারেনি ভারতীয় পেসাররা। তৃতীয় উইকেটে ৫৪ রান যোগ করে এই জুটি। শেষপর্যন্ত পার্টনারশিপ ভাঙেন শারদুল ঠাকুর। ৮২ রানে ফিরিয়ে দেন পিটারসেনকে। কিন্তু টেস্টের ভবিষ্যৎ ততক্ষণে লিখে দিয়েছিলেন তিনি। বাকি কাজটা সারেন ভ্যান ডার ডুসেন (৪১*) আর টেম্বা বাভুমা (৩২*)। লাঞ্চের পর আর কোনও উইকেট না হারিয়ে সহজেই দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন ডুসেন-বাভুমা।

সেঞ্চুরিয়ানে দুর্দান্ত জয় দিয়ে সিরিজের সূচনা করেছিল ভিরাট কোহলির দল। কিন্তু ওয়ান্ডারার্স এবং কেপটাউনে ব্যাক টু ব্যাক হারে টেস্ট সিরিজ ২-১ এ হারল কোহলিরা।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কেকেআরের বোলিং কোচ হলেন ভারত অরুন

Read Next

সিলেট সানরাইজার্স শিবিরে দুই ক্যারিবীয় তারকা

Total
1
Share