ডোমিঙ্গোর স্থলাভিষিক্ত হওয়ার দৌড়ে আছেন জেমি সিডন্স!

ডোমিঙ্গোর স্থলাভিষিক্ত হওয়ার দৌড়ে আছেন জেমি সিডন্স!
Vinkmag ad

রাসেল ডোমিঙ্গোর পরিবর্তে বাংলাদেশের ভবিষ্যত প্রধান কোচ হওয়ার দৌড়ে যেসব নাম ছিলো সেখানে এবার নতুন করে জেমি সিডন্সের নাম যুক্ত করা যায়। ইতোমধ্যে তাকে ব্যাটিংপরামর্শক হিসেব নিয়োগও দিয়েছে বোর্ড। ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে আসতে যাওয়া সিডন্স যে প্রধান কোচের দৌড়েও আছেন তার আভাস দিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস।

বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে বিসিবি টেনে নিবে কীনা এ নিয়ে চলছে যত আলোচনা। বেশ কয়েকবারই তাকে বরখাস্তের গুঞ্জন উঠেছে, তবে বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন যোগ্য বিকল্পের অভাবে সেটি সম্ভব হচ্ছিলো না।

তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভরাডুবির পর নড়েচড়ে বসে বিসিবি, কিন্তু গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়ায় বিশ্বকাপের আগেই করা ডোমিঙ্গোর সাথে দুই বছরের চুক্তি। যেখানে শর্তমতে প্রথম এক বছর তাকে করা যাবে না বরখাস্ত। বরখাস্ত করতে হলেও দিতে হবে বড় অংকের আর্থিক ক্ষতিপূরণ।

আরও পড়ুনঃ জেমিস সিডন্সের সাক্ষাৎকার- ভূমিকার সাথে অনেক প্রশ্নের উত্তরও অজানা সিডন্সের

একদিকে বড় অংকের আর্থিক ক্ষতিপূরণ, অন্যদিকে যোগ্য বিকল্প না পাওয়া ও টানা আন্তর্জাতিক সূচিতে কোচ পরিবর্তনে পরিকল্পনা করেই এগোতে হচ্ছে বিসিবিকে। ডোমিঙ্গোকে অন্তত তার চুক্তির প্রথম এক বছর পর্যন্ত টেনে নেওয়ার আভাস বিসিবি কর্তাদের।

তবে বিকল্প খোঁজা হচ্ছে বেশ ভালোভাবে, পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন চুক্তি নবায়ন করতে আগ্রহ প্রকাশ না করায় পুরো কোচিং প্যানেল নিয়েই আছে ভিন্ন পরিকল্পনা। সে ক্ষত্রে ব্যাটিং পরামর্সশক হিসেবে নিয়োগ পাওয়া জেমি সিডন্সের নাম উচ্চারিত হচ্ছে বেশ। টাইগারদের সাবেক এই প্রধান কোচ ছাড়াও শোনা যাচ্ছে দৌড়ে আছেন আরেক সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে।

আজ (১৩ জানুয়ারি) সিলেটে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) ম্যাচ চলাকালীন সাংবাদিকদের সাথে আলাপে জালাল ইউনুস বলেন, ‘আপনারা জানেন এখনো পর্যন্ত আমাদের কাছে কিন্তু হেড কোচ নেই (বিকল্প)। আমরা জেমি সিডন্সকে নিয়ে আসছি ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে। সে ফেব্রুয়ারির শুরুতে আমাদের এখানে আসবে। কিন্তু আমাদের কোনো হেড কোচ নেই। কয়দিন আগে আপনাদেরকে মাননীয় সভাপতিও জানিয়েছেন যেহেতু বিকল্প হেড কোচ নেই এবং ডোমিঙ্গোর সাথে চুক্তিও সম্পন্ন হয়েছে, সেহেতু তাকেই চালিয়ে নিচ্ছি।’

‘উনি বলেছেন জানুয়ারি মাসে একটা পরিকল্পনা করবেন, দেখা যাক। আসলে প্রধান কোচ, নির্বাচক প্যানেল এসব কিন্তু বোর্ড থেকে সিদ্ধান্ত হয়। যেহেতু ব্যাক টু ব্যাক খেলা, নিউজিল্যান্ড থেকে এসে বিপিএল, এরপর আফগানিস্তান আসবে, এটা শেষ হলেই যাবে দক্ষিণ আফ্রিকা। এই ব্যস্ততা ও যেহেতু একটা চুক্তি তার সাথে করা হয়েছে সেহেতু তাকে চালিয়ে নেওয়া হচ্ছে। তবে আমাদের অন্য চিন্তাও আছে পুরো কোচিং প্যানেল নিয়ে। ওটিস গিবসন চলে গেলো, ওদিকে জেমি সিডন্স আসবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার ওয়ানডে স্কোয়াড ঘোষণা

Read Next

বিপিএলে মাঠে থাকছে না দর্শক!

Total
26
Share