নাইমের ধৈর্যের প্রদর্শনী, অশান্ত হয়ে সাজঘরে শান্ত

নাইমের ধৈর্যের প্রদর্শনী, অশান্ত হয়ে সাজঘরে শান্ত
Vinkmag ad

দ্বিতীয় দিনই ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়া বাংলাদেশকে ম্যাচ বাঁচাতে করতে হবে অসাধারণ কিছু। শেষ পর্যন্ত সেটা কতটা সম্ভব তা জানতে করতে হচ্ছে অপেক্ষা। তবে আজ তৃতীয় দিন প্রথম সেশনটা নিজেদের করার পথেই ছিলো টাইগাররা। কিন্তু সেশনের শেষদিকে নাজমুল হোসেন শান্তকে ফাঁদে ফেলে আউট করে তা হতে দেয়নি নেইল ওয়াগনার।

ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে প্রথম ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের ৫২১ (ইনিংস ঘোষণা) রানের জবাবে বাংলাদেশ গুটিয়ে যায় মাত্র ১২৬ রানে। ৩৯৫ রানে পিছিয়ে থেকে ফলো অনে পড়ে আজ তৃতীয় দিন শুরু করে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস।

ওপেনার সাদমান ইসলাম ও ৩ নম্বরে নামা শান্তকে হারিয়ে লাঞ্চের আগে টাইগারদের স্কোরবোর্ডে ৭৪ রান। ধৈর্য্যের পরীক্ষা দিয়ে ১৫ রানে অভিষিক্ত নাইম শেখ ও ২ রানে অপরাজিত আছেন মুমিনুল হক। ইনিংস হার এড়াতে এখনো ৩২১ রান প্রয়োজন বাংলাদেশের।

প্রথম দুইদিনের তুলনায় আজ উইকেট ছিলো বেশ ব্যাটিং সহায়ক। সকালটা দারুণভাবে শুরু করেছিলো দুই টাইগার ওপেনার সাদমান-নাইম। সাদমানের ব্যাটে ছিলো আত্মবিশ্বাসের ঝলক। দুজনে বল ছাড়াতেও আজ দেখাচ্ছিলেন দক্ষতা, জোনে পেলে রান তোলার কাজটাও করছিলেন। কিন্তু এতো ধৈর্য্য টিকেনি ১৩.৫ ওভারের বেশি।

কাইল জেমিসনের করা লেগ স্টাম্পের বেশ বাইরের বলে খোঁচা দিয়ে কট বিহাইন্ড সাদমান (৪৮ বলে ২১)। উইকেটের পেছনে দুর্দান্ত ক্যাচ নেন টম ব্লান্ডেল, ২৭ রানে প্রথম উইকেটের পতন।

মনে হচ্ছিল ৩ নম্বরে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত ও নাইম শেখ মিলে সেশনের বাকি সময় পার করবেন অনায়েসেই। নেইল ওয়াগনার, ট্রেন্ট বোল্টদের চ্যালেঞ্জ উতরে রান তোলার চেয়ে ক্রিজে টিকে থাকাতেই মনযোগ ছিলো দুজনের।

সেশনের শেষদিকে অবশ্য ওয়াগনারের শর্ট বলকে বাউন্ডারিতেও রূপ দেন শান্ত। ২৩ তম ওভারে হাঁকান টানা ২ চার, ছক্কা। ২৫তম ওভারে হাঁকান টানা ২ চার। আর এই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করতে গিয়েই উইকেট বিলিয়ে আসেন শান্ত।

ওয়াগনারও তাকে দিয়ে গেছেন ক্রমাগত শর্ট বল, শেষ পর্যন্ত ধরা পড়েন লং লেগে বোল্টের হাতে। নামের পাশে ৩৬ বলে ৫ চার ১ ছক্কায় ২৯ রান। ক্রিজে আসা নতুন ব্যাটার মুমিনুল হককেও অস্বস্তিতে রাখে ওয়াগনার।

লাঞ্চের আগে ২৮ ওভারের সেশনে ২ ঘন্টার বেশি সময় ক্রিজে টিকে ৮১ বলে ১৫ রানে অপরাজিত নাইম, ৫ বলে ২ রানে অপরাজিত আছেন মুমিনুল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (৩য় দিন, ১ম সেশন শেষে):

নিউজিল্যান্ড ৫২১/৬ (১২৮.৫ ওভারে ইনিংস ঘোষণা), ল্যাথাম ২৫২, ইয়াং ৫৪, কনওয়ে ১০৯, টেইলর ২৮, নিকোলস ০, মিচেল ৩, ব্লান্ডেল ৫৭*, জেমিসন ৪*; শরিফুল ২৮-৯-৭৯-২, এবাদত ৩০-৩-১৪৩-২, মুমিনুল ৩-০-৩৪-১

বাংলাদেশ ১২৬/১০ ও ফলো অনে পড়ে ৭৪/২ (২৮), সাদমান ২১, নাইম ১৫*, শান্ত ২৯, মুমিনুল ২*; জেমিসন ৬-২-১৬-১, ওয়াগনার ৮-২-৩০-১

বাংলাদেশ ৩২১ রানে পিছিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

করোনা টেস্টে পজিটিভ জিম্বাবুয়ের কোচ

Read Next

বোলান্ড নয়, রিচার্ডসনকে এগিয়ে রাখছেন পন্টিং

Total
1
Share